Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আগস্ট ২০২০, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৭, ২০ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

চীনে বন্যার কবলে প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ মানুষ, ১৪১ জনের প্রাণহানির শঙ্কা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০২০, ১২:৩৭ পিএম

চীনে ভয়াবহ বন্যায় ইতোমধ্যে ১৪০ জনের বেশি লোকের প্রাণহানি ঘটেছে বা নিখোঁজ হয়েছেন। এছাড়া দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে এই বন্যার কবলে পড়েছেন প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ মানুষ। রবিবার দেশটির পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

দেশটির ফ্লাড কন্ট্রোল অ্যান্ড ড্রাউট রিলিফ হেডকোয়ার্টারের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ২৭ রাজ্যে বন্যায় প্রায় ৩ কোটি ৮০ লাখ কবলে পড়েছেন। এদের মধ্যের জিয়াংজি, আনহুই, হুবেই এবং হুনান প্রদেশও রয়েছে। এতে ১৪১ জন মারা গেছে বা নিখোঁজ রয়েছে এবং ২০ লাখ ২৫ হাজার লোককে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
ইয়াংজি নদী সংলগ্ন এলাকাগুলোতে ভারী বর্ষণ চলতে থাকায় রোববার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মাত্রার বন্যা সতর্কতা জারি করেছে দেশটি। খবর রয়টার্সের
চীনের রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সিনহুয়া জানিয়েছে, এ বছর সেদেশে বন্যাজনিত কারণে মারা যাওয়া বা নিখোঁজ হওয়া মানুষের সংখ্যা ১৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। বন্যায় ৩৫ দশমিক ৩ লাখ হেক্টর কৃষিজমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। পানিতে ভেসে গেছে ২৮ হাজার ঘরবাড়ি এবং ক্ষতির পরিমাণ আনুমানিক ১১ দশমিক ৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।
দেশটির পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, জুলাইয়ের প্রথমদিক থেকে ৪৩৩টি নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছে, এরমধ্যে ৩৩টি নদীর পানি স্মরণকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি উচ্চতা অতিক্রম করেছে।

পরিস্থিতি সবচেয়ে নাজুক ইয়াংসির নদীর অববাহিকায়। চীনের সবচেয়ে বড় মিঠাপানির হ্রদ পয়াংয়ের উপচেপড়া পানি ইয়াংসি নদীর সঙ্গে যুক্ত হয়ে বহু শহর ও গ্রাম ডুবিয়ে দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছে কর্তৃপক্ষ।

ইয়াংসির তীরবর্তী অঞ্চলগুলোর মধ্যে পূর্বাঞ্চলীয় জিয়াংসু ও জিয়াংশি প্রদেশ সবচেয়ে বেশি বন্যাকবলিত হয়েছে।
চীনে বন্যা নিয়ন্ত্রণের জন্য ৪ স্তরের জরুরি সতর্কতা ব্যবস্থা আছে। এর মধ্যে প্রথম স্তর সবচেয়ে মারাত্মক বন্যা পরিস্থিতি বোঝায়।
ব্যাপক বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস জানিয়ে শনিবার চীনের ন্যাশনাল অবজার্ভেটরি দক্ষিণাঞ্চলীয় হুনান, মধ্যাঞ্চলীয় হুবেই, দক্ষিণপশ্চিমের চংকিং এবং সিচুয়ান প্রদেশে নতুন করে ‘ইয়েলো অ্যালার্ট’ জারি করেছে। বন্যাকবলিতদের উদ্ধারে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী।
দেশটির প্রসিডেন্ট শি জিনপিং নাগরিকদের নিরাপত্তার জন্য সকল ধরণের পূর্ব সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ