Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

দ্রুততম ৭ হাজার রানও কোহলির

প্রকাশের সময় : ১৮ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস ডেস্ক : আগের দুই ম্যাচে ৩০৯ ও ৩০৮ করেও জিততে পারেনি ভারত। গতকাল মেলবোর্নে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে তো তিনশ’ই পার হলো না। তখনই কি ভারতের ওয়ানডে অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি বুঝতে পেরে গিয়েছিলেন ম্যাচের ভাগ্য? কোহলির ১১৭ রানের সঙ্গে ধাওয়ান-রাহানের দুই ফিফটির পরও যে ‘মাত্র’ ২৯৫ করেছে ভারত! মাত্র বলার কারণটা বেশ অনুমিতই। দুই ম্যাচে তিনশোর্ধ রান করেও হার। জয় না পেলে সিরিজটাই হাতছাড়া সফরকারীদের। এমন চাপের পর অস্ট্রেলিয়ার ‘ব্যাটিংবান্ধব পিচ আর প্রতিপক্ষ ব্যাসম্যানদের ফর্ম-এর সবই কপালে ভাঁজ ফেলার জন্য যথেষ্ট। যদিও সেটি খুব সহজে হতে দেন নি বিরাট কোহলি। তবে জোড়া রেকর্ডের সেঞ্চুরি করেও ম্যাক্সওয়েলের দানবীয় ব্যাটিংয়ে ভেস্তে গেছে সব। ৭ বল বাকি থাকতে ৭ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় অস্ট্রেলিয়া।
দলগতভাবে প্রত্যাশা না মিটলেও, কোহলির ব্যক্তিগতভাবে বেশ ভালোই কেটেছে ম্যাচটা। প্রথম ১৯ রান করেই ক্যারিয়ারে মাত্র ১৬১তম ইনিংসে এসে ৭ হাজার রানের মাইলফলক ছুঁয়েছেন, যেটি কিনা সবচেয়ে দ্রুততম ৭ হাজার রান ছোঁয়ার রেকর্ড। জেমস ফকনারকে গ্ল্যান্স করে বাউন্ডারি মেরে পৌঁছে যান মাইলফলকে। ২০১৪ সালের নভেম্বরে ১৬৯ ইনিংসে ৭ হাজার স্পর্শ করে আগের রেকডটি গড়েছিলেন ডি ভিলিয়াস। এর আগে ১৩ বছর রেকর্ডটি ছিল সৌরভ গাঙ্গুলির। সাবেক ভারকীয় ব্যাটসম্যানের ৭ হাজার করতে লেগেছিল ১৭৪ ইনিংস। এর আগে দ্রুততম ৫ হাজার ও ৬ হাজার রানের রেকর্ডও গড়েছিলেন কোহলি। পরে দুটি রেকর্ডই ভেঙে দেন হাশিম আমলা। শুধু ৫ ও ৬ হাজারই নয়, ওয়ানডেতে ২ হাজার থেকে ৬ হাজারের সবগুলি মাইলফলকেই সবচেয়ে কম ইনিংসে পৌঁছানোর রেকর্ড আমলার।
২০০৮ সালের অগাস্টে ওয়ানডে অভিষেক হয়েছিল কোহলির। ৭ বছরের একটু বেশি সময়ে করে ফেললেন ৭ হাজার রান। ২০১১ থেকে ২০১৪, টানা চার বছর করেছিলেন হাজার রানের বেশি, ২০১০ সালে করেছিলেন ৯৯৫ রান। রোববারের ম্যাচের আগে ১৬০ ইনিংসেই করে ফেলেছেন ২৩টি শতক! পরে সেঞ্চুরি করে আরেকটি ‘দ্রুততম’র রেকর্ডও ছুঁয়েছেন- সবচেয়ে কম সময়ে ২৪ সেঞ্চুরির। দুইশ’র কম ইনিংস খেলে ২৪ সেঞ্চুরি করতে পারেনি ক্রিকেট ইতিহাসেরই কেউ। যাঁকে এভারেস্ট মানা হয়, সেই শচীন টেন্ডুলকারের লেগেছিল ২১৯ ইনিংস। রিকি পন্টিং এই অর্জন ছুঁয়েছিলেন ২৭৮তম ইনিংসে এসে। টেস্টে না হলেও ওয়ানডের সব রেকর্ড কোহলি ভেঙে দেবেন বলে যে একটা কথা শোনা যায়, সেটি যেন দিনকে দিন আরও জোরালো হচ্ছে!
তবে এবার বিফলে গেল বিরাট কোহলির শতক। গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও শন মার্শের দৃঢ়তায় ভারতকে তৃতীয় ওয়ানডেতে ৩ উইকেটে হারিয়ে দুই ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। পাঁচ ম্যাচের সিরিজে স্বাগতিকরা এখন ৩-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে। আগামী বুধবার ক্যানবেরায় হবে চতুর্থ ওয়ানডে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।