Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

কাবিখার গম নিয়ে রাতে যা ঘটেছে আদমদীঘিতে

আদমদীঘি (বগুড়া) উপজেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৭ জুলাই, ২০২০, ১২:০০ এএম

বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার বিভিন্ন প্রকল্পে কাজের বিনিময়ে খাদ্যকর্মসূচির (কাবিখা) বরাদ্দ ১৪৪ মেট্রিক টন গম আত্মসাতের চেষ্টা স্থানীয়রা ব্যর্থ করে দিয়েছে। 

সান্তাহার সাইলো থেকে গম রাতের অন্ধকারে সরানোর খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে ছুটে যায়। এরপরই প্রশাসন ট্রাকসহ গম নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে।
২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের উপজেলায় রাস্তা, মাঠ ও পুকুর সংস্কার প্রকল্পের জন্য ১২টি প্রকল্পের জন্য কাবিখার বিশেষ বরাদ্দ ১৪৩.৩৯ মেট্রিক টন গম জনপ্রতিনিধিদের জন্য বরাদ্দ দেয়া হয়। অর্থ বছরের মধ্যেই গম উত্তোলন করে কাজ করার কথা ছিল। কিন্তু অর্থ বছল শেষ হলেও গম সান্তাহার সাইলোতে পড়ে থাকে।
গত ৪ জুলাই রাতে এক সাথে ৭টি ট্রাকে করে সান্তাহার সাইলো থেকে গম সরিয়ে নেয়া শুরু হয়। স্থানীয়রা পিছু নিয়ে দেখতে পায় সান্তাহারের খাড়িরপুল এলাকার একটি মিলের সামনে গমভর্তি ট্রাক দাঁড় করানো অবস্থায় রয়েছে। দ্রুত এ খবর জানানো হয় আদমদীঘি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে।
ঘটনার রাতেই গম প্রশাসনের হেফাজতে নেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা একেএম আব্দুল্লাহ বিন রশিদ জানান, প্রকল্পের অর্ধেক কাজ ইতোমধ্যে শেষ হওয়ায় বরাদ্দকৃত গমের ৫০ ভাগ দেয়া হয়। অবশিষ্ট গম বিক্রি করে ব্যাংকে টাকা রাখা হবে। প্রকল্পের বাকি কাজ সম্পন্ন হলে অবশিষ্ট টাকা দেয়া হবে। অর্থবছর শেষ হওয়ায় গম উত্তোলন না করলে ফেরত যাবে। ফলে প্রকল্পের কাজ শেষ করা সম্ভব হবে না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাবিখার-গম
আরও পড়ুন