Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৬ আগস্ট ২০২০, ০১ ভাদ্র ১৪২৭, ২৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

‘আমরা ভালো হলেই দেশ ভালো থাকবে’

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ জুলাই, ২০২০, ১২:০০ এএম

বাংলাদেশ এক সময় দুর্নীতিতে সেরা ছিল, এখন কিন্তু দুর্নীতি থেকে বেরিয়ে এসেছি। আমাদের হাতে দেশের মান-ইজ্জত, আমরা ভালো থাকলেই দেশ ভালো থাকবে বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।
গতকাল বিকেলে বিপিএমআই (বাংলাদেশ পাওয়ার ম্যানেজমেন্ট ইনস্টিটিউট) বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। ৬০ দিনব্যাপী বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সে অংশ নেন ডেসকোর ৩২ জন প্রকৌশলী।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, দেশের ডিগ্রি বিদেশে অনেক জায়গায় ভ্যালু নাই। এখানে মর্যাদাপূর্ণ কোর্স করতে হবে। অনেক জায়গায় বিদেশি প্রকৌশলীকে নিতে হচ্ছে। ইপিসি ঠিকাদার নিতে হচ্ছে। কোর্সের মান ওয়ার্ল্ড ক্লাস হতে হবে। আমরা স্বনির্ভর হতে চাই।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রকৌশলীরা আউট অবদি বক্স হতে পারেন না। এসব বিষয়ে তাদেরকে ট্রেন্ডআপ করতে হবে। যাতে তারা দক্ষ ব্যবস্থাপক হিসেবেও গড়ে ওঠেন। অনেক কর্মকর্তার ইলেক্ট্রিসিটি আইন-২০১৮ সম্পর্কে ধারণা নেই। কোর্সে আইনের বিষয়ে বেসিক ধারণা দিতে হবে।
তিনি বলেন, সোনার বাংলা কিন্তু এখন স্পষ্ট। আপনারা যারা নতুন যুক্ত হচ্ছেন। তারা কিন্তু উন্নত বাংলাদেশ দেখতে পাবেন। উন্নত দেশ কেমন হয় সে বিষয়ে ধারণা থাকতে হবে। জাতির জনক বলেছেন সোনার বাংলা গড়ে তুলবেন। প্রত্যেক ঘরেতো সোনা থাকবে না, তবে সোনার ছেলে থাকবে। করোনার কারণে আগামী বছরগুলোতে একটা প্রভাব পড়বে। আমি দেখেছি প্রকৌশলীরা কাস্টমার সার্ভিস বিষয়ে অনেকে দুর্বল। এবারের বিদ্যুতের বিল নিয়ে অনেক কর্মকর্তা বাজে ব্যবহার করেছে।
প্রধানমন্ত্রীর মূখ্যসচিব ড. আহমেদ কায়কাউস বলেন, আপনারা যে জীবন শুরু করতে যাচ্ছেন। এই শুরুর পেছনে পূর্বসূরীদের অনেক অবদান রয়েছে, এটা মনে রাখতে হবে। পাওয়ার সেক্টরে রিস্ট্রাকচারিং শুরু করেন বঙ্গবন্ধু নিজে। তখন ওয়াপদাকে ভেঙে বিপিডিপি করেছিলেন। তারই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঢেলে সাজিয়েছেন। আপনাদের আজকে এই পর্যায়ে আসতে দেশ ও আপনার বাবা-মার অনেক অবদান রয়েছে। এখন দেশকে দেয়ার সময় এসেছে।
বিদ্যুৎ বিভাগের সচিব ড. সুলতান আহমেদ বলেন, উচ্চ শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। তোমরা যদি উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করতে চাও সহযোগিতা করা হবে। নতুন টেকনোলজির মাধ্যমে কিভাবে সেবা দিতে পারি। সেদিকে মনোযোগ থাকতে হবে।
বিপিএমআই’র প্রকল্প পরিচালক ও রেক্টর মাহবুব-উল আলম বলেন, অতীতের যে কোনো সময়ের চেয়ে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ক্ষমতা বেশি। এই ক্ষমতাকে সঠিকভাবে পরিচালনা করতে হলে দক্ষ জনবলের বিকল্প নেই। বিপিএমআই দক্ষ জনবল তৈরির কাজ শুরু করেছে। করোনার কারণে কিছুটা ব্যাহত হলেও শেষ পর্যন্ত সফলভাবেই সমাধান করতে সক্ষম হয়েছি।
ভার্চুয়াল এই সভায় বক্তব্য রাখেন বিদ্যুৎ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব ডেসকো বোর্ডের চেয়ারম্যান মাকছুদা খাতুন, কোর্স পরিচালক রফিকুল ইসলাম, প্রশিক্ষণার্থী আবির সাফি বিন্দু ও নিরূপম দাশ। অন্যদের মধ্যে অংশ নেন ডেসকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাওসার আমীর আলী ও বিদ্যুৎ বিভাগের বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশ


আরও
আরও পড়ুন