Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

খোঁজ চেয়ে জিডি -কল্যাণপুর অভিযানে সাব্বির নিহত হয়নি দাবি পিতার

প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : রাজধানীর কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর অভিযানে নিহত নয়জনের মধ্যে একজন বলে গুজব ছড়ানো সাব্বিরুল হক কণিকের খোঁজ চেয়ে সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন তার পিতা।
নিহত ওই জঙ্গি তার ছেলে নয় নিশ্চিত হয়েই এ জিডি করলেন আনোয়ারার বরুমছড়া ইউনিয়নের সাবেক আওয়ামী লীগ সভাপতি আজিজুল হক রাশেদ। এ বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ রয়েছেন সাব্বিরুল হক কণিক। শুক্রবার নগরীর বাকলিয়া থানায় এ জিডি করেন আজিজুল হক রাশেদ। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাকলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল মনসুর। ওসি জানান, নিখোঁজ সাব্বিরুল হক কণিকের সন্ধান চেয়ে থানায় জিডি করেছেন তার বাবা আজিজুল হক রাশেদ। জিডিতে তিনি চলতি বছরের ২১ ফেব্রুয়ারি বিকেলে আত্মীয়ের বিয়েতে যাবে বলে বাসা থেকে বের হয়ে কণিক আর ঘরে ফিরেনি বলে জানান। তিনি তার ছেলের সন্ধান চান। এ বিষয়ে আমরা তদন্ত করছি, খোঁজ-খবর নিচ্ছি কণিক কোথায় আছে।
গত ২১ ফেব্রুয়ারি থেকে নিখোঁজ থাকলেও সাব্বিরুল হক কণিকের খোঁজ চেয়ে এতদিন থানায় সাধারণ ডায়েরিও করেনি তার পরিবার। দীর্ঘদিন কোনো খোঁজ না থাকায় এবং আগ থেকে সন্তান বিপথগামী হয়েছে তা আঁচ করতে পারায় ক্ষুব্ধ বাবা-মা নিখোঁজ সংক্রান্ত জিডি করার প্রয়োজন মনে করেননি বলে আগে তার পরিবার ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছিলেন।
গত ২৬ জুলাই সকালে কল্যাণপুরে জঙ্গি আস্তানায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানে নিহত নয়জনের মধ্যে একজন এই সাব্বির বলে বিভিন্ন জায়গায় খবর ছড়িয়ে পড়ে। এর রেশ ধরে কণিকের পিতা আজিজুল হককে ডেকে পাঠান জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা। পরে তাকে নিহত জঙ্গি সাব্বিরের ছবি দেখানো হয়। এ সময় ছবি দেখে তার ছেলে কিনা তা স্পষ্ট হতে পারেননি আজিজুল হক। এরপর তিনি মরদেহ শনাক্ত করতে ঢাকায় যান। এর আগে তিনি পুলিশ সুপারকে বলে যান নিহত সাব্বির যদি তার ছেলে হয়েই থাকে, তাহলে তিনি সাব্বিরুলের মরদেহ নেবেন না। শনাক্ত করে সোজা চট্টগ্রামে চলে আসবেন। কিন্তু মরদেহ দেখে নিশ্চিত হন এই সাব্বির তার ছেলে নয়। অবশেষে তিনি ছেলের খোঁজে জিডি করলেন।



 

Show all comments
  • Jahangir ৩১ জুলাই, ২০১৬, ১:৪৯ পিএম says : 0
    bisoyti clear howa uchit
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন