Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ১০ সফর ১৪৪২ হিজরী

করোনার টিকা তৈরির পদ্ধতি চুরির অভিযোগ রাশিয়ার বিরুদ্ধে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০২০, ২:৪০ পিএম

করোনাভাইরাসের টিকা নিয়ে বিশ্বব্যাপী যেসব প্রতিষ্ঠান কাজ করছে তাদেরকে রাশিয়ার দু’টি হ্যাকিং গ্রুপ টার্গেট করছে বলে অভিযোগ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ বৃটেন ও কানাডার নিরাপত্তা রক্ষাকারী কর্মকর্তারা। তারা অভিযোগ করেছেন, করোনা টিকা নিয়ে যেসব প্রতিষ্ঠান গবেষণা চালাচ্ছে তাদেরকে টার্গেট করছে রাশিয়ার সাইবার ‘এক্টর’রা। রাশিয়ার হ্যাকিং গ্রুপ ‘এপিটি২৯’ নামের এই গ্রুপটি করোনা ভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের বিস্তারিত তথ্য পাওয়ার জন্য চেষ্টা করছে। অনলাইন সিএনএন এ খবর দিয়েছে।
অভিযোগে বলা হয়েছে, পুতিন সরকারের গোয়েন্দা দপ্তরের মদতেই রাশিয়ার দু’টি হ্যাকিং গ্রুপ এই হামলা চালাচ্ছে। ভ্যাকসিন তৈরির গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থাগুলোর নথিপথ ঘাঁটাঘাঁটি করছে হ্যাকিং গ্রুপ এপিটি-২৯। ‘কোজি বিয়ার’ নামেও পরিচিত গ্রুপটি। তিন দেশের গোয়েন্দা দপ্তরই বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, গবেষণার কাজে বাধা দিতে নয়, বরং গবেষণা সংক্রান্ত তথ্য চুরি করতেই বারবার হামলা চালাচ্ছে হ্যাকাররা।
ব্রিটেনের জাতীয় সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার জানাচ্ছে, সত্যিই কোনও তথ্য চুরি হয়েছে কিনা, তা এখনও স্পষ্ট নয়। তবে মনে করা হচ্ছে, কোনও গবেষকের ব্যক্তিগত গোপন তথ্য চুরি যায়নি। ওয়াশিংটনই জানিয়েছে, সাইবার হামলার পেছনে রয়েছে ‘কোজি বিয়ার’ এবং ‘ফ্যান্সি বিয়ার’ নামে দু’টি হ্যাকিং গ্রুপ।
এতে বলা হয়, বৃটিশ ন্যাশনাল সাইবার সিকিউরিটি সেন্টার (এনসিএসসি)-এর একটি পরামর্শ প্রকাশিত হয়েছে। তাতে রাশিয়ার এই হ্যাকিং গ্রুপটির কর্মকান্ড সম্পর্কে সতর্ক করা হয়েছে। বলা হয়েছে, তারা যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেন ও কানাডায় করোনা ভাইরাসের টিকা নিয়ে গবেষণা করছে অথবা টিকা উৎপাদনের জন্য যারা কাজ করছে তাদেরকে টার্গেট করছে। পরামর্শ বিষয়ক একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এপিটি২৯-এর হিংসাত্মক কর্মকান্ড চলছেই। তারা সরকার, কূটনীতিক, থিংকট্যাংক, স্বাস্থ্যসেবা ও এনার্জি খাতকে টার্গেট করেছে মূল্যবান বুদ্ধিবৃত্তিক (ইন্টেলেকচুয়াল) সম্পদ চুরি করতে।
উল্লেখ্য, রাশিয়ার গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে যুক্ত দুটি হ্যাকিং গ্রুপের একটি হলো কোজি বিয়ার। ধারণা করা হয়, ২০১৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটির ইন্টারনাল সিস্টেম হ্যাক করেছিল এরাই। কিন্তু বৃহস্পতিবারই প্রথম করোনাভাইরাস ইস্যুতে সাইবার হামলার সঙ্গে তাদের জড়িত থাকার কথা ঘোষণা করা হলো।
ওদিকে করোনা ভাইরাস ইস্যুতে যেসব প্রতিষ্ঠান কাজ করছে তাদেরকে এরই মধ্যে সতর্ক করেছে যুক্তরাষ্ট্র, বৃটেন ও কানাডা। এর আগে এপ্রিলে সিএনএন মার্কিন সরকারের বিভিন্ন এজেন্সি ও মেডিকেল ইনস্টিটিউশনের বিরুদ্ধে সাইবার হামলার বিষয়ে রিপোর্ট করে। ওই সময় কর্মকর্তারা বলেছিলেন হাসপাতাল, গবেষণাগার, স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী এবং ওষুধ প্রস্তুতকারক কোম্পানিগুলো আক্রমণের মুখে রয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ