Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

কলকাতায় ডেঙ্গুতে ৬ জনের মৃতু্যু মমতার জরুরি বৈঠক তলব

প্রকাশের সময় : ৪ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : কলকাতায় ডেঙ্গুতে ৬ জন মারা গেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য দফতরের জরুরি বৈঠক ডেকেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনার কলকাতা সংলগ্ন এলাকা, হুগলি, পশ্চিম মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনায় এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। রাজ্যে এভাবে ডেঙ্গু ও মশাবাহিত অজানা জ্বর ছড়িয়ে পড়ায় মুখ্যমন্ত্রী ও স্বাস্থ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বেশ ক্ষুব্ধ। মঙ্গলবার এব্যাপারে স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের কাছে কৈফিয়ত তলব করেছেন তিনি। বর্ষায় সংক্রমণ ছড়াতে পারে ভেবে মুখ্যমন্ত্রী গত ফেব্রুয়ারি মাসেই সংশ্লিষ্ট দফতরগুলোকে মাঠে নামতে বলেছিলেন। প্রতি মাসে রিভিউ মিটিংও করেছেন। তবু কেন এ অবস্থাÑ স্বাস্থ্য দফতরের কর্মকর্তাদের এ প্রশ্নই করেছেন তিনি। মমতার মতে, বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষকে সচেতন করার কাজ ঠিকঠাক ভাবে না হওয়ায়ই ডেঙ্গুতে এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। ক্ষুব্ধ মমতার কড়াভাবে জানিয়ে দিয়েছেন, আগামী তিন মাস রোগ নিয়ন্ত্রণ, নজরদারি ও ডেঙ্গুর চিকিৎসায় কোনো ঢিলেমি চলবে না। তিনি বলেন, এ ক্ষেত্রে বিন্দুমাত্র গাফিলতি বরদাস্ত করা হবে না।
ইতোমধ্যে রাজ্যে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা মঙ্গলবার বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৩৮-এ। ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরেও। এদিন কলকাতার এক হাসপাতালে মারা গেছে মথুরাপুর হাইস্কুলের একাদশ শ্রেণীর ছাত্রী জ্যোতি বৈরাগী (১৬)। জ্যোতিকে নিয়ে চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত রাজ্যে ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৬-এ। আগের ৫টি মৃত্যুই হয়েছে গত এক সপ্তাহে। এদিকে, পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতায় অজানা জ্বরে একজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। কলকাতা, হাওড়া, উত্তর ২৪ পরগনার বরাহনগর, সল্টলেক, দক্ষিণ দমদম, হুগলির শ্রীরামপুর, পশ্চিম মেদিনীপুরের গড়বেতা বা দক্ষিণ ২৪ পরগনার মথুরাপুরের মতো ডেঙ্গু কবলিত অঞ্চল থেকে রোগ যাতে অন্যত্র ছড়াতে না পারে, সে জন্য জেলা স্বাস্থ্য দফতরগুলোকে প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ইন্ডিয়া টুডে।

ফের ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা উ. কোরিয়ার জাপানের নিন্দা
ইনকিলাব ডেস্ক : আবারো ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। গতকাল বুধবার এ পরীক্ষা চালানো হয় বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক প্রধানের কার্যালয়। এতে বলা হয়, সিউল সময় বুধবার সকাল ৭টা ৫০ মিনিটে উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ংয়ের দক্ষিণ-পশ্চিমের প্রদেশ দক্ষিণ হোয়াংহাইয়ি থেকে ক্ষেপণাস্ত্রটি ছোড়া হয়। পরে এটি জাপান সাগরে গিয়ে পতিত হয়। ধারণা করা হচ্ছে, রোডোং ক্ষেপণাস্ত্রের মতো এটি মধ্যমপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র, যা প্রায় ৬২০ মাইল দূরের লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে সক্ষম। এদিকে উত্তর কোরিয়ার এ ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার তীব্র নিন্দা জানিয়েছে জাপান। দেশটির প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় একে জাপানের প্রতি ভয়াবহ হুমকি বলে মন্তব্য করেছেন। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এ পরীক্ষার মাধ্যমে বোঝা যাচ্ছে, উত্তর কোরিয়া তার প্রতিবেশী দেশ দক্ষিণ কোরিয়ার বন্দর ও বিমান ঘাঁটিসহ বেশ কয়েকটি স্থানকে হামলার লক্ষ্যবস্তু বানাতে চায়। আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও চলতি বছরের জুলাই মাসে পরপর তিনটি ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালিয়েছে উত্তর কোরিয়া। গত মাসে দক্ষিণ কোরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্র থাড ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা মোতায়েনের ঘোষণা দেয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে পিয়ংইয়ং জানায়, এটি মোতায়েন করা হলে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়ার ওপর সরাসরি আঘাত হানা হবে। দক্ষিণ কোরিয়ার ঊর্ধŸতন এক সেনা কর্মকর্তার বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, জাতিসংঘের নিষেধাজ্ঞাকে অগ্রাহ্য করে একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করে চলেছে পিয়ংইয়ং। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের উপস্থিতিতে ওই ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষিপ্ত হয়। দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা এটিকে রোডং ক্ষেপণাস্ত্র বলে উল্লেখ করেছেন। উত্তর কোরিয়াকে এ জাতীয় ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ থেকে বিরত রাখতে গত মার্চে একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছিল জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যরা। সেই নিষেধাজ্ঞা অগ্রাহ্য করে এই তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে দেশটি। উত্তর কোরিয়ায় বর্তমান নেতা কিম জং উন ক্ষমতায় আসার পর থেকেই দেশটির ক্ষেপণাস্ত্র ও পরমাণু অস্ত্র পরীক্ষার প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি দেশের সর্বোচ্চ নেতা হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন ২০১১ সালের ডিসেম্বর মাসে। সেই হিসেবে গত সাড়ে ৪ বছরে ৩০টির বেশি ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করেছে পিয়ংইয়ং। এ দাবি দক্ষিণ কোরিয়ার এক সেনা কর্মকর্তার। দেশটি তাদের পরমাণু ও ক্ষেপণাস্ত্রের সক্ষমতা বাড়ানোর অব্যাহত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। যদিও তারা এখন পর্যন্ত মাত্র দুটি ক্ষেপণাস্ত্রের সফল উৎক্ষেপণে সক্ষম হয়েছে। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ