Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ০৯ সফর ১৪৪২ হিজরী

দক্ষিণাঞ্চলে নমুনা পরীক্ষা বৃদ্ধির সাথে বাড়ছে করেনা আক্রান্তের সংখ্যাও

বরিশালে মৃত্যু আরো একজনের

বরিশাল ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২০, ৪:৫৫ পিএম

দক্ষিণাঞ্চলে ঈদ উল আজহার ছুটি কাটিয়ে করোনা পরীক্ষার সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সনাক্তের হারও বাড়তে শুরু করেছে। বুধবার দুপুরের পূর্ববর্তী ২৪ ঘন্টায় দক্ষিণাঞ্চলের ৬ জেলায় আগের দিনের তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১৮ জন বৃদ্ধি পেয়ে ৬৭ জনে উন্নীত হয়েছে। এসময়ে বরিশালের আগৈলঝাড়াতে ৭০ বছর বয়স্কা এক নারীর মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে এ অঞ্চলে মোটা সংখ্যাটা দাড়িয়েছে ১২১। এ নিয়ে চলতি মাসের প্রথম ৫ দিনে পাঁচজনের মৃত্যু ও ১২১জন আক্রান্তের খবর দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তবে গত ২৪ ঘন্টায় শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসালেশন ওয়ার্ডে করোনা উপসর্গ নিয়ে আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে।

ঈদের ছুটির কারনে ১ আগস্ট থেকে করোনা পরিক্ষার সংখ্যা আশংকাজনকভাবে কমে যাওয়ায় বিপুল সংখ্যক সনাক্তের বাইরে রয়েছে বলে মনে করছেন চিকিৎসা বিশেষজ্ঞগন। বুধবার নতুন আক্রান্ত সহ দক্ষিণাঞ্চলে মোট সংখ্যাটা ৬ হাজার ৬৯-এ উন্নীত হয়েছে। তবে স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমিত হিসেবনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় আরো ১শ জন সহ মোট সুস্থ হয়েছেন ৩ হাজার ৯০৫জন।

তবে ঈদেরে ছুটি কাটিয়ে নমুনা পরিক্ষার সংখ্যা যথেষ্ঠ বৃদ্ধি পেয়েছে মঙ্গলবারে। শের এ বংলা মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবে ২৮২ জনের নমুনা পরিক্ষায় ৬৫ জনের ও ভোলার ল্যাবে ৪০ জনের পরিক্ষায় ৯জনের দেহে করোনা ভাইরাস সনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে।
বুধবার দুপুরের পূর্ববতির্ ২৪ ঘন্টায় বরিশালে আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের ১৭ থেকে ২৭ জনে বৃদ্ধি পাবার পাশাপাশি আরো একজনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে জেলায় মোট মৃতের সংখ্যাটা দাড়াল ৪৫ জনে। আক্রান্ত ২,৫২৪। আর জেলায় আক্রান্ত ও মৃতদের সিংহভাগই এখনো বরিশাল মহানগরীতে। নুন্যতম স্বাস্থ্য বিধি অনুসরন বিহীন এনগরীর প্রতিটি পাড়া মহল্লায় এখন করোনা রোগী। সমগ্র দক্ষিণাঞ্চলে করোনার হটস্পট এ নগরীতে মহামারি প্রতিরোধে দায়িত্ব কার তা বলতে পারছেন না নগরবাশী। তবে স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমিত হিসেবে জেলায় এ পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ১,৬৬৭ জন।

ছোট জেলা বরগুনাতেও আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের দুই থেকে ১৫ জনে বৃদ্ধি পেয়েছে। জেলাটিতে এ পর্যন্ত মোট ৬৭৮ জন আক্রান্তের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ১৩ জনের। অনুমিত হিসেবে সুস্থ হয়েছেন ৪৩৫ জন। ভোলাতেও আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের ৪ থেকে ৯ জনে বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে জেলাটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাড়িয়েছে ৫৫৪ জনে। এপর্যন্ত মারা গেছেন ৬ জন। আর স্বাস্থ্য বিভাগের হিসবনুযায়ী সুস্থ হয়েছেন ৩৮১জন। পটুয়াখালীতেও গত ২৪ ঘন্টায় নুতন করে আক্রান্ত হয়েছেন ৬জন। যা আগের দিন ছিল ১০। জেলাটিতে এ পর্যন্ত আক্রান্ত ১,০৬১ জনের মধ্যে মারা গেছেন ৩৩ জন। আর সুস্থ হয়েছেন ৬৮৮ জন।
দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে ছোট জেলা ঝালকাঠীতেও আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের সমান ৬ জনই রয়েছে বুধবারেও । তবে জেলাটিতে এ পর্যন্ত ৫০২ জন আক্রান্তের মধ্যে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত ২৪ ঘন্টায় জেলাটিতে কোন সুস্থতার খবর নেই। তবে অনুমিত হিসেবে এ পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২৯২ জন।
এদিকে বরিশাল শের এ বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করেনা ওয়ার্ডে গত ২৪ ঘন্টায় দুজনকে ভর্তি করা হলেও সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন আরো ৬ জন। এসময়ে হাসপাতালটির আইসোলেশন ওয়ার্ডেও ৯ জনকে ভর্তি করা হলেও ছাড়পত্র পেয়েছেন ৫ জন। বর্তমানে এ দুটি ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ৬৩ জন। এরমধ্যে করোনা ওয়ার্ডে রয়েছেন ২৪ জন। আর এ দুটি ওয়ার্ডে ভর্তিকৃতদের মধ্যে গত ২৪ ঘন্টায় ১১ জনের নমুনা পরিক্ষায় ৬ জনের দেহে করেনা পজেটিভ সনাক্ত হয়েছে বলে জানা গেছে। এনিয়ে হাসপাতালটিতে ভর্তিকৃতদের মধ্যে ৯৭২ জনের নমুনা পরিক্ষায় ৩৬৬ জনের দেহে করেনা সনাক্ত হল।

 

 

 

 

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা ভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন