Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২২ জানুয়ারি ২০২১, ০৮ মাঘ ১৪২৭, ০৮ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

যাত্রী ভোগান্তির অভিযোগ

চরভদ্রাসন ফেরিঘাট মানা হচ্ছে না সামাজিক দূরত্ব

ফরিদপুর জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৩ জুলাই, ২০২০, ১২:০৩ এএম

ফরিদপুর জেলার চরভদ্রাসন উপজেলার পদ্মানদীর দোহার এলাকার চরমইনুটঘাটে যাত্রী ভোগান্তির অভিযোগ ওঠেছে। এমনকি যাত্রী পারাপারে মানা হচ্ছে না কোনো সামাজিক দূরত্বও। ফরিদপুর তিন উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ ঢাকা যাওয়া আসার জন্য এই রুটটি ব্যবহার করে থাকেন।
এদিকে এই নৌ রুটে পারপারের জন্য মাধ্যম রয়েছে ট্রলার ও স্পিডবোট। এ ঘাটে যাত্রীরা ইজারাদারের কাছে জিম্মি হয়ে যাতায়াত করতে হয়। আবার তাদের হয়রানিরও শিকার হতে হয়। বাধ্য হয়ে ইজারাদার কর্তৃপক্ষের চাপিয়ে দেয়া সিদ্ধান্ত মেনে নিতে হয় যাত্রীদের।
সরেজমিন গিয়ে জানা যায়, এখানে পদ্মা পাড় হতে স্পিডবোটে সময় লাগে ১৮ মিনিটের মতো। আর ট্রলারে ঘণ্টাখানেক। ১৮ মিনিটের এই যাত্রায় ঘাট ইজারাদার স্পিডবোটের যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া আদায় করে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা। সন্ধ্যায় এবং আবহাওয়া খারাপ হলে এই ভাড়া দ্বিগুণ, তিনগুণ পর্যন্ত হয়ে যায়। অপর দিকে ট্রলার ভাড়া নেয়া হয় ১৬০ টাকা করে। যাত্রীদের অভিযোগ, দেশের অন্যান্য ঘাটের তুলনায় এই ভাড়া অনেক বেশি।
যাত্রীরা আরও অভিযোগ করেন, নানা অযুহাতে এখানে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়। বোটে নেই পর্যাপ্ত লাইফ জ্যাকেট, যা আছে তা নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর। আসন্ন ঈদুল আযহাকে সামনে রেখে নতুন করে যাতে আবার ভাড়া না বাড়ানো হয় সে ব্যাপারে প্রশাসনের কঠোর নজরদারি আশা করেন যাত্রীরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ