Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৬ আগস্ট ২০২০, ০১ ভাদ্র ১৪২৭, ২৫ যিলহজ ১৪৪১ হিজরী

৭ আগস্ট জাতীয় ফুটবল দলের ক্যাম্প শুরু

করোনা পরীক্ষা করে আসতে হবে খেলোয়াড়দের

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৬ জুলাই, ২০২০, ৮:০৬ পিএম

কাতার বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের বাকি চার ম্যাচকে সামনে রেখে আগামী ৭ আগস্ট শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দলের অনুশীলন ক্যাম্প। গাজীপুরের সারা রিসোর্টে শুরু হবে এই ক্যাম্প। তবে ক্যাম্পে যোগ দেয়ার আগে খেলোয়াড়দের নিজেদের উদ্যোগেই প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরীক্ষা করাতে হবে। এরপর ক্যাম্পে যোগ দিলে আবারো হবে তাদের করোনা পরীক্ষা। বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের (বাফুফে) জাতীয় দল কমিটির ভার্চ্যুয়াল সভায় এমন সিদ্ধান্তই নেয়া হয়।

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাই পর্বে আগামী ৮ অক্টোবর ‘ই’ গ্রুপে নিজেদের পঞ্চম ম্যাচে আফগানিস্তানকে মোকাবেলা বাংলাদেশ। ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে। এরপর ১৩ অক্টোবর দোহায় কাতারের বিপক্ষে খেলার পর ১২ নভেম্বর সিলেটে ভারত ও ১৭ নভেম্বর একই ভেন্যুতে ওমানের মুখোমুখি হবে জামাল ভূঁইয়া বাহিনী। আপাতত অক্টোবরের দুই ম্যাচ নিয়েই প্রস্তুতি ক্যাম্প করতে যাচ্ছে লাল-সবুজরা। ৩০ জন খেলোয়াড়কে নিয়ে গাজীপুরের সারা রিসোর্টে শুরু হবে ক্যাম্প। অনুশীলন চলবে ২১ আগস্ট পর্যন্ত।

করোনাকালে লম্বা সময় মাঠের বাইরে ছিলেন ফুটবলাররা। তাই দলের প্রস্তুতি শুরুর আগে সতর্ক বাফুফে। খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যগত অবস্থা নিশ্চিত হয়েই তারা ক্যাম্প শুরু করতে চায়। ভার্চ্যুয়াল সভা শেষে জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহ-সভাপতি কাজী নাবিল আহমেদ বলেন, ‘জাতীয় দলের ক্যাম্প গাজীপুরের সারা রিসোর্টে হবে ৭ আগস্ট থেকে। ওইদিনই খেলোয়াড়রা ক্যাম্পে রিপোর্ট করবেন। ক্যাম্পে যোগ দেয়ার আগে সব খেলোয়াড়কে নিজেদের উদ্যোগে করোনাভাইরাস পরীক্ষা করে আসতে হবে। ক্যাম্পে যোগ দেয়ার পর ফের বাফুফের মেডিক্যাল কমিটির তত্ত্বাবধানে তাদের করোনা পরীক্ষা করানো হবে।’

ক্যাম্পে খেলোয়াড়দের ৪ থেকে ৫ জনের গ্রুপে বিভক্ত করে অনুশীলন করানো হবে। এভাবে পুরো দল ১৪ দিন কোচের নির্দেশনা অনুযায়ী গ্রুপভিত্তিক অনুশীলন করবেন। এ প্রসঙ্গে কাজী নাবিল বলেন, ‘খেলোয়াড়দের ছোট ছোট গ্রুপে ভাগ করে দেওয়া হবে। আগামী দুই সপ্তাহ ৪ থেকে ৫ জন করে থাকবে প্রতি গ্রুপে। ১৪ দিন শেষে যখন দেখবো খেলোয়াড়দের স্বাস্থ্যের বিষয়ে কোনো ঝুঁকি নেই, তখন তারা সবাই একসঙ্গে অনুশীলন করতে পারবে।’

দলেরর বিদেশি কোচদেরও আইসোলোশনে রাখা হবে বলে জানান জাতীয় দল কমিটির চেয়ারম্যান। তার কথায়, ‘এরই মধ্যে বিদেশি কোচরা চলে আসবেন। তাদেরকেও কোভিড-১৯ পরীক্ষা করাতে হবে। প্রয়োজনে আইসোলোশনে থাকতে হবে। দেখা হবে তাদের কোনো স্বাস্থ্য ঝুঁকি আছে কিনা। ক্যাম্প ভেন্যু সারা রিসোর্টে যা কিছু প্রয়োজন তা বাফুফের পক্ষ থেকে দেয়া হচ্ছে।’ বাছাইয়ে মাঠে নামার আগে জামাল ভূঁইয়ারা কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবেন কিনা, তার সিদ্ধান্ত এখনো নেয়নি বাফুফে। পরিস্থিতি বিবেচনা করেই প্রস্তুতি ম্যাচের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানান কাজী নাবিল আহমেদ। ভার্চ্যুয়াল সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দল কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান ও বাফুফের সহ-সভাপতি তাবিথ আউয়াল এবং সাধারণ সম্পাদক মো. আবু নাইম সোহাগসহ জাতীয় দল কমিটির অন্যান্য কর্মকর্তারা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফুটবল


আরও
আরও পড়ুন