Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৬ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

শেখ হাসিনার সততা সর্বজন বিদিত: ওবায়দুল কাদের

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১২ জুলাই, ২০২০, ২:২৬ পিএম

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি মহাসচিব বরাবরের মতো অভিযোগ করেছেন জনগণের জীবন জীবিকার ওপর সরকারের নাকি কোনো দায়দায়িত্ব নেই। আমি প্রশ্ন রাখতে চাই- জীবন ও জীবিকার চাকা সচল রাখতে শেখ হাসিনা সরকার যখন নানামুখী সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তখন আপনারা সমালোচনা করেছিলেন কেন? লকডাউনের জন্য চাপ তৈরি করে এখন তিনি জনগণের জীবিকার কথা বলছেন। বিএনপির সুবিধাবাদী রাজনৈতিক চরিত্র এবং ডাবল স্ট্যান্ডার্ড ইতোমধ্যে জনগণের কাছে পরিষ্কার হয়ে গেছে।

আজ রোববার জাতীয় সংসদ ভবন এলাকায় অবস্থিত সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রীর সরকারি বাসভবন থেকে দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় তিনি এ কথা বলেন। কাদের বলেন, সরকারের অবহেলা আর অজ্ঞতার জন্য নাকি পরিস্থিতি এমন হয়েছে। আমি জানতে চাই করোনা মহামারিতে বিশ্বের কোন দেশ বিদ্যমান সুবিধা দিয়ে সফলতা পেয়েছে? কোন দেশ হিমশিম খাইনি? সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে জনগণকে সাথে নিয়ে সংকট মোকাবেলার। আপনারা তো বলেছিলেন রাস্তায় রাস্তায় মানুষ মরে পড়ে থাকবে। সেটি এখনো হয়নি বলে কি আপনাদের গাত্রদাহ? সরকার সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও বিশেষজ্ঞদের পরামর্শের ভিত্তিতে কাজ করছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আপনারা বিষোদগার ছাড়া এ সংকটে কী করেছেন? সরকারকে সহযোগিতা দিয়েছেন জনকল্যাণে? যাদের সময় দেশ দুর্নীতিতে অতলে ছিল, দুর্নীতিবাজদের ছিল অভয়ারণ্য, যারা নিজেদের গঠনতন্ত্র থেকে ৭-ধারা বিভক্ত করে দুর্নীতিবাজদের নেতৃত্বে এনেছে। আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি দিয়েছে। ক্ষমতায় থাকতে দুর্নীতির বিচার করেনি- তাদের মুখে দুর্নীতির কথা বলা ভূতের মুখে রাম নাম।

কাদের বলেন, শেখ হাসিনার সততা সর্বজন বিদিত। তিনি পেরেছেন নিজ উদ্যোগে দুর্নীতিবিরোধী অভিযান চালাতে। শুদ্ধি অভিযান এগিয়ে নিতে। দলীয় পরিচয়ের ঊর্ধ্বে উঠে অনিয়মের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে। বিএনপির দুর্নীতি লালন, সৃজন, সংক্রমণ ও বিকাশ ছাড়া আর কী করেছে? জনগণের কাছে আজ সবই দিবালোকের মতো পরিষ্কার।



 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ১২ জুলাই, ২০২০, ৮:৫৭ পিএম says : 0
    আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে নিয়ে যা বলেছেন সবই সত্য। বাংলাদেশে বিএনপি এখন উচ্ছিষ্ট একটি দল, এই দলে নতুন করে কেহই যোগ দিচ্ছেননা। দেখা যায় ব্যাবসায়িরা টাকা দিয়ে বিএনপি দলের বড় বড় পদে বসছেন। আবার এনারাই প্রচুর টাকাদিয়ে নির্বাচনের টিকিট কিনে নির্বাচন করার জন্যে দলে আসছেন। এছাড়া কর্মী হিসাবে একজনও নতুন করে বিএনপিতে যোগ দিচ্ছেনা বরং পুরাতনেরা ক্রমান্বয়ে দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। এই জন্যেই এই দলের তেমন কোন প্রতিনিধিত্ব দেখা যায়না। নিন্দুকেরা বলছেন, বিএনপি দল যতদিন জিয়া পরিবারকে দলের মালিক হিসাবে মানবে ততদিন দলের কোন উন্নতী হবেনা বরং দলটি ক্রমান্বয়ে হারিয়ে যাবে। খালেদা জিয়া কারাগারে যাবার পর তাঁর পুত্রবধূ ডাক্তার সাহেবাকে দলের নেতৃত্বে আনার চেষ্টা হয়েছিল এবং সেটাই ছিল সঠিক সিদ্ধান্ত। কিন্তু জমিদারের পুত্র দুর্নীতিবাজ সন্ত্রাসী হবার পরও সংবিধান পরিবর্তন করে দলের প্রধান সেজে বসে আছেন। এই অবস্থায় দলের যোগ্য নেতারা এটা হজম করতে পারছেন না আবার দলও ছেড়ে যেতে পারছেননা। এটাই হচ্ছে বিএনপির চিত্র। সেদিক থেকে চিন্তা করলে বিএনপি দলের কর্মকাণ্ড শূন্যের কোঠায় আবস্থান করছে। দেশের লোক চায় একটি শক্তিশালী বিরোধী দল কিন্তু আজ দেশে বিরোধী দল বলে কোন দলই নেই। এখন কেবল আল্লাহ্‌ই পারেন দেশের সমস্যা সমাধান করতে। আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Faridul ১২ জুলাই, ২০২০, ৪:৫৫ পিএম says : 0
    শেখ হাসিনার সততা সর্বজন বিদিত-OK এগুলোতো কলকাতার ভাষা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ওবায়দুল কাদের


আরও
আরও পড়ুন