Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ২৪ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

বাজারে ঝুলন্ত অবস্থায় বিজেপি বিধায়কের লাশ উদ্ধার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০২০, ১২:২৭ পিএম

ভারতের পশ্চিমবঙ্গে একটি বাজার থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তাকে খুন করা হয়েছে বলে দাবি করেছে বিজেপি। গতকাল সোমবার সকালে উত্তর দিনাজপুরের একটি বাজারের চায়ের দোকান থেকে ওই বিজেপি বিধায়কের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। খবর এনডিটিভির

উত্তর দিনাজপুর জেলার এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেছেন, সকালে হেমতাবাদ এলাকায় একটি দোকানের কাছে দেবেন্দ্রনাথের দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে। আমরা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছি।

এদিকে এই মৃত্যুতে পশ্চিমবঙ্গ বিজেপির পক্ষ থেকে টুইট করে বলা হয়েছে, ‘উত্তর দিনাজপুরের সংরক্ষিত আসন হেমতাবাদ থেকে বিজেপি বিধায়ক দেবেন্দ্রনাথ রায়ের মরদেহ ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে। স্থানীয়দের দাব, তাঁকে প্রথমে খুন করা হয় এবং পরে তাকে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।
বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা বলেন, “এই খুনের পেছনে তৃণমূল রয়েছে। ওরাই খুন করে দেহকে এমন ভাবে ঝুলিয়ে দিয়েছে যাতে মনে হয় এটা আত্মহত্যা। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আমার অনুরোধ, দয়া করে সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দিন।”
রায়গঞ্জের বিন্দোল পঞ্চায়েতের বালিয়া গ্রামে তাঁর আদি বাড়ি। সেখান থেকে দেড় কিলোমিটার দূরে রাস্তার ধারে অবস্থিত ওই চায়ের দোকানটি। পরিবারের দাবি, খুন করা হয়েছে বিধায়ককে।

রবিবার সন্ধ্যায় আদি বাড়িতে ফিরেছিলেন তিনি। পরিবারের দাবি, রাত একটা নাগাদ বেশ কয়েকজন যুবক তাঁকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তার পর রাতভর তাঁর আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।
সোমবার সকালে খোঁজাখুঁজি শুরু হয় ওই বিধায়কের। তখনই ওই চায়ের দোকানটি থেকে ঝুলন্ত অবস্থায় তাঁর দেহ উদ্ধার হয়। চায়ের দোকানটি বন্ধ ছিল।
পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠিয়েছে। যদিও খুন না আত্মহত্যা, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হতে পারছে না পুলিশ। আপাতত ময়নাতদন্ত রিপোর্ট হাতে আসার অপেক্ষা।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে হেমতাবাদ কেন্দ্র থেকে সিপিএমের টিকিটে জয়লাভ করেন দেবেন্দ্রনাথ রায়। বিন্দোল গ্রাম পঞ্চায়েতে পর পর তিন বার সিপিএমের প্রধান ছিলেন তিনি। ২০১৯-এর লোকসভা ভোটের পর দিল্লিতে গিয়ে বিজেপিতে যোগদান করেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন