Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বুফনের ম্যাচে রোনালদোকে ‘ফিরে’ পাওয়া

শিরোপার আরো কাছে জুভেন্টাস

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

দুর্দান্ত ছন্দে আছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। কম যাচ্ছেন না পাওলো দিবালাও। ইতালিয়ান সিরি আতে মাঠে নামলেই গোল পাচ্ছেন দুই তারকা। তাদের কাঁধে চড়ে ছুটছে জুভেন্টাসের জয়রথও। করোনাভাইরাসের ধাক্কা সামলে ফের চালু হওয়া সিরি আতে চার ম্যাচ খেলে সবকটিতে জয়ের স্বাদ নিল মাউরিসিও সারির দল। পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড রোনালদো ও আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড দিবালাও টানা চতুর্থ ম্যাচে পেলেন জালের দেখা। গতপরশু রাতে ঘরের মাঠ আলিয়াঞ্জ অ্যারেনায় তুরিনোকে ৪-১ গোলে হারিয়েছে ইতালির শীর্ষ লিগের টানা আটবারের চ্যাম্পিয়নরা। ওল্ড লেডিদের হয়ে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন হুয়ান কুয়াদ্রাদোও। অন্য গোলটি আত্মঘাতী।

স্কোরলাইনে একতরফা ম্যাচের প্রতিচ্ছবি ফুটে উঠলেও তোরিনো একেবারে খারাপ খেলেনি। জুভেন্টাসের ২১টি শটের বিপরীতে তারা নিয়েছে ১২টি শট। স্বাগতিকদের সাতটি শট ছিল লক্ষ্যে, অতিথিদের ছয়টি। বল দখলের লড়াইও ছিল প্রায় সমানে সমান, জুভেন্টাস ৫১.৫ শতাংশ ও তোরিনো ৪৮.৫ শতাংশ। কিন্তু রোনালদো-দিবালাদের দক্ষতার সঙ্গে পেরে ওঠেনি পয়েন্ট তালিকার ১৫ নম্বরে থাকা দলটি।

এই ম্যাচে প্রাপ্তি আছে আরো। ৬১তম মিনিটে দারুণ এক ফ্রি-কিকে চলতি আসরে নিজের ২৫তম গোলের স্বাদ নেন রোনালদো। ২৯ গোল করে তার সামনে আছেন কেবল লাৎসিওর চিরো ইম্মোবিলে। রোনালদোর আগে জুভের হয়ে সর্বশেষ এক মৌসুমে ২৫ গোল করেছিলেন আর্জেন্টাইন কিয়বদন্তি ওমর সিভোরি। ২০১৮ সালে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে জুভেন্টাসে যোগ দেওয়ার পর এই প্রথম ফ্রি-কিক থেকে লক্ষ্যভেদ করলেন পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী তারকা। এ জন্য ৪৩টি শট নিতে হয়েছে তাকে। এর আগে ৪২ বার ফ্রিকিক নিয়ে বল জালে জড়াতে পারেননি এ তারকা। অথচ এক সময় মুড়িমুড়কির মতো ফ্রিকিক থেকে গোল পেতেন এ ফরোয়ার্ড। বর্তমান খেলোয়াড়দের মধ্যে সর্বোচ্চ ৫৫টি ফ্রিকিক গোল পাওয়ার রেকর্ডটি যে তারই। ম্যাচ শেষে রোনালদো বললেন ফ্রিকিক থেকে একটি গোল পেতে কতটা মরিয়া ছিলেন তিনি, ‘কিছু আত্মবিশ্বাস ফিরে পেতে ফ্রিকিক থেকে আমার ওই গোলটি পাওয়া খুব দরকার হয়ে পড়েছিল।’

অন্যদিকে ১৯৯৫ সালে সিরি ‘আ’তে অভিষেক হওয়া জিয়ানলুইজি বুফন এদিন খেলেছেন ৬৪৮তম ম্যাচ। সিরি ‘আ’তে প্রায় ১১ বছর ধরে টিকে থাকা পাওলো মালদিনির রেকর্ড ভেঙে নিজের করে নেন অভিজ্ঞ এই গোলরক্ষক। প্রতিযোগিতাটির ১২২ বছরের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার কীর্তি গড়েন জুভ গোলরক্ষক। কিংবদন্তি সাবেক ডিফেন্ডার মালদিনি খেলেছিলেন ৬৪৭ ম্যাচ।

শুধু ব্যাক্তিগতই নয়, দলীয় আরেজ অর্জনেওর খুব কাছে জুভরা। ইতালিয়ান সিরি আয় শেষ আট মৌসুমে একক আধিপত্য বজায় রেখে শিরোপা জিতে আসছে দলটি। তাদের আটকাতে পারছে না কোনো দলই। তবে চলতি মৌসুমে এ লিগ বেশ জমে উঠেছিল। শুরুতে দারুণ লড়াই উপহার দিয়েছিল ইন্টার মিলান। মাঝপথে খেই হারায় দলটি। এরপর লড়াইয়ে সামিল হয় লাৎসিও। জুভদের ঘাড়েই নিঃশ্বাস ফেলছিল দলটি। তবে শিরোপাস্বপ্ন প্রায় শেষ করে দিয়েছে ইতালির ঐতিহ্যবাহী ক্লাব এসি মিলান। অপেক্ষাকৃত দুর্বলটির কাছে বিধ্বস্ত হয় ০-৩ গোলের ব্যবধানে। দলের জয়ে এদিন মিলানের হয়ে একটি করে গোল দিয়েছেন হাঁকান কালহানোগ্লু, জ্বাতান ইব্রাহিমোভিচ ও আন্তে রেবিচ।

৩০ ম্যাচে ৪৬ পয়েন্ট তাদের। যদিও এক ম্যাচ কম খেলেছে নাপোলি। আর এ হারে ৩০ ম্যাচে ৬৮ পয়েন্ট পাওয়া লাৎসিওর শিরোপা স্বপ্ন অনেকটাই ফিকে হয়ে গেল। শীর্ষে থাকা জুভেন্টাসের সংগ্রহ সমান ম্যাচে ৭৫ পয়েন্ট। সমান ম্যাচে ৬৪ পয়েন্ট নিয়ে তৃতীয় স্থানে রয়েছে ইন্টার মিলান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রোনালদো

১৫ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন