Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ মে ২০২১, ০১ জৈষ্ঠ্য ১৪২৮, ০২ শাওয়াল ১৪৪২ হিজরী

স্বাধীনতা দিবসের ভাষণে ভাস্কর্য ও স্মৃতিস্তম্ভ বিনষ্টের নিন্দা করলেন ট্রাম্প

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৪ জুলাই, ২০২০, ৫:৫৮ পিএম

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আজ ৪ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে মাউন্ট রাশমোরে দেয়া ভাষণে সম্প্রতি বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে প্রাচীন ভাস্কর্য ও স্মৃতিস্তম্ভ বিনষ্টের চেষ্টার তীব্র নিন্দা করেছেন। জর্জ ফ্লয়েড হত্যার পর কনফেডারেট নেতা ও রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের ভাষ্কর্য উপড়ে ফেলায় বিক্ষোভকারীদের প্রচেষ্টাকে ট্রাম্প ‘বাতিল সংস্কৃতি’ বলে অভিহিত করেছেন। -বিবিসি

এসব জাতীয় ঐতিহ্য অবমাননার দায়ে অভিযুক্তদের আইনের আওতায় আনার হুঁশিয়ারি দিয়ে ট্রাম্প বলেন, যারা স্মৃতিস্তম্ভকে অবমাননা করেছেন, তাদের ১০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। তিনি আরও বলেন, সাউথ ডাকোটা স্মৃতিস্তম্ভটি আমাদের পূর্বপুরুষ এবং স্বাধীনতার প্রতিকৃৎ হিসেবে চিরকাল দাঁড়িয়ে থাকবে। এই স্মৃতিস্তম্ভকে কখনোই অপমান করা যাবে না, এই বীররা কখনোই বিকৃত হবেন না।

গত ২৬ জুন এই বিষয়ে একটি নির্বাহী আদেশে সই করেছে ট্রাম্প। ইতোমধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে স্থাপিত ভাস্কর্য হোমল্যান্ড সিকিউরিটির বিশেষ এজেন্টদের নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে। গত সপ্তাহে ১০০ জন আন্দোলনকারীকে গ্রেপ্তার করা হয় । স্বাধীনতার ২৪৪ বছর বর্ষপূর্তিতে রাশমোরে প্রেসিডেন্টের বক্তব্য , আতশবাজি ও সংগীত উপভোগ করতে মাউন্ট রাশমোরের অনুষ্ঠানে সাড়ে ৭ হাজার মানুষ টিকিট কেটেছিলেন। তবে এ অনুষ্ঠানে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটবে বলে অনেকেই সমালোচনা করেছেন ।

এদিকে বর্ণবৈষম্য ঘিরে চলা বিক্ষোভ কিছুটা কমে আসলেও মার্কিন আদিবাসীদের ক্ষোভ বৃদ্ধি পেয়েছে। সাউথ ডাকোটার ব্ল্যাক হিলে অবস্থিত মাউন্ট রাশমোর ৬০টি জনজাতির বসবাস। তাদের কাছে এই পাহাড়টি ঔপনৈবেশিকতা ও বর্ণবৈষম্যের প্রতিক। ১৮৭০ সালে সোনার সন্ধান মেলার পরে আদি বাসিন্দাদের থেকে এলাকাটি ছিনিয়ে নেয় মার্কিন সরকার। পরবর্তীকালে এর গায়ে খোদাই করে গড়ে তোলা হয় চার শ্বেতাঙ্গ প্রেসিডেন্ট জর্জ ওয়াশিংটন , টমাস জেফারসন , আব্রাহাম লিঙ্কন ও থিয়োডোর রুশভেল্টের ৬০ ফুট দীর্ঘ মুখাবয়ব । আদিবাসী সংগঠনের প্রধান নিক টিলসেন বলেন , ওই চার শ্বেতাঙ্গ আমেরিকার আদি বাসিন্দাদের হত্যা করেছিলেন। আমার পূর্বপুরুষেরা প্রাণ দিয়েছিলেন। এখানে এই উৎসব মেনে নেওয়া যায় না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ