Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

পূর্বাচল ৩শ’ ফুটে দুর্ভোগ বাড়ছেই

কর্দমাক্ত ওয়ানওয়ে এবং পুলিশের অবহেলা

খলিল শিকদার, রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) থেকে | প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০২০, ১২:৩২ এএম

ঢাকা ও রূপগঞ্জের পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ৩শ’ ফুট রাস্তায় নিত্য যানজটে দুর্ভোগ বাড়ছেই। করোনা পরিস্থিতিতে শহরমুখী ও শহরের বাইরে যাওয়ার গুরুত্বপূর্ণ দেশের সুপ্রশস্ত এ রাস্তাটি এখন ওয়ানওয়েতে রূপ নিয়েছে। স্থানে স্থানে ওভারপাস ও আন্ডারপাস নির্মাণের কারণে ভোগান্তির জন্য পুলিশের অবহেলাকেও দায়ী করেছেন ভুক্তভোগীরা। ডিএমপি বলছে এটা তাদের দায়িত্বের মধ্যে পড়েনি। আবার নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ বলছে এটা ডিএমপির দায়িত্ব। পুলিশের এই ঠেলাঠেলিতে যাত্রীদের ভোগান্তি দিন দিন বেড়েই চলেছে।
ভুক্তভোগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, রাজধানীর কুড়িল থেকে কাঞ্চন ব্রিজ পর্যন্ত এ রাস্তাটি সুপ্রশস্ত হওয়ায় সাধারণত যানজট হওয়ার কথা নয়। কিন্তু অব্যবস্থাপনার কারণে প্রতিদিনই দুপুরের পর গাড়ির চাপ বাড়লে ভয়াবহ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। রাজধানী থেকে নরসিংদী, সিলেট, নারায়ণগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলায় যাতায়াতকারী গাড়িগুলো যানজটে আটকে থাকছে। এমনকি রোগীবাহী অ্যাম্বুলেন্স ও জরুরি সেবাদান কাজে নিয়োজিত যানবাহন আটকে থাকছে দীর্ঘক্ষণ। এ যানজট স্থায়ী হচ্ছে রাত পর্যন্ত। ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটে আটকে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন যাত্রীরা।

মধূখালী এলাকার বাসিন্দা রাসেল মোল্লা বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ পাইলিং এর কাজ শুরু করেছে ৩শ’ ফুট রাস্তায়। এতে রাস্তাটি ৪ লেনের হলেও একপাশ বন্ধ রাখা হয়েছে। বেশ কিছুদিন যাবৎ এ অবস্থা চলছে। প্রতিদিন ভোগান্তির শিকার হচ্ছে এ পথে যাতায়াতকারী লোকজন। তিনি বলেন, সচল রাস্তাটির বিকল্প রাস্তায় প্রবেশের জন্য পর্যাপ্ত ইট সুরকী পাথর ব্যবহার করা হয়নি। ফলে বিকল্প রাস্তায় নামার সময় গাড়ি আটকে যাচ্ছে। এতে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

গোয়ালাপাড়া এলাকার বাসিন্দা মাছুম বিল্লাহ, ব্যবসায়ীক কাজে রাজধানীর খিলক্ষেতে নিয়মিত যাতায়াত করতে হয়। বিআরটিসি বাস সীমিত আকারে চলাচল করায় একদিকে দেরি হয় আসতে। গত ১৫ দিন ধরে প্রতিদিন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে। এতে খুব সমস্যায় পড়েছি। পূর্বাচলে দায়িত্বরত রূপগঞ্জ থানা পুলিশের উপ পরিদর্শক ফরিদউদ্দিন যানজটের কারণ হিসেবে ৩শ’ ফুট রাস্তায় আন্ডারপাস ও ওভারপাস নির্মাণ কাজকে দায়ী করেন।
তবে কাঞ্চন সেতু এলাকায় দায়িত্বরত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টিআই) রফিক মাহমুদ বলেন, পূর্বাচল এলাকায় যানজট নিয়ন্ত্রণে সাধারণত ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের দায়িত্ব। তারপরেও যানজটের কথা শুনে আমরা সেখানে গিয়ে যানজট নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করেছি। মুলত ওভারপাস নির্মাণের পাইলিং কাজ ও বৃষ্টির কারণে কাদাযুক্ত রাস্তা এবং ওয়ানওয়ে রাখার ফলে যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। এ বিষয়ে ডিএমপি ট্রাফিক উত্তর বিভাগের এক কর্মকর্তা বলেন, যানজটের সমস্যা হচ্ছে এটা আমরা জানতে পেরেছি। শিগগিরই এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়া হবে যাতে গাড়িগুলোকে শৃঙ্খলভাবে পারাপার করা যায়।



 

Show all comments
  • Mirza Tohura Jalil ১৩ জুলাই, ২০২০, ১:১২ এএম says : 0
    মহান আল্লাহ পাক সবাইকে হেফাজত করুক
    Total Reply(0) Reply
  • কে এম শাকীর ১৩ জুলাই, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    গুরুত্বপূর্ণ একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করায় ইনকিলাবকে ধন্যবাদ। আশা করি কর্তৃপক্ষ একটা ব্যবস্থা্ নেবে।
    Total Reply(0) Reply
  • জাবের পিনটু ১৩ জুলাই, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    সব পরিকল্পনা ও সমন্বয়ের অভাব। যত ভোগান্তি সাধারণ মানুষের।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পূর্বাচল

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ