Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

‘রামমূর্তি বসানো হলেও সেটা বাবরি মসজিদই থাকবে’

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:০২ এএম

বাবরি মসজিদ ছিল, চিরকাল থাকবে। মসজিদের ভেতরে মূর্তি স্থাপণ করে পূজা করলে কিংবা নামাজ বন্ধ করে দেয়া হলেও সেটা মসজিদই থাকে। মঙ্গলবার টুইটে দেয়া এক বিবৃতিতে মুসলিম শরিয়া আইনের বরাতে এই তথ্য জানায় অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনেল ল’ বোর্ড (এআইএমপিএলবি)।

অযোধ্যায় ঐতিহাসিক বাবরি মসজিদের জায়গায় বিতর্কিত রামমন্দির নির্মাণ কাজের উদ্বোধন হয়েছে গতকাল। তার আগের দিন বিরোধিতা জানিয়ে মুসলিম পার্সোনেল ল’ বোর্ডের পক্ষ থেকে এই বিবৃতি দেয়া হয়। সেখানে বলা হয়, ‘বাবরি মসজিদ ছিল ও সর্বদা মসজিদই থাকবে। অন্যতম উদাহরণ হল তুরস্কের হাইয়া সোফিয়া। ভেঙে পড়ার মতো কিছু হয়নি। পরিস্থিতি সর্বদা এক রকম থাকে না। সংখ্যাগরিষ্ঠদের তুষ্ট করার জন্য লজ্জাজনক একটি বিচার কখনও এর মূল অবস্থানকে পরিবর্তন করতে পারে না।’

মঙ্গলবার সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মোহাম্মদ ওয়াল রাহমানির জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘কোনও মন্দির বা হিন্দু উপাসনালয় ভেঙে বাবরি মসজিদ কখনই নির্মিত হয়নি। সুপ্রিম কোর্টও তার ২০১৯ সালের নভেম্বরের রায়ে আমাদের অবস্থান নিশ্চিত করেছে।’ তিনি মন্দির নির্মাণে হতাশ না হওয়ার জন্য ভারতীয় মুসলমানদের কাছেও আবেদন করেছিলেন। এদিকে, অযোধ্যা আদালতের মামলার অন্যতম বাদী হাজী মাহবুব প্রধানমন্ত্রী মোদির কাছে একটি চিঠি পাঠিয়ে বলেছেন যে, ‘মন্দির নির্মাণের পাশাপাশি সংসদে ১৯৯৩ সালের জানুয়ারিতে যে প্রতিশ্রুতি দেয়া হয়েছিল তাও পূরণ করা উচিত।’

প্রসঙ্গত, গত বছর ৯ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্ট অযোধ্যা মামলার রায়ে জানায়, ‘২ দশমিক ৭৭ একর বিতর্কিত জমিটি পুরোটাই রামলালাকে হস্তান্তর করা উচিত।’ ৫ বিচারপতির ডিভিশন কেন্দ্রকে নির্দেশ দেয়, ‘সুন্নি ওয়াকফ বোর্ডকে অযোধ্যাতে ৫ একর জমি দিতে হবে মসজিদ নির্মাণের জন্য।’ অযোধ্যা রায়ের পরে সুন্নি ওয়াকফ বোর্ড ওই রায়ের পুনর্বিবেচনার আর্জিও জানায়নি। যদিও মুসলিম পার্সোনেল ল’ বোর্ড জানিয়ে দেয়, তারা রায়ের পুনর্বিবেচনার আর্জি জানাবে সুপ্রিম কোর্টে।

এদিকে, এআইএমপিএলবি’র নেতা আসাদউদ্দিন ওয়াইসি টুইটে লেখেন, ‘বাবরি মসজিদ ওখানেই ছিল এবং থাকবে।’ এছাড়া সুপ্রিম কোর্টের রায়কেও চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন হায়দারাবাদের সাংসদ ওয়াইসি। এদিন তিনি বলেন, ‘আমি জানি রামমন্দিরের এই রায় শীর্ষ আদালত থেকে এসেছে। তবে আমি যতদিন বেঁচে থআকব, ততদিন বাবরি মসজিদের অধ্যায় আমি শেষ হতে দেব না। আমি এই বিষয়ে প্রতিবাদ জানাবো। আইনত এই মামলা শেষ হতে পারে, তবে ঐতিহাসিক ভাবে এই মামলা এখনও চলবে।’ সূত্র : টিওআই।



 

Show all comments
  • Sujon Ahmed ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০২ এএম says : 0
    রাত যত গভীর হয় দিন ততই নিকটে আসে
    Total Reply(0) Reply
  • Majharul Islam ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৩ এএম says : 0
    ৮৬ বছর পরে যদি আয়া সুফিয়া প্রতিষ্ঠিত হতে পারে তাহলে ১০০ বছর পরে হলেও বাবরি মসজিদ আবার প্রতিষ্ঠিত হবে...! ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • Syed Kamal Uddin ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৪ এএম says : 0
    একজন মুসলিম হিসেবে অন্য যেকোন ধর্ম বিশ্বাসকে রেসপেক্ট করি কিন্তু সুপ্রিম কোর্টকে প্রভাবিত করে বাবরি মসজিদের যায়গায় রাম মন্দির নির্মানের উগ্রবাদী বিজেপি নেতাদের এসব চরম সাম্প্রদায়িকতাকে তীব্র ঘৃণা করি।
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad ABdur Rouf ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৫ এএম says : 0
    তাদের ওপর আল্লাহর গজব নেমে আসুক
    Total Reply(0) Reply
  • Fahad ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৬ এএম says : 0
    এই রাম মন্দির ই মোদীর পতনের কারণ হবে ইনশাআল্লাহ
    Total Reply(0) Reply
  • Hafiz Uddin ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৭ এএম says : 0
    মুদির ইতিহাস দেখলে বোঝা যায় তার জীবনে এমন কোন কাজ করেননি যা সমালোচনার বাইরে।
    Total Reply(0) Reply
  • Anik Islam ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:০৮ এএম says : 0
    ইতিহাস কাহুকে ক্ষমাকরেনা, এই ভাবরি মসজিদ থেকে আমার আযানের ধ্বনি শোনা যাবে একদিন,(ইনশাআল্লাহ)
    Total Reply(0) Reply
  • Zahir Rahan ৬ আগস্ট, ২০২০, ১০:৫১ এএম says : 0
    সত্য কোনদিন মিথ্যা হয় না বরং মিথ্যা বিলুপ্ত হয় এই উগ্রবাধি হিন্দুরা সাধারণ মুসলিমদেরকে যেখানে পায় সেখানে হত্যা করে তাদের মধ্যে নূন্যতমও মানবতা নাই, মুসলিমরা কখনো কোন ধর্মের মানুষকে আঘাত করেনা বরন সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয় মুসলিমরা শান্তিকামী কখনো কোন ইতিহাস নাই যে কোন মন্দির ভেঙ্গে মসজিদ নির্মান করেছে, বরনছে এই বাংলাদেশে দেখেছি সরকারে ছত্রছায়াই সদরঘাট সমজিদ জায়গা দখল মসজিদের অনেক অংশ ভেঙ্গে দিয়েছে জনগণের তাড়া খেয়ে আর ভাংতে পারে নি তাও আমরা দেখেছি, কিন্তু ইন্দিয়ায় দেখছি সরকারই মুসলিমদের নির্বিচারে হত্যা করতে, মসজিদ ভেঙ্গে দিয়েছে কত মা বোনের ইজ্জত নষ্ট করেছে। আল্লাহ তুমি তাদের ধংস করো যাদের কারণে পৃথিবীটা অশান্তির কারণ হয় আমিন।
    Total Reply(1) Reply
    • ৬ আগস্ট, ২০২০, ১১:৪২ এএম says : 0

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বাবরি মসজিদ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ