Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০, ২৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ২২ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

এমন চুরি নির্ভেজাল আনন্দের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০২০, ১২:০৫ এএম

ফ্রিজের ভেতরে আছে মুখরোচক খাবার। তবে সেই খাবারে বড়দের না বলে হাত দেওয়ার জো নেই। কিন্তু মন কী মানতে চায়? তাই তো বাধ্য হয়ে সকলের চোখের আড়ালে চুপিসারে ফ্রিজের সামনে আসে শিশুটি। মুখরোচক খাবার হাতেও পেয়ে যায়।
কিন্তু শেষরক্ষা হল না। শিশুটি খাবার খেয়ে তৃপ্তির আগেই হাতেনাতে ধরা পড়ে যায়। খাবার ‘চোর’ ধরা খেল দাদীর হাতে। তাতে কী সে সহজে ধরা দেওয়ার পাত্রী নয়। দাদীর বকাঝকার হাত থেকে বাঁচতে শিশুর অভিনয় মন কেড়েছে নেটিজেনদের।
চুরি করা যে অনুচিত সে কথা শিশুটি জানত। আর ধরা পড়লে যে বকাঝকার ভয় রয়েছে, তাও তার অজানা নয়। তাই তো ধরা পড়েও অপরাধ কবুল করার ঝুঁকি নিতে চায়নি সে। পরিবর্তে শুরু করে অভিনয়।

ফ্রিজের গা ঘেঁষে চোখ বন্ধ করে দাঁড়িয়ে থাকে। যেন ঠিক ঘুমিয়েই পড়েছে। দাদীর অবশ্য নাতনীর অভিনয় ধরতে বেশিক্ষণ সময় লাগেনি। ভিডিওতে শোনা গেছে, বারবারই তাকে খাবার রেখে দেওয়ার কথাই বলছেন দাদী। তবে তা সত্তে¡ও কিছুক্ষণ ঘুমের অভিনয় চালিয়ে যায় একরত্তি শিশু। যদিও শেষ পর্যন্ত হেসে ফেলে শিশুটি। ব্যস! ছলনার পর্দা ফাঁস।

মাত্র ১৮ সেকেন্ডের এই ভিডিওটি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হয়। ভিডিও ভাইরাল হতে বিশেষ সময় নেয়নি। শিশুর কীর্তি নেটিজেনদের মন ছুঁয়েছে। জটিল এই পৃথিবীতে শিশুরা যে সত্যিই অভিনয়ে বড়ই কাঁচা, তা প্রমাণিত হল বলেই মন্তব্য করেছেন কেউ কেউ।
আবার নেটিজেনদের একাংশ বলছেন, ‘না বলেই নয় মুখরোচক খাবার ফ্রিজ থেকে বের করেছে। তাতে কীই বা যায় আসে। বকাঝকা করে ওদের শৈশব না নষ্ট করাই ভাল।’ শেষ পর্যন্ত শিশু যদিও মুখরোচক খাবারের ভাগ পেয়েছে কিনা তা জানা নেই। তবে শিশুর কীর্তি যে নেটিজেনদের নির্ভেজাল আনন্দ দিয়েছে, সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। সূত্র : সংবাদ প্রতিদিন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ