Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ০৩ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

বৈরুতে জরুরি অবস্থা জারি, তিন দিনের শোক ঘোষণা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২০, ১১:৪০ এএম

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরণে শেষ খবর (বুধবার সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত) পাওয়া পর্যন্ত কমপক্ষে ৭৮ জন নিহত ও ৪ হাজারের বেশি মানুষ আহত হয়েছে বলে জানা গেছে। পুরো শহর যখন পরপর কয়েকটি বিস্ফোরণে প্রকম্পিত, তখন শহরের বাসিন্দারা ভূমিকম্প মনে করে ছোটাছুটি শুরু করে। বলা হচ্ছে, বিস্ফোরণে ৩.৩ মাত্রার ভূমিকম্পের সমান কাঁপুনি অনুভূত হয়েছে।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হচ্ছে, বৈরুতের এক গুদামে মজুদ করা ছিল বিস্ফোরক অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। দু’এক কেজি নয়, পুরো ২৭৫০ টন। অনিরাপদ অবস্থায় তা রাখা হয়েছিল। এ তথ্য আর কারো নয়, লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আওনের। দৃশ্যত ওই গুদাম থেকেই বৈরুতে ‘পারমাণবিক বোমা’ হামলার মতো বিস্ফোরণ ঘটেছে। আগুনের সংস্পর্শে এলে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটে আগুন ধরে যায়। এ থেকে বিস্ফোরণ ঘটে। তখন তৈরি হয় বিষাক্ত গ্যাস।

এদিকে ভয়াভহ এ বিস্ফোরণের ঘটনায় জরুরি কেবিনেট বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখান থেকে ২ সপ্তাহের জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা আসছে। অন্যদিকে বিস্ফোরণে হতাহতের ঘটনায় বুধবার থেকে তিনদিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে। এরই মধ্যে প্রেসিডেন্ট মিশেল সরকারের পক্ষ থেকে জরুরি সহায়তা হিসেবে ১০০ মিলিয়ন লিরা ছাড় দিয়েছে।
মঙ্গলবারের (৪ আগস্ট) এ ভয়াবহ বিস্ফোরণের কারণ জানতে তদন্ত কমিটি গঠন করেছে সরকার। পাঁচ দিনের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। তবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বরাতে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে, বন্দরের কাছে অরক্ষিত অবস্থায় সংরক্ষিত থাকা অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট থেকে বিস্ফোরণের সূত্রপাত।

দেশটির জাতীয় নিরাপত্তা প্রধান আব্বাস ইব্রাহিম বলেছেন, আফ্রিকায় চালান দেওয়ার জন্য বৈরুত বন্দরে রাখা হয়েছিল ২ হাজার সাতশ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। সেখান থেকেই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। লেবাননের উচ্চ প্রতিরক্ষা পরিষদের সভা শেষে এ মন্তব্য করেন ইব্রাহিম।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লেবানন


আরও
আরও পড়ুন