Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২১, ১২ মাঘ ১৪২৭, ১২ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

‘এখনও সিরিজ জিততে পারে পাকিস্তান’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১১ আগস্ট, ২০২০, ১২:০৩ এএম

ম্যানচেস্টার টেস্টে প্রথম তিন দিনের দাপট কাজে লাগাতে পারেনি পাকিস্তান। দ্বিতীয় ইনিংসে দুঃস্বপ্নের ব্যাটিংয়ের পর ইংল্যান্ডের লেট মিডল অর্ডারের দৃঢ়তার কাছে হার মেনেছে বোলাররাও। ফল, ৩ উইকেটে হেরে সিরিজে পিছিয়ে পড়েছে সফরকারীরা। জয়ের আশা জাগিয়েও শেষ পর্যন্ত এমন হারে ভীষণ হতাশ হয়েছেন ইনজামাম-উল-হক। তবে সিরিজে এখনও পাকিস্তানকেই ফেভারিট মনে করছেন দেশটির সাবেক এই অধিনায়ক। আজহার আলীর দল ঘুরে দাঁড়িয়ে সিরিজ জিতবে বলে তিনি আশাবাদী।
প্রথম টেস্টে গত শনিবার শেষ ইনিংসে ২৭৭ রান তাড়ায় নামা ইংল্যান্ডকে দুর্দান্ত বোলিংয়ে চেপে ধরেছিল পাকিস্তান। ১১৭ রানে স্বাগতিকদের ৫ উইকেট তুলে নিয়ে ম্যাচের লাগাম হাতে নিয়েছিল সফরকারীরা। কিন্তু ষষ্ঠ উইকেটে ক্রিস ওকস ও জস বাটলারের ১৩৯ রানের জুটি বদলে দেয় দৃশ্যপট। ৩ উইকেটের দারুণ জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজে এগিয়ে যায় ইংল্যান্ড। সিরিজে পিছিয়ে পড়লেও শক্তির দিক দিয়ে পকিস্তানকে এখনও এগিয়ে রাখছেন ইনজামাম। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে এমন অভিমত জানান তিনি, ‘আমি মনে করি, পাকিস্তান দল ইংল্যান্ডের চেয়ে ভালো। প্রথম টেস্ট আমাদের জেতা উচিত ছিল। হারটা খুবই হতাশার। তবে আমি বিশ্বাস করি, পাকিস্তান এখনও সিরিজ জিততে পারে।’
প্রথম ইনিংসে ১০৭ রানের লিড নেওয়া পাকিস্তান দ্বিতীয় ইনিংসে ১৬৯ রানে গুটিয়ে যায়। অমন ব্যাটিং ধসের পর পাকিস্তানের ক্রিকেটারদের শরীরী ভাষা পরিবর্তন হয়ে গিয়েছিল বলে মনে করেন ইনজামাম। এখন তাদের হারের হতাশায় নুয়ে না পড়ে ইতিবাচক দিকগুলি নিয়ে ভাবার পরামর্শ দিলেন ১২০ টেস্টে প্রায় ৯ হাজার রান করা সাবেক ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান, ‘দল যখন কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে যায়, তখন খেলোয়াড়দের শরীরী ভাষা পরিবর্তন হওয়া উচিত নয়। প্রথম টেস্টে এটি স্পষ্ট ফুটে উঠেছে। কারণ, তৃতীয় দিনে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং ধসের পর পাকিস্তানের খেলোয়াড়রা চাপে পড়ে গিয়েছিল বলে মনে হয়েছিল। এই ধরনের হারের পর টিম ম্যানেজমেন্টের ভ‚মিকা গুরুত্বপ‚র্ণ। কারণ, এ অবস্থায় খেলোয়াড়দের মনোবল দুর্বল হয়ে যায়। নেতিবাচক বিষয়ে মনোযোগ না দিয়ে তাদের প্রথম ইনিংসের তিনশর বেশি রান এবং লিড নেওয়ার মতো ইতিবাচক দিকগুলি নিয়ে কথা বলতে হবে।’
দলীয়ভাবে ব্যর্থ হলেও ব্যক্তিগতভাবে ভালোই অর্জন হয়েছে পাকিস্তানের খেলোয়াড়দের। আইসিসি টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ে উন্নতি হয়েছে তাদের সেরা পারফরমারদের। প্রথম ইনিংসে ১৫৬ রানের ইনিংস খেলেছিলেন ওপেনার শান মাসুদ। সে ইনিংসটাই দলকে ১০৭ রানের লিড এনে দিয়েছিল। এমন এক ইনিংস তাঁকে ক্যারিয়ার সেরা অবস্থান এনে দিয়েছে। ১৪ ধাপ এগিয়ে ১৯-এ চলে এসেছেন মাসুদ।
প্রথম ইনিংসে অবিশ্বাস্য স্পেল উপহার দেওয়া মোহাম্মদ আব্বাস তিন ধাপ এগিয়ে বোলারদের সেরা দশে ঢুকে পড়েছেন। দুই লেগ স্পিনার ইয়াসির শাহ ও শাদাব খানও লাফ দিয়েছেন র‌্যাঙ্কিংয়ে। দুই ইনিংসে ৮ উইকেট পাওয়া ইয়াসির দুই ধাপ এগিয়ে বোলারদের ২২ নম্বরে চলে এসেছেন ইয়াসির। আর দুই উইকেট নিয়ে ক্যারিয়ার সেরা ৬৯তম অবস্থানে আছেন শাদাব।
অবশ্য উন্নতিতে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন ম্যাচ সেরা ক্রিস ওকস। ম্যাচ জেতানো ৮৪ রানের ইনিংস ছাড়াও দুই ইনিংসে ৪ উইকেট পেয়েছেন এই অলরাউন্ডার। ব্যাটিংয়ে ১৮ ধাপ এগোনো ওকস এখন অলরাউন্ডার র‌্যাঙ্কিংয়ে সাতে চলে এসেছেন। আর ওকসের সঙ্গে ম্যাচ জেতানো ১৩৯ রানের জুটি গড়া বাটলার ১৪ ধাপ এগিয়ে এখন টেস্টের ৩০তম ব্যাটসম্যান। প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ডের মান বাঁচানো ওলি পোপও ৬২ রানের ইনিংসে ক্যারিয়ার সেরা অবস্থান ৩২-এ উঠে এসেছেন।
দলীয়ভাবেও লাভ হয়েছে ইংল্যান্ডের। প্রথম টেস্ট জিতে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে নিজের পয়েন্ট ২৬৬ করে ফেলেছে। দ্বিতীয় স্থানে থাকা অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে তাদের ব্যবধান এখন ৩০। পাকিস্তানের সঙ্গে সিরিজে জয় পেলেই অস্ট্রেলিয়াকে টপকে যাবে তারা। ওদিকে পাকিস্তান ১৪০ পয়েন্ট নিয়ে আছে পাঁচে। ৩৬০ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে ভারত।
আগামী বৃহস্পতিবার সাউদাম্পটনে সিরিজ বাঁচানোর লড়াইয়ে নামবে পাকিস্তান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান


আরও
আরও পড়ুন