Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ০৩ আগস্ট ২০২০, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

খেলাপির দায়ে ওয়ান ব্যাংকের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন চৌধুরীকে অপসারণ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৬ জুলাই, ২০২০, ৫:৫০ পিএম

ঋণ খেলাপির দায়ে বেসরকারি ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন চৌধুরীকে অপসারণ করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। চলতি মাসে ওয়ান ব্যাংককে বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে এ সংক্রান্ত চিঠি দেয়া হয়। কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এ সিদ্ধান্ত ১৫ অক্টোবর ২০১৯ থেকে কার্যকর হয়েছে বলে চিঠিতে বলা হয়েছে। সোমবার (৬ জুলাই) এ তথ্য নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম।

তিনি জানান, ওয়ান ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান সাঈদ হোসেন চৌধুরী স্বার্থসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের নামে ঋণ নিয়েছিলেন। নিয়মিত পরিশোধ না করায় পরে তা খেলাপি হয়। আইন অনুযায়ী একজন ঋণখেলাপি ব্যাংকের পরিচালক থাকতে পারেন না। এ কারণে চলতি মাসে ওয়ান ব্যাংককে চিঠি দেয়া হয়েছে। এর ফলে ১৫ অক্টোবর ২০১৯ সাল থেকে সাঈদ হোসেন চৌধুরী ওই ব্যাংকের পরিচালক নন।

জানা গেছে, ওয়ান ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও এইচআরসি গ্রুপের চেয়ারম্যান এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাঈদ হোসেন চৌধুরী। এ গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এইচআরসি শিপিং লাইন্সের ব্যবসায়িক কার্যক্রম পরিচালনা করতে বেসরকারি স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংক থেকে ঋণ সুবিধা নেন। তবে ঋণ পরিশোধে ব্যর্থতার দায়ে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের খেলাপির তালিকায় রয়েছে তার নাম। তার কাছে সুদসহ মোট পাওনা দাঁড়িয়েছে ১২১ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। এ পাওনা আদায়ে বন্ধকিতে থাকা চট্টগ্রামের সম্পত্তি নিলামে বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্ট্যান্ডার্ড ব্যাংকের প্রিন্সিপাল শাখা।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, পারিবারিকভাবেই তাদের শিপিং লাইন্স হানজিন ও পিআইএল বেশ কয়েকটি শিপিং লাইন্সের ব্যবসা ছিল। সে সুবাদে নিজেই এইচআরসি শিপিং লাইন্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। এক সময় আন্তর্জাতিকভাবে পণ্য আনা-নেয়ায় প্রায় আটটি জাহাজ ছিল এ কোম্পানির বহরে। তবে বর্তমানে এ প্রতিষ্ঠানের বাণিজ্যিক কার্যক্রম নেই। এছাড়া বারিধি শিপিং লাইন্স লিমিটেড, এভারগ্রিন, বাংলাদেশ ল্যান্ড লিমিটেড, এইচআরসি সিন্ডিকেট, এইচআরসি ট্রাভেলস, এইচআরসি লাইটিং, এইচআরসি প্রোপার্টিজ, এইচআরসি শিপিং, এইচআরসি মিডিয়া, আরাকান এক্সপ্রেস লিমিটেডসহ মোট ২০টি প্রতিষ্ঠানের মালিকানায় আছেন সাঈদ হোসেন চৌধুরী। তবে সামগ্রিকভাবে এ গ্রুপের ব্যবসায়িক কার্যক্রম অনেকটা কমে এসেছে।

সাঈদ হোসেন চৌধুরী আওয়ামী লীগ নেতা ঢাকার সংসদ সদস্য সাবের হোসেন চৌধুরীর ভাই। তাদের বাবা হেদায়েত হোসেন চৌধুরী ছিলেন বিশিষ্ট শিল্পোদ্যোক্তা। তিনি পূর্ব পাকিস্তান চেম্বারের প্রতিষ্ঠাতা ও চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অপসারণ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ