Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২১, ০৯ মাঘ ১৪২৭, ০৯ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

মঠবাড়িয়ায় ৬ দিনেও চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডার রহস্য উদঘাটন হয়নি ২ জনের ৪ দিনের রিমান্ড

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২০, ৪:৫৩ পিএম

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর ট্রিপল মার্ডারের ৬ দিন অতিবাহিত হলেও এ খুনের নেপথ্যের কারণ উদঘাটন হয়নি। নিহতদের লাশ উদ্ধারের দিন শুক্রবার রাতে নিহত আয়নালের শশুর (খুকু মনির পিতা) চিত্রা গ্রামের আবুল কালাম সর্দার অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামী করে মঠবাড়িয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। পুলিশ হত্যা রহস্য উদঘাটনের জন্য নিহত গৃহকর্তা আয়নাল হকের আপন ভাই কাঁচামাল ব্যবসায়ী হেলাল হাওলাদার (৪০), চাচাত চাচা ভ্যান চালক আঃ মালেক হাওলাদার (৫৫), চাচাত ভাই কৃষক বেলাল (৪০), প্রতিবেশী মাহবুব (১৯), আঃ রহিম (১৬) ও শামিম (২৬) কে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

আটক আঃ মালেক হাওলাদার ও শামীম খান কে ওই মামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে পুলিশ গ্রেফতার দেখিয়ে মঙ্গলবার দুপুরে আদালতে সোপর্দ করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই বশির আহমেদ গ্রেফতারকৃতদের জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করলে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যজিস্ট্রেট আল-ফয়সাল শুনানি শেষে আসামীদের ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আঃ মালেক হাওলাদার উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের আছমত আলী হাওলাদারের ছেলে ও শামীম একই এলাকার জব্বার খানের ছেলে।

গত বৃহস্পতিবার দিবাগত গভীর রাতে সংঘঠিত হওয়া এ হত্যার ক্লু বের করতে সিআইডি, ডিবি, পিবিআই, র‌্যাবসহ থানা পুলিশের একাদিক টিম মাঠে কাজ করলেও হত্যার নেপথ্য ক্লু উদঘাটনে কাজ করছে।
মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ.জ.ম. মাসুদুজ্জামান মিলু বলেন, চাঞ্চল্যকর এ ট্রিপল মার্ডারটি আমরা গুরুত্বের সাথে তদন্ত করছি। আশা করছি খুব দ্রæত সময়ের মধ্যে এ হত্যাকান্ডের রহস্য উন্মোচন হবে।

পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খাঁন বলেন, এ ঘটনার পর থেকেই মঠবাড়িয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসান মোস্তফা স্বপনের নেতৃত্বে র‌্যাব, সিআইডি, পিবিআই, ডিবিসহ থানা পুলিশের ৫টি টিম মাঠে সার্বক্ষণিক কাজ করছে। আশা করছি খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে এ তিন খুনের নেপথ্যের কারণ ও খুনিদের শনাক্ত করে গ্রেফতার করতে সক্ষম হব। তিনি আরও বলেন, ইতিমধ্যে অনেক তথ্য আমরা পেয়েছি। যা তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না।
উলেখ্য,গত শুক্রবার (৩১জুলাই) সকালে উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের একটি বসত ঘর থেকে অটো চালক আয়নাল হক (৩৫), তার স্ত্রী খুকু মনি (২৫) ও তাদের ৩ বছরের একমাত্র শিশু কন্যা আশফিয়া ইসলামের হাত-পা বাধাঁ জুলন্ত লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ।

পিরোজপুরের সিভিল সার্জন কার্যালয়ে তিন লাশের ময়না তদন্তের পর গত শনিবার মাগরিবের নামাজবাদ নামাজে যানাযা শেষে ধানীসাফা গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে নিহত আয়নাল, স্ত্রী খুকু মনি ও তিন বছরের শিশু কন্যা আশফিয়ার লাশ দাফন করা হয়। ওই গ্রামে এই প্রথম একই পরিবারের তিন জনের লাশ দাফনের ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে এবং নিহতদের স্বজসদের মাঝে শোকের মাতম চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: রিমান্ড

২০ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ