Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ০৯ সফর ১৪৪২ হিজরী

দ্রুত বিচার আদালতে বিচার দাবি রাওয়ার

মেজর (অব.) সিনহা হত্যা

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:০২ এএম

তিন মাসের মধ্যে দ্রুত বিচার আদালতের মাধ্যমে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যার বিচারসম্পন্ন ও দোষীদের ফাঁসি দাবি করেছে সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সংগঠন রিটায়ার্ড আর্মড ফোর্সেস অফিসার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশন (রাওয়া)। গতকাল বিকালে রাওয়া’র হেলমেট হলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা এই দাবি জানান। সেইসঙ্গে পুলিশ বাহিনীকে সুশৃঙ্খল বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য জবাবদিহিমূলক আইন প্রণয়ন করে পুনর্গঠন করাসহ ১১টি দাবি জানান তারা। মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান (অব.) হত্যার বিচারের দাবিতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেজর (অব.) খন্দকার নুরুল আফসার। তিনি বলেন, আমরা সুশৃঙ্খল বাহিনীর সদস্য। ইচ্ছে করলেই রাস্তায় নেমে উচ্ছৃঙ্খলা দেখাতে পারি না। কিন্তু এই বিষয়ে দাবি আদায় না হলে আমরা রাস্তায় নামতে বাধ্য হব। উঁচু গলায় কথা বলব। তিন বাহিনীর প্রাক্তন প্রধানদের নিয়ে প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে গিয়ে বিচার দাবি করব।

দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- তিন মাসের মধ্যে দ্রুত বিচার আদালতের মাধ্যমে ন্যায় বিচারসম্পন্ন করতে হবে এবং দোষীদের ফাঁসি কার্যকর করতে হবে। অনতিবিলম্বে সকল আসামিকে (তদন্তে যাদের নাম আসবে তারাসহ) মামলার স্বার্থে গ্রেফতার করে জেলহাজতে রাখতে হবে। কক্সবাজার জেলার পুলিশ সুপার (এসপি)-কে অনতিবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। এই ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহিত করা, তথ্য গোপন করে মিডিয়াতে মিথ্যা বিবৃতি দেয়া ও একমাত্র চাক্ষুস সাক্ষী সিফাতের বিরুদ্ধে দুটি কাল্পনিক ও বানোয়াট মামলার রুজু করার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ওসি প্রদীপকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠাতে হবে। সিফাত, ট্রাক চালকসহ সকল সাক্ষীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের অনুরূপ একটি ভিন্ন মন্ত্রণালয় (ভ্যাটারান মন্ত্রণালয়) গঠন করে সশস্ত্র বাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত সদস্যদের নিরাপদ ও আত্মমর্যাদা সম্পন্ন জীবনযাপনে সার্বিক সহায়তা করতে হবে।

রাওয়া’র প্রেসিডেন্ট মেজর (অব.) খন্দকার নুরুল আফসার বলেন, আমরা পুরো ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত ও দ্রæত বিচার চাই। তা না হলে আমরা আন্দোলনে যাব। আমাদের এরকম আন্দোলনের কোনো নজির নেই। কিন্তু সহকর্মীকে হত্যার বিচারের দাবিতে আমরা আন্দোলনে যেতে বাধ্য হব। তবে আমাদের আন্দোলনও হবে সুশৃঙ্খল। এ ঘটনার তদন্তে র‌্যাব নিয়োজিত করার দাবি জানিয়েছে রাওয়া। এ সংক্রান্ত এক প্রশ্নের উত্তরে খন্দকার নুরুল অফসার বলেন, পুলিশ ও সিআইডি যেভাবে তদন্ত করে, সেটা তো করবেন। আমরা চাই, র‌্যাবও এর তদন্ত করুক। সবগুলো তদন্ত মিলিয়ে নিরপেক্ষ ও প্রকৃত প্রতিবেদন বেরিয়ে আসুক।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, গত ৩১ জুলাই রাত ৯টার দিকে টেকনাফ থেকে মেরিন ড্রাইভ সড়ক দিয়ে নিজস্ব প্রাইভেটকারে কক্সবাজারের দিকে যাচ্ছিলেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। এ সময় তার গাড়িতে সিফাত নামের আরেকজন ছিলেন। সিনহার বাবা অর্থ মন্ত্রণালয়ের সাবেক উপসচিব মুক্তিযোদ্ধা মরহুম এরশাদ খান। সিনহা ৫১ বিএমএ লং কোর্সের সঙ্গে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর কমিশন লাভ করেন। ২০১৮ সালে সৈয়দপুর সেনানিবাস থেকে তিনি স্বেচ্ছায় অবসর গ্রহণ করেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তায় নিয়োজিত স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্সে (এসএসএফ) দায়িত্ব পালন করেন। গত ৩ জুলাই ঢাকা থেকে কক্সবাজার যান তিনি। ‘জাস্ট গো’ নামের ইউটিউব চ্যানেলের জন্য ট্রাভেল ভিডিও নির্মাণের জন্য সেখানে গিয়েছিলেন তিনি। এ সময় তার সঙ্গে স্টামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফিল্ম অ্যান্ড মিডিয়া বিভাগের চারজন ছিলেন।

লিখিত বক্তব্যে আরো জানানো হয়, তারা প্রায় এক মাস কক্সবাজারের বিভিন্ন স্থানে শুটিং সম্পন্ন করেন। গত ৩১ জুলাই বিকেলে সিফাতকে সাথে নিয়ে মেজর সিনহা কক্সবাজার থেকে টেকনাফের শামলাপুর পাহাড়ে যান। এ সময় সাবেক এই সেনা কর্মকর্তার পরনে সামরিক পোশাক (কম্ব্যাট টি-শার্ট, কম্ব্যাট ট্রাউজার ও ডেজার্ট বুট) ছিল।



 

Show all comments
  • Sojib Hossain Shakil ৬ আগস্ট, ২০২০, ১:২২ এএম says : 0
    ফাঁসি চাই
    Total Reply(0) Reply
  • pavel ৬ আগস্ট, ২০২০, ১:৩০ এএম says : 0
    একজন মেজরকে গুলিকরার সাহস কি ভাবে পেলো সে? তাকে গ্রেফতার করে রিমান্ড দেওয়া হোক
    Total Reply(0) Reply
  • Morshed Hayat ৬ আগস্ট, ২০২০, ১:৫১ এএম says : 0
    We want hang this ............ police immediately.
    Total Reply(0) Reply
  • Mahbubul Alam ৬ আগস্ট, ২০২০, ১:৫৪ এএম says : 0
    ওসি মানেই বিশাল ক্ষমতার অধিকারী। সন্তানকে ওসিই বানানো উচিত,আর্মি অফিসার নয়!
    Total Reply(0) Reply
  • রিপন সরকার ৬ আগস্ট, ২০২০, ১:৫৫ এএম says : 0
    দেশটিতে কবে অাইনের শাসন প্রতিষ্টিত হবে জানা নেই।কবে শুনবো মানুষ ন্যায় বিচার পাচ্ছে।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Rashed ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:২০ এএম says : 0
    টেকনাফ থানার বিতর্কিত ওসি প্রদীপ দাশের গত তিন বছরে অর্জিত স্থাবর ও অস্থাবর, পরিবারের সদস্য ও তার কাছে দূরের সকল আত্মীয় স্বজনদের ব্যাংক হিসাব খতিয়ে দেখা অতিব জরুরী। এ ব্যাপারে দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Zamal Husain ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:২০ এএম says : 0
    মামলায় অভিযুক্ত আসামিদের সেনাবাহিনীর অধীনে রিমান্ডের ব্যবস্থা করা হোক। আমার মনে হয় রিমান্ডে একদিন নয় এক ঘন্টার মধ্যে সব ক্লিয়ার হয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Monir ৬ আগস্ট, ২০২০, ২:২১ এএম says : 0
    আমি চিৎকার করিয়া কাঁদিতে চাহিয়াও করিতে পারিনি চিৎকার
    Total Reply(1) Reply
  • Karim ৬ আগস্ট, ২০২০, ৮:১৪ এএম says : 0
    সহকর্মীদের জন্য অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তাদের এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়।
    Total Reply(0) Reply
  • আমিন ৬ আগস্ট, ২০২০, ৮:১৬ এএম says : 0
    এই চাপ ধরে রাখতে হবে তা না হলে আইনের ফাঁক গলিয়ে প্রদীপ লিয়াকৎ বেরিয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • সোহেল ৬ আগস্ট, ২০২০, ৮:১৬ এএম says : 0
    বিচার বিভাগীয় তদন্ত করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিনহা হত্যা

৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন