Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৭ আশ্বিন ১৪২৭, ০৪ সফর ১৪৪২ হিজরী

নলছিটিতে যুবকের লাশ উদ্ধার

ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৯ জুলাই, ২০২০, ১২:০১ এএম

ঝালকাঠির নলছিটিতে সেলায়মান হোসেন সোহাগ মোল্লা (২৭) নামে এক যুবকের লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। উপজেলার তেতুলবাড়িয়া গ্রামের বাড়ি থেকে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় সোহাগের লাশ উদ্ধার করা হয়। পরিবারের দাবি সোহাগকে শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে গত শুক্রবার সকালে ময়না তদন্তের জন্য ঝালকাঠি সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। সোলায়মান হোসেন সোহাগ মোল্লা তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের মোস্তফা মোল্লার ছেলে।
সোহাগের বাবা মোস্তফা মোল্লা বলেন, আমার ছেলের সাথে পরিবারের কারো কোন মনোমালিন্য ছিল না। অন্য কারণে তাকে কেউ হত্যা করে লাশ ঝুলিয়ে রাখতে পারে। সোহাগের চাচা আনোয়ার হোসেন জানান, সোহাগ আর তার ছোট ভাই শাকিল তাদের পুরান বাড়িতে বারান্দায় দু’টি খাটে আলাদা ঘুমাত। আর তাদের মা বাবা নতুন বাড়িতে থাকে। প্রতিদিনের মতো গত বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে দুই ভাই ঘুমাতে যায়। ঘুমানোর সময় ফোন পেয়ে শাকিল বাড়ির পাশে বাজারে যায়। যাওয়ার সময় সে দরজা বাইর থেকে ছিটকানি দিয়ে যায়। রাত সাড়ে ১১ টার দিকে শাকিল ফিরে এসে দেখে সামনের দরজা ভেতর থেকে আটকানো এবং পেছনের দরজা খোলা। ভেতরে গিয়ে দেখে তার বড় ভাই সোহাগের দেহ গলায় দড়ি লাগানো অবস্থায় আড়ার সাথে ঝুলছে। শাকিলের ডাক-চিৎকারে আশপাসের লোকজন ও বাবা-মা ছুটে এসে সোহাগের লাশ নামিয়ে ফেলে। রাতেই মোল্লারহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে যায়। তদন্ত কেন্দ্রের এসআই নূরে আলম বলেন, আমরা যাওয়া আগেই লাশ নামিয়ে ফেলা হয়। নিহতের বাবা মোস্তফা মোল্লার আবেদনের প্রেক্ষিতে অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।
নলছিটি থানার ওসি মো. শাখাওয়াত হোসেন বলেন, লাশ উদ্ধারের বিষয়ে অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে। কি কারণে সোহাগের মৃত্যু হয়েছে তার সঠিক কারণ ময়না তদন্তের পর জানা যাবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন