Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭, ১৩ সফর ১৪৪২ হিজরী

জনগণের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে -ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০২০, ৬:৪৮ পিএম

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর মহাসচিব প্রিন্সিপাল হাফেজ মাওলানা ইউনুছ আহমাদ সংগঠনের চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দায়িত্বশীলদের সাথে ভার্চুয়াল আলোচনায় বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারীতে ক্ষতিগ্রস্ত ও কর্মহীন মানুষের সার্বিক সহযোগিতা এবং করোনায় মৃতবরণকারীদের লাশ দাফন কাফন অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি দেশের জনগণের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে জেলার নেতৃবৃন্দদের দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান। সেই সাথে আসন্ন কোরবানি ঈদেও যেন গরিব ও অসহায় মানুষের পাশে থেকে কোরবানির গোশত বিতরণ করতে পারেন তার জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করার আহ্বান জানান। তিনি বন্যাদুর্গতদের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিয়ে বলেন, ইসলাম শান্তি ও মানবতার ধর্ম। মহাসচিব ইউনুছ আহমাদ বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে সংগঠনের কার্যক্রম সচল রাখতে হবে।
আজ রোববার বিকেল ৩টায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের দায়িত্বশীলদের সাথে ভার্চুয়াল আলোচনায় এসব কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, দলের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার আশরাফুল আলম, কেএম আতিকুর রহমান, মাওলানা দেলাওয়ার হোসাইন সাকী, মাওলানা লোকমান হোসাইন জাফরী, মাওলানা নেছার উদ্দিন, অধ্যাপক সৈয়দ বেলায়েতে হোসেন প্রমুখ।

ইউনুছ আহমাদ আরো বলেন, দেশের এ দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে সাহায্য নিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য দল-মত নির্বিশেষে সকলেরই এগিয়ে আসা উচিত। সরকারের পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত বন্যার্তদের সাহায্যার্থে কোনো তৎপরতা জনগণের নিকট দৃশ্যমান হয়নি। সরকারের এ ভূমিকা জনগণকে বিস্মিত করেছে। সরকারের উচিত দ্রুত জনগণের পাশে দাঁড়ানো। বন্যাদুর্গত ব্যক্তিদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি সমাজের বিত্তশালী ব্যক্তিবর্গ এবং বিশেষভাবে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের সর্বস্তরের জনশক্তিকে চলমান তৎপরতা আরো বৃদ্ধি করার আহ্বান জানান। এ সময় মহাসচিব জেলা নেতৃবৃন্দের সকল কথা মনোযোগ দিয়ে শোনেন।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ


আরও
আরও পড়ুন