Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুলাই, ২০২০, ১২:০২ এএম

ভারতের কোলকাতার লেখকদের ‘বই’ যখন বাংলাদেশের বাজারে রমরমা বাণিজ্য; তখন বাংলা সাহিত্যাঙ্গণে লেখক হিসেবে আবির্ভাব ঘটে হুমায়ূন আহমেদের। তিনি বাংলাদেশের পাঠকদের হাতে নিজের লেখা ‘উপন্যাস’ তুলে দিয়ে বিদেশী লেখকদের কোনঠাসা করেন। বাংলাদেশের মানুষকে বইমুখি করেন। গতকাল বাংলা সাহিত্যের সেই বরপুত্র হুমায়ুন আহমেদের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে। দিনটি উপলক্ষ্যে সৃষ্টিশীল এই লেখকের নন্দনকানন নুহাশপল্লীতে কবর জিয়ারত করেন তার স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন, দুই পুত্র নিনিত ও নিষাদ। এ সময় হুমায়ূন আহমেদের বইয়ের প্রকাশক, শুভানুধ্যায়ী ও ভক্তরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় লেখকের রুহের মাগফিরাত কামনায় মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। 

করোনাভাইরাসের কারণে প্রতি বছরের মতো না হলেও এবার সীমিত আকারে পরিবার ও ভক্তরা দিনটিতে লেখককে স্মরণ করেন। হুমায়ূন আহমেদের জন্মস্থান নেত্রকোনায় সীমিত আকারে স্মরণসভা ও দেয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। লেখকের সবচেয়ে প্রিয় স্থান গাজীপুরের নুহাশপল্লীর লিচু তলায় প্রতিবার এই দিনে হুমায়ূনকে স্মরণ করতে তার পরিবার, ভক্ত, কবি, লেখক আর নাট্যজনেরা ফুল হাতে শ্রদ্ধা জানাতে ভিড় করেন। নন্দিত লেখকের প্রিয় চরিত্র হলুদ পাঞ্জাবিতে হিমু এবং নীল শাড়িতে রূপা সেজে আসেন ভক্ত ও পাঠকেরা। এবার করোনা ঝুঁকিতে স্বাস্থ্যবিধির বাধ্যবাধকতা থাকায় ভক্তরা নুহাশপল্লীতে না এলেও কিছু সংখ্যক অনুরাগী উপস্থিত হন। তারা লেখকের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার কথা জানান। কবর জিয়ারত শেষ মেহের আফরোজ শাওন হুমায়‚নের স্বপ্ন এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় পুনর্বক্ত করেন। তবে পারিবারিক সিদ্ধাহীনতার কারণে ক্যান্সার হাসপাতাল ও জাদুঘর নির্মাণ শুরু করতে না পারায় তিনি দুঃখ প্রকাশ করেন। অন্যপ্রকাশের প্রকাশক মাজহারুল ইসলাম বলেন, হুমায়ূন আহমেদ ৫০ ধরে বাঙালি পাঠক সমাজকে আনন্দ দিয়েছেন এবং বাংলা ভাষা যতদিন থাকবে ততদিন হুমায়ূন আহমেদ পঠিত হবে।
উল্লেখ্য, ১৯৪৮ সালের ১৩ নভেম্বর নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার কুতুবপুর গ্রামে জম্মগ্রহণ করেন নন্দিত কথাসাহিত্যিক হুমায়‚ন আহমেদ। মরণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে তিনি নিউইয়র্কের একটি হাসপাতালে ২০১২ সালে ১৯ জুলাই ইন্তেকাল করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মৃত্যুবার্ষিকী-পালিত
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ