Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ২১ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

মানবিক কারণেই স্থায়ী নিয়োগ চান বগুড়ার স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টরা

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৩ জুলাই, ২০২০, ৩:২৪ পিএম

স্থায়ী নিয়োগের আশায় দীর্ঘদিন ধরে তারা স্বেচ্ছাসেবী হিবেসে কাজ করছেন। বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের প্যাথলজি বিভাগের মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (র‌্যাপিড স্যাম্পল কালেকশন টিম) তাদের পরিচয়। তারা ২০১৮ সালের ২০ জানুয়ারি থেকে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ওই বিভাগে অদ্যবধি কর্মরত আছেন। হাসপাতালে ভর্তি থাকা রোগীদের বেডে প্যাথলজীক্যাল পরীক্ষার নমুনা সংগ্রহ করেন এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে রির্পোট তৈরি করে থাকেন।
সাম্প্রতি রাষ্ট্রপতির নির্বাহী আদেশে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অধীনে প্রথম ধাপে ১৪৫ জন স্বেচ্ছাসেবী মেডিকেল টেকনোলজিস্টদের স্থায়ী নিয়োগ প্রদান করা হয়। এই স্থায়ী নিয়োগের তালিকায় বগুড়ার ২০জনের নাম থাকার কথা থাকলেও নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষে তাদের নাম ছিলো না। ফলে অনেকটাই হতাশ হয়ে পড়েন এসব স্বেচ্ছাসেবী টেকনোলজিস্টরা।
তারা স্থায়ী নিয়োগের দাবীর বিষয়টি লিখিত আকারে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক, প্রধানমন্ত্রী, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্যঅধিদপ্তরের মহাপরিচালক, বগুড়া জেলা প্রশাসক ও বগুড়ার ডেপুপি সিভিল সার্জনকে অবহিত করেন।
শজিমেকে কর্মরত সিনিয়র টেকনোলজিস্ট আরমান হোসেন বলেন, আমাদের সাবেক পরিচালক ব্রিঃ জেঃ ডাঃ মোঃ গোলাম রসুল এবং স্বাস্থ্য সচিব মহোদ্বয় হাসপাতাল পরিদর্শনে এসে আমাদের আশ্বাস দিয়েছিলেন, স্থায়ী নিয়োগের সুযোগ আসলে আমাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে। কিন্তু সেটির বাস্তবায়ন হয়নি। উল্টো তালিকা থেকে আমাদের নাম বাদ পড়েছে। তিনি আরো বলেন, বর্তমান করোনা ক্রান্তিকালে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কোভিট ১৯ রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করে তা ল্যাবে পৌঁছে দিচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী নির্দেশে দ্বিতীয় ধাপে আরও কিছু স্বেচ্ছাসেবী নিয়োগ দেয়া হবে এটা জানতে পেরে এই তালিকায় তাদের নাম অন্তর্ভূক্তির জন্য তারা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ