Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

ময়মনসিংহে দুই ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ বিক্ষোভ-ভাঙচুর

প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ময়মনসিংহ আঞ্চলিক অফিস : ময়মনসিংহে তালেব আলী ম্যাটসের (মেডিকেল অ্যাসিসট্যান্ট ট্রেনিং কোর্স) দু’ছাত্রী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ওই ম্যাটসের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলুল হকের অপসারণ দাবি করে ওই প্রতিষ্ঠানটি ভাঙচুর করেছে।
শনিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নগরীর আর কে মিশন রোড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
জানা যায়, ৫তলা ভবনের তালেব আলী ম্যাটসে একই সঙ্গে পাঠদান ও আবাসিক হোস্টেল পরিচালিত হয়ে আসছে। এখানে দ্বিতীয় তলার এক জায়গায় চেয়ারম্যানের স্ত্রী থাকেন, আরেক পাশে প্রিন্সিপাল কক্ষ। তৃতীয় তলায় একপাশে শিক্ষা কার্যক্রম আরেক পাশে নারী অফিস কর্মচারীরা, নিচতলায় ছাত্র হোস্টেল, চতুর্থ তলায় মেয়ে শিক্ষার্থীরা এবং পঞ্চম তলায় ক্লাস ও আরেক পাশে অফিস স্টাফরা থাকে। সব মিলিয়ে ৩৫ জন আবাসিক ছাত্র-ছাত্রী থাকেন।
ক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা জানান, এ ম্যাটসের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র পার্থ, সজীব ও শাহাদাত প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলুল হকের সহযোগিতায় প্রথম বর্ষের দু’ছাত্রীকে বিকেলে গণধর্ষণ করে। সন্ধ্যার পরপরই এ নিয়ে আন্দোলন শুরু হয়। চেয়ারম্যানের অপসারণ দাবিতে অফিস ভাঙচুর করা হয়।
স্থানীয় ১২নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হানিফ মো. ওয়ালিউল্লাহ জানান, কানাঘুষা চলছে কয়েক ছাত্র প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ফজলুল হকের সহযোগিতায় ওই দু’ছাত্রীকে গণধর্ষণ করেছে। এ ঘটনার প্রেক্ষিতেই শিক্ষার্থীরা ভাঙচুর করে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
এদিকে, এ ঘটনার পর রাত সাড়ে ৭টার দিকে প্রতিষ্ঠানটির আবাসিক সব ছাত্র-ছাত্রী হোস্টেল ছেড়ে চলে গেছে। এমনকি গণধর্ষণের শিকার দু’ছাত্রীরও কোনো হদিস নেই।
এ বিষয়ে নগরীর ৩নং পুলিশ ফাঁড়ির টাউন সাব ইন্সপেক্টর হাবিবুর রহমান জানান, দু’ছাত্রী শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে শুনেছি। তবে তাদের পাওয়া যাচ্ছে না। সব শিক্ষার্থী হোস্টেল ত্যাগ করেছেন। অভিযুক্ত ৩ ছাত্র পার্থ, সজীব ও শাহাদাতকে খোঁজা হচ্ছে।
এ ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলুল হক জানান, ‘কোনো ছাত্রী ধর্ষিত হলে কেউ তো যাবে না। তারা বিচারের আশায় বসে থাকতো। এখানে ধর্ষণের কোনো কথা নেই। দীর্ঘদিন যাবৎ প্রতিষ্ঠান সুনাম নিয়ে চলছে। ময়মনসিংহের স্বনামধন্য চিকিৎসকরা এখানে ক্লাস করান। কেউ ঈর্ষান্বিত হয়ে ভাঙচুর ও প্রপাগান্ডা চালাচ্ছে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ময়মনসিংহে দুই ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ বিক্ষোভ-ভাঙচুর
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ