Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪ আশ্বিন ১৪২৭, ০১ সফর ১৪৪২ হিজরী

৮৫% খাদ্য ধ্বংস, ৩ লাখ গৃহহীন

তিন দিনের শোক পালন করছে লেবানন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৭ আগস্ট, ২০২০, ১২:০২ এএম

লেবাননের রাজধানী বৈরুতকে তছনছ করে দেওয়া ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় হতাহতের পাশাপাশি প্রায় তিন লাখ মানুষ গৃহহীন হয়েছেন বলে জানিয়েছেন শহরটির গভর্নর মারওয়ান আবুদ। মঙ্গলবারের ওই বিস্ফোরণে বৈরুত শহরের অর্ধেক অংশই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। ধ্বংসস্ত‚পের নিচে এখনও অনেকে আটকে থাকায় মৃতের সংখ্যা আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা মারওয়ানের। বিস্ফোরণে লেবাননের মজুদ খাদ্যশস্যের ৮৫ শতাংশ ধ্বংস হয়ে গেছে বলে বুধবার জানা গেছে। মধ্যপ্রাচ্যের এ দেশটি আমদানি করা খাদ্যশস্যের উপর অনেকাংশে নির্ভরশীল। খাদ্যশস্যের এখন যা মজুদ আছে তা দিয়ে দেশটি বড় জোর আর এক মাস চলতে পারবে বলে গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে। ব্রিটিশ এ সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, বুধবারও বৈরুত বন্দরের একাংশ থেকে ধোঁয়া উঠতে দেখা গেছে। শহরটির অসংখ্য বাসিন্দা নিখোঁজ স্বজনদের সন্ধানে প্রাণপণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। অন্তত ১৩৫ জনের প্রাণ কেড়ে নেওয়া বিস্ফোরণে আহতের সংখ্যাও প্রায় ৫ হাজার, বলছে গার্ডিয়ান। রাজধানীর হাসপাতালগুলোতে দেখা যাচ্ছে আহতদের উপচে পড়া ভিড়। লেবাননের সরকার জানিয়েছে, মঙ্গলবারের বিস্ফোরণ নিয়ে চলমান তদন্তের মধ্যেই বৈরুত বন্দরের দায়িত্বে থাকা বেশকিছু কর্মকর্তাকে গৃহবন্দি করে রাখা হয়েছে। কীভাবে এ বিস্ফোরণ হয়েছে তা নিয়ে অস্পষ্টতা থাকলেও লেবানন সরকারের কর্মকর্তারা বলছেন, বন্দরের গুদামে কয়েক বছর ধরে পড়ে থাকা অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটের কারণেই বিস্ফোরণটি হয়েছে। ছয় বছর আগে একটি কার্গো জাহাজ থেকে জব্দ করা অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট এতদিন বন্দরের গুদামে কেন পড়ে ছিল, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। লেবাননের কাস্টমস প্রধান বাদ্রি দাহের বলেছেন, তার সংস্থা গুদাম থেকে ওই রাসায়নিক পদার্থগুলো সরিয়ে ফেলার জন্য তাগাদা দিলেও ‘কাজ হয়নি’। সার বানানোর অন্যতম প্রধান উপকরণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বিস্ফোরক হিসেবেও ব্যবহৃত হয় গার্ডিয়ান এ খবর জানায়। ভয়াবহ বিস্ফোরণে কমপক্ষে শতাধিক নিহত এবং ৪ হাজারের বেশি মানুষ আহতের ঘটনায় তিন দিনের শোক পালন শুরু করেছে লেবানন। বৈরুতের বাসিন্দারা বলছেন, বিস্ফোরণে পুরো শহর কেঁপে উঠে। এতে শহরের অনেক ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বিস্ফোরণস্থল থেকে ১০ কিলোমিটার দ‚রে পর্যন্ত ভবনের জানালা, দরজা উড়ে গেছে। কম্পন অনুভ‚ত হয় ২৪০ কিলোমিটার দ‚রের দ্বীপরাষ্ট্র সাইপ্রাসেও, সেখানকার বাসিন্দারা এ ঘটনাকে ভ‚মিকম্প বলে মনে করেছিলেন। যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক এটিএফ বিস্ফোরক তদন্তকারী কর্মকর্তা অ্যান্থনি মে বিস্ফোরণের মাত্রা এবং শহর জুড়ে প্রবল কম্পনের ব্যাপারে বলেন, এটা কিছুটা এক কিলোটন ওজনের পারমাণবিক বোমা বিস্ফোরণের মতো ছিল। তিনি বলেন, এই বিস্ফোরণে পারমাণবিক কোনো পদার্থ ছিল না। কিন্তু সেখানে যে কম্পন তৈরি হয়েছে, বিস্ফোরণ ঘটেছে, সেগুলো একটি ছোট আকারের পারমাণবিক বোমার সমতুল্য। খবর বিবিসি, সিএনএন, হেরাল্ড সান এবং ফোর্বসের। লেবাননের সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, বন্দরের কাছের একটি আতশবাজির কারখানায় প্রথমে অগ্নিকাÐের ঘটনা ঘটে। আতশবাজির কারখানার আগুন আশপাশের ভবনে ছড়িয়ে পড়ায় অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুতের গুদামে মুহ‚র্তের মধ্যে বিস্ফোরণ ঘটে। কিন্তু দেশটির রাজধানীর গুরুত্বপ‚র্ণ বন্দরের কাছে কীভাবে এই বিপজ্জনক দ্রব্য মজুত করা হলো, ছয় বছর আগে জব্দ করা হলেও সেগুলো কেন ধ্বংস করা হয়নি, পর্যাপ্ত সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই কেন সেগুলো সেখানে এতদিন থাকল, এমন নানা প্রশ্ন উঠেছে। এএফপি, বিবিসি, সিএনএন, হেরাল্ড সান, ফোর্বস।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিস্ফোরণ

১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
১২ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ