Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ০৯ আগস্ট ২০২০, ২৫ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৮ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বেশিরভাগ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হয়নি

ডিসি সম্মেলন-২০১৯

পঞ্চায়েত হাবিব | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

২০১৯ সালের জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনে নেয়া গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের বেশিরভাগই বাস্তবায়ন হয়নি। বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে। ২০১৯ সালে এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নাধীন বলা হলেও বেশিরভাগ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের বিষয়টি দুয়েকটি চিঠি চালাচালির মধ্যে সীমাবদ্ধ রয়েছে। অনেক সিদ্ধান্ত ডিসিদের সহযোগিতার অভাবেও বাস্তবায়ন হয়নি। অনেক সিদ্ধান্তের বিষয়ে কেবল প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। অনেক সিদ্ধান্ত পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর্যায়েই রয়েছে।

এছাড়া গত বছর নেয়া বিভিন্ন সিদ্ধান্ত ‘নিষ্পন্ন’ দেখানো হলেও অনেক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের কাজ চলমান রয়েছে। আবার কোনো কারণে দীর্ঘমেয়াদি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে এক বছরের বেশি সময় লাগতে পারে বলে অগ্রগতি প্রতিবেদনে প্রকাশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম বলেন, গত বছরের জেলা প্রশাসক সম্মেলনের সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন শুরু করার মাঝ পথে করোনা আঘাতে বন্ধ রয়েছে। তবে আগামী কয়েক মাসের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে তা দ্রæত বাস্তবায়ন করা হবে।

এদিকে দেশের পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত জেলা প্রশাসক সম্মেলন হচ্ছে না। ডিসিদের নিয়ে প্রতি বছর জুলাই মাসে ঢাকায় ডিসি সম্মেলনের আয়োজন করা হলেও এবার করোনা মহামারীর কারণে তা পিছিয়ে দেয়া হয়েছে। নতুন নিয়োগ পাওয়া ডিসিরা এবার সরাসরি প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী এবং প্রধান বিচারপতি, স্পিকার ও তিন বাহিনী প্রধানদের সঙ্গে বৈঠক করতে পারলেন না। মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব জেলা ও মাঠপ্রশাসন অনুবিভাগের আ. গাফ্ফার খান ইনকিলাবকে বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতিতে এখন ডিসি সম্মেলন হচ্ছে না। পরিস্থিতি ভালো হলে এই সম্মেলন আয়োজন করা হবে। অন্যবারের মত সব ডিসিকে ঢাকায় এনেই ভবিষ্যতে সম্মেলন করার চিন্তা রয়েছে। ভার্চুয়ালি এই সম্মেলন আয়োজন করার কোনো পরিকল্পনা এখনও নেই।

জানা গেছে, গত বছর ১৪-১৮ জুলাই মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের আয়োজনে জেলা প্রশাসক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। গত বছর ডিসি সম্মেলনে ৩৩৩টি প্রস্তাবের ওপর আলোচনা হয়। তার মধ্যে ৩৩০টি সুপারিশ গৃহীত হয়। যার ৫৩টি স্বল্পমেয়াদি, ১২৭টি মধ্যমেয়াদি এবং বাকি ১৫০টি দীর্ঘমেয়াদি সিদ্ধান্ত। বাস্তবায়নের সুবিধার জন্য সিদ্ধান্তগুলোকে তিন ধাপে ভাগ করা হয়। তবে স্বল্পমেয়াদি সিদ্ধান্ত ছাড়া বাকি কিছুই বাস্তবায়ন হয়নি। কারণ ডিসি সম্মেলন শেষে কাজ শুরু করতে পারে ৬ মাস। এর মধ্যে করোনার থাবায় সবকিছু এলোমেলো হয়। এ জন্য এবারের জেলা প্রশাসক সম্মেলন বাতিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী বছরের মধ্যে সকল সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন হবে বলে মনে করছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের কর্মকর্তারা।

দীর্ঘ মেয়াদি প্রকল্পগুলোর মধ্যে যেগুলো এখনো শুরু হয়নি সেগুলো হচ্ছে- তিস্তা নদী পলি দ্বারা ভরাটের ফলে নাব্যতা হ্রাস পাওয়ায় বর্ষা মৌসুমে সামান্য বন্যা দেখা দেয়। এজন্য রংপুরের তিস্তা নদী খননের কার্যক্রম গ্রহণ করতে হবে। সাতক্ষীরার আশাশুনি ও শ্যামনগর, বাগেরহাটের শরণখোলা ও রামপাল, খুলনার কয়রা, দাকোপ ও পাইকগাছায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের বাঁধ নির্মাণের জন্য দীর্ঘমেয়াদি সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। কিন্তু তা এখনো বাস্তবায়নে কার্যক্রম শুরু হয়নি।

বাগেরহাটের রামপাল উপজেলায় দেশের ৩য় বৃহত্তম খানজাহান আলী এয়ারপোর্ট নির্মাণের জন্য ইতোমধ্যে ৬২৬ একর জমি জেলা প্রশাসন কর্তৃক অধিগ্রহণ করে বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ে হস্তান্তর করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমানবন্দরের কাজ দ্রæত করার নির্দেশনা দিয়েছেন কিন্তু তা এখনো শুরু হয়নি। তাঁত শিল্পের প্রসারের জন্য বিশেষ ঋণ সুবিধাসহ তাঁত পণ্য বাজারজাত সহজীকরণ করার প্রস্তাব এখনো হয়নি। এছাড়া শতাধিক প্রকল্প করোনার কারণে এখনো বাস্তবায়ন হয়নি বলে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জেলা প্রশাসক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ