Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

গত সপ্তাহে আমার ছেলে হয়েছে। কোরবানী সামনে এসে যাওয়ায় চাচ্ছি যে, কোরবানীর সাথে আকীকা করে ফেলতে। প্রশ্ন হলো, কোরবানীর পশুতে আকিকার জন্য ভাগ রাখা যাবে কি?

আফিফা মেহজাবিন
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ২৮ জুলাই, ২০২০, ৭:৩৩ পিএম

উত্তর : ফিকহে হানাফী অনুসারে ভাগ রাখা যাবে। যারা এ বিষয়ে ভিন্নমত পোষন করেন তাদের মাসআলা অন্যরকম হতে পারে। আমাদের দেশে যেহেতু প্রায় সব মুসলমান হানাফী ফিকাহ’র অনুসারী সুতরাং আমাদের সমাজে প্রচলিত নিয়মে কোরবানীর পশুতে আকিকার ভাগ রাখা যাবে।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

Show all comments
  • Sohel ৩ আগস্ট, ২০২০, ৫:১৫ পিএম says : 0
    আপনি যখন কোন বিষয়ে মতামত বা সিদ্বান্ত দিবেন তখন কুরআন এবং সহিহ হাদীস অনুযায়ী দিতে হবে। হানাফী বা হাম্বলী বা অন্য কোন শাস্ত্রে কি আছে সেইটা বিবেচনা করা সম্পূর্ণ অনুচিত।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Akhand ১৯ আগস্ট, ২০২০, ১১:২৬ পিএম says : 0
    Honourable Mufti Mr. Nadhvi has already mentioned that, there could be a different masalah about akikah in Islam. A Hanafi follower also can decide not to add Akikah with Kurbani. Mufti already kept it open for Muslims to decide themselves. He only gave the informations about different thoughts of Islam. I think this is a perfect answer to the question.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন

প্রশ্ন : পতিতাদের জানাযার ব্যাপারে একটি মাসআলা সোশ্যাল মিডিয়ায় আসার পরে আমার মনে প্রশ্ন জেগেছে যে, বর্তমানে পতিতালয়ে অনেক নারী আছে, যারা সেচ্চায় এ কর্মে যায়না (বরং কোন প্রতারকের মাধ্যমে বিক্রি হয়ে বা অন্য কোন উপায়) আবার তারা ওখান থেকে বের হয়ে আসতেও পারেনা, কারণ তাদেরকে কঠিন বেষ্টনীর মধ্যে কড়া পাহাড়ায় রাখা হয়। এক পর্যায় কোনো উপায়ন্ত না পেয়ে এসব নারীরা পতিতাবৃত্তিতে যুক্ত হয়ে সারা জীবন এ বন্দী শিবিরে তাদের যৌবন বিলিয়ে দিতে বাধ্য হয়। এসমস্ত বন্দী পতিতা নারীদের মৃত্যুর পর জানাযার নামায পড়ার বিধান কি?

উত্তর : অবস্থাভেদে মাসআলাও ভিন্ন হয়। বাস্তবেই যাদের এমন জীবন ঈমান ও তওবার ভিত্তিতে তাদের সাথে সামাজিক আচরণও ভিন্ন হতে পারে। কিছুদিন আগে পুলিশ ও

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ