Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

এমপি পাপুলকাণ্ডে এবার কুয়েতের মেজর জেনারেল গ্রেপ্তার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০২০, ১২:১১ পিএম

বাংলাদেশি এমপি শহিদ ইসলাম পাপুলের সঙ্গে আর্থিক লেনদেনের পাশাপাশি ঘুষ নেওয়ার অভিযোগে কুয়েতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যাসিসট্যান্ট আন্ডার সেক্রেটারি মেজর জেনারেল শেখ মাজেন আল-জারাহকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় গণমাধ্যম আল কাবাস-কে উদ্ধৃত করে গালফ নিউজ এ খবর নিশ্চিত করেছে।
কুয়েতের আরবি দৈনিক আল-কাবাস জানিয়েছে, শুক্রবার দেশটির পাবলিক প্রসিকিউশন শেখ মাজানকে গ্রেপ্তার করে আদালতে হাজির করার আদেশ দিয়েছেন। তার বিরুদ্ধে পাপুলের কাছ থেকে ঘুষ নেয়ার মাধ্যমে ব্যবসায়িক সুবিধা দেয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে।
পাপুল ২৩ হাজারের বেশি কর্মীর এন্ট্রি ভিসার অনুমোদনের জন্য যাদের ঘুষ দেওয়ার কথা রিমান্ডে বলেছিলেন, তাদের মধ্যে মাজেন আল-জারাহ একজন। ওই অভিযোগ আসার পর জুনের শেষ দিকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অ্যাসিসট্যান্ট আন্ডার সেক্রেটারির পদে থাকা মেজর জেনারেল মাজেন আল-জারাহকে বরখাস্তের আদেশ দেন কুয়েতের উপ-প্রধানমন্ত্রী আনাস আল-সালেহ।
এরপর ওই জেনারেলের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়। তদন্তে পাপুলের কাছ থেকে অবৈধভাবে অর্থ নেয়ার অভিযোগের সত্যতা মেলায় গত বৃহস্পতিবার এই সেনা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে কুয়েতের পাবলিক প্রসিকিউশন। ওই পরোয়ানার ভিত্তিতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হলো।
কিছুদিন আগেই গ্রেপ্তার পাপুলকে কুয়েতের কেন্দ্রীয় কারাগারে রাখা হয়েছে। এরই মধ্যে তাকে বেশ কয়েকবার জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়েছে। কুয়েতে মানবপাচার, হাজার কোটি টাকা অবৈধভাবে উপার্জন ছাড়াও বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে শহিদ ইসলাম পাপুলকে কুয়েতে গ্রেপ্তার করা হয়।
এই মামলায় সঙ্গে জড়িত সবার জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে পাবলিক প্রসিকিউশন পাপুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।
গত সপ্তাহে, কুয়েতের আইনসভা কমিটি এই মামলায় আটক সেদেশের দুই এমপি সালাহ খোরশিদ এবং সাদাউন হামদকে মুক্তির বিষয়ে ইতিবাচক সিদ্ধান্ত নেয়।
আল কাবাস জানায়, অন্তত ২০ হাজার বাংলাদেশি শ্রমিককে কুয়েতে আনতে পাপুল ৫০০ কোটি কুয়েতি দিনার নিয়েছেন। মানব পাচার, অর্থ পাচার ও ঘুষের অভিযোগে গত ৮ জুন পাপুলকে গ্রেপ্তার করা হয়।
কুয়েতের আইন অনুযায়ী, দেশটিতে কর্মরত বিদেশিদের বৈধ ওয়ার্ক পারমিট থাকতে হয়। সেটা তাদের নিয়োগকর্তা দিয়ে থাকেন।
কোভিড-১৯ মহামারীর শুরু থেকেই কুয়েতে অবৈধ পারমিট বাণিজ্য আলোচনায় আসে। কুয়েতে প্রায় ৯০ হাজার নন-পারমিট বিদেশি রয়েছে। যারা অনেক টাকার বিনিময়ে কুয়েতে আসেন।
শহিদ ইসলাম পাপুল মারাফী কুয়েতিয়া গ্রুপ অব কোম্পানিজ কুয়েত, ওমান ও জর্ডানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা। তার এই প্রতিষ্ঠানটি জনশক্তি রপ্তানিতে যুক্ত। এছাড়া তিনি বাংলাদেশে কয়েকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শীর্ষ পদে আছেন। বিগত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেয়ে লক্ষ্মীপুর-২ আসন থেকে স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচন করে জয়লাভ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ