Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সিনহা হত্যাকান্ডের গণশুনানি রোববার

প্রত্যক্ষদর্শীদের কথা শুনবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তদন্ত কমিটি

ইনকিলাব রিপোর্ট | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২০, ১২:০১ এএম

জেলগেইটে গিয়েও আসামিদের রিমান্ডে না নিয়ে ফিরে গেছে র‌্যাব : মহেশখালীতে ওসি প্রদীপের বিরুদ্ধে মামলা নেয়নি


টেকনাফে সেনাবাহিনীর মেজর (অব.) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় অভিযুক্তদের মধ্যে রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া চার পুলিশ সদস্য ও তিন সাক্ষীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য র‌্যাব হেফাজতে নেয়ার প্রস্তুতসম্পন্ন। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য অভিযুক্তদের নিতে জেলগেইটে গিয়ে আসামিদের না নিয়েই ফিরে গেছে র‌্যাবের গাড়ি বহর। বৃহস্পতিবার বেলা সোয়া ১১টার দিকে জেলগেইট থেকে বেরিয়ে যায় আসামিদের নিতে আসা র‌্যাবের গাড়ি বহর।

এদিকে জানা গেছে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির আগামী ১৬ আগস্ট রোববার টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরে সিনহা হত্যাকান্ড নিয়ে গণশুনানি করবে। এ লক্ষ্যে প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গদের গণশুনানিতে অংশ নিতে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

জিজ্ঞাসাবাদের লক্ষ্যে আসামিদের নিতে কারাগারে গিয়েও র‌্যাব ফিরে যাওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে কক্সবাজারের জেলসুপার মোকাম্মেল হক জানান, রিমান্ড মঞ্জুর হওয়া অভিযুক্তদের মধ্যে এএসআই লিটন মিয়া, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন এবং পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষী নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মো. আয়াছকে জিজ্ঞাসাবাদে র‌্যাব হেফাজতে নিয়ে যাওয়ার জন্য র‌্যাবের একটি দল সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কারাগারে আসেন। জেল কর্তৃপক্ষ তাদের র‌্যাব হেফাজতে দেওয়ার জন্য সব প্রস্তুতিও সম্পন্ন করে। কিন্তু পরে তাদের (র‌্যাব) ঊর্ধ্বতন কতৃপক্ষের নির্দেশে রিমান্ডপ্রাপ্তদের না নিয়েই ফিরে যান। তবে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহ জানান, রিমান্ডপ্রাপ্ত ৭ আসামিকে রিমান্ডে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে। যে কোনো সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হবে।

এর আগে এএসআই লিটন মিয়া, কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুনসহ চার পুলিশ সদস্যকে কক্সবাজার জেলা কারাগার ফটকে দুই দিনে দুই দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করে র‌্যাব। একই দিন গত ৬ আগস্ট টেকনাফ বাহারছড়া পুলিশ ফাঁড়ির বরখাস্ত হওয়া ইন্সপেক্টর লিয়াকত আলী, বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশ এবং এসআই নন্দ দুলাল রক্ষিতকে ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হলেও তাদের এখনও জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেনি র‌্যাব।

লিয়াকতের ফোনালাপ : সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যা মামলায় বেড়িয়ে আসছে চাঞ্চল্যকর তথ্য। পুলিশ গুলি করার পর যাদেরকে সাক্ষী দেখানো হয়, তাদের মধ্যে নাজিম উদ্দীন নাজুর সাথে পরিদর্শক লিয়াকতের রহস্যজনক যোগাযোগের তথ্য পেয়েছেন তদন্তকারীরা। সে স‚ত্র ধরেই নাজুসহ পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। পুলিশের গুলিতে সিনহা রাশেদ মারা যাবার পর উল্টো তার (সিনহা) বিরুদ্ধে করা হত্যাচেষ্টা মামলার এজাহারে উল্লেখ আছে, ওইদিন ঠিক সোয়া ৯টার দিকে এখানে এসে তল্লাশি করতে থাকেন বাহারছড়া পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। তার ঠিক ২০ মিনিট পর এখানে আসে সিনহা ও সিফাতের সাদা প্রাইভেটকার। এরপরই ঘটে গুলির ঘটনা। এ ব্যাপারে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক লে. কর্নেল আশিক বিল্লাহর বক্তব্য হচ্ছে, তদন্তের সাথে সংশ্লিষ্টরা মনে করেছে ৩ জন হত্যার সাথে সরাসরি জড়িত ছিল। তাদের সংশ্লিষ্টতা মেলায় গ্রেফতার করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীদের গণশুনানি : টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনা তদন্তে আগামী ১৬ আগস্ট প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হবে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি এ গণশুনানির আয়োজন করছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তদন্ত কমিটির সদস্য ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির এই সদস্য জানিয়েছেন, আগামী ১৬ আগস্ট রোববার সকাল ১০টা থেকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গদের গণশুনানির আয়োজন করেছে। তদন্ত কমিটির সদস্য ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান বলেন, টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহত হওয়ার ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নির্ধারিত সময় ও তারিখে উপস্থিত হয়ে গণশুনানিতে অংশগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে অবহিত করা হয়েছে। এছাড়া গণশুনানি আয়োজনের বিষয়ে প্রস্তুতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট পর্যায়ে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান মো. শাজাহান আলি।

নতুন মামলার আবেদন খারিজ : মহেশখালীতে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আবদুস সাত্তার নিহতের ঘটনায় থানার তৎকালীন ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ ২৯ জনের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাটি খারিজ করে দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে ওই ঘটনায় চার বছর আগে পুলিশের দায়ের করা মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সিআইডিকে। গতকাল বৃহস্পতিবার মহেশখালীর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আব্বাস উদ্দীন এ আদেশ দেন। চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলাটি এএসপি মর্যাদার নিচে নয় এমন একজন সিআইডি কর্মকর্তাকে তদন্তের দায়িত্ব দেয়ার নির্দেশ দেন বিচারক। গত বুধবার ভিকটিম আবদুস সাত্তারের স্ত্রী হামিদা আক্তার এর দায়েরকৃত মামলার শুনানি শেষে আদালত এই আদেশ দেন।

হামিদা আক্তারের দায়েরকৃত ফৌজদারি দরখাস্তে ফেরদৌস বাহিনীর প্রধান ফেরদৌস, তৎকালীন ওসি প্রদীপ ছাড়া এসআই হারুনুর রশীদ, এসআই ইমাম হোসেন, এএসআই মনিরুল ইসলাম, এএসআই শাহেদুল ইসলাম ও এএসআই আজিম উদ্দিনকে অভিযুক্ত করেন। ভিকটিম আবদুস সাত্তার হোয়ানক প‚র্ব মাঝেরপাড়ার মৃত নুরুচ্ছফার পুত্র। এই মামলায় বাদী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন শহিদুল ইসলাম। মামলার বাদী হামিদা আক্তার জানান, গত ২০১৭ সালের ১৪ ফেব্রæয়ারি সকাল ৭টার দিকে ফেরদৌস বাহিনীর সহায়তায় হোয়ানকের লম্বাশিয়া এলাকায় তার স্বামী আবদুস সাত্তারকে হত্যা করা হয়।

এ ঘটনায় থানায় মামলা নেয়নি। অবশেষে উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হন। রিট পিটিশন নং-৭৭৯৩/১৭ ম‚লে ‘ট্রিট ফর এফায়ার’ হিসেবে গণ্য করতে আদেশ দেন বিচারক। সেই আদেশের আলোকে তিনি একই বছরের ১৭ জুলাই কক্সবাজারের পুলিশ সুপারকে লিখিত দরখাস্ত দেন। কিন্তু পুলিশ আবেদন আমলে নেয়নি। পুলিশ দাবি করেছে, নিহত আব্দুস সাত্তার অস্ত্র ব্যবসায়ী ছিলেন। এ ঘটনায় সেই সময় থানায় মামলা নিতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন ওসি প্রদীপ কুমার দাশ।



 

Show all comments
  • মোহাম্মদ আবুল হাশেম ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১২:৫৫ এএম says : 0
    অত্যন্ত দূর্ভাগ্যজনক যে বাংলাদেশের পুলিশবাহীনি একটা institutionalised criminal gang ছাড়া কিছুই না| নিরিহ মানুষের সর্বনাশ করাই যেন পুলিশের কাজ| এ বাহীনির reform খুবই জরুরী |
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammad Shah Alam ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৫ এএম says : 0
    বাংলাদেশে পুলিশে শুধু প্রদীপ দাস/শিশির কুমার একাই নয়, শত শত প্রদীপ দাস/শিশির কুমার আছে। বিপদে পরলেই প্রকাশ পায়। হায়রে বাংলাদেশ !
    Total Reply(0) Reply
  • Shilpi Islam ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৬ এএম says : 0
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পুরোপুরি দুর্নীতির হেড কোয়ার্টারে পরিনত হয়েছে। জনগণের বিন্দুমাত্র আস্থা নাই এই পুলিশ বাহিনীর মন্ত্রণালয়ের উপর। কারন তারা ওসি প্রদীপের মতো কুখ্যাত জানোয়ারদের অপকর্মের জন্য জাতীয় পুরস্কার হিসেবে প্রমোশন দেয়। অতএব এসব তদন্তের উপর জনগণের কোনো আস্থা নাই।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Malek ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৬ এএম says : 0
    দেশের ৮০% লোক যেখানে প্রদীপের শাস্তি চাইতেছে, ২০৪ টা খুন করেছে , তারপরও ডিজিটাল সরকার ১ প্রদীপের সামনে অসহায় ।
    Total Reply(0) Reply
  • Ar Raihan Chowdhury Rubel ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৭ এএম says : 0
    শিপ্রা দেবনাথের মনে রাখা উচিৎ দেশের কোটি জনতা তাদের পাশে দাঁড়িয়েছে কোন ভুঁইফোড় ইউটিউবার ভেবে না বরং সিনহা হত্যার রাজসাক্ষী ভেবেশিপ্রাকেও তদন্তের আওতায় আনা হোক। সম্ভবের দেশ বাংলাদেশে কোন কিছুই অসম্ভব না। এদেশের ইতিহাসের শুরুটাই হয়েছে ঘষেটি, রাজভল্লব, মীরজাফরদের দিয়ে। সুতরাং এটি কোন কারনে পূর্ব পরিকল্পিত খুন হলে এতে শিপ্রার সম্পৃক্ততা আছে কিনা সেটাও তদন্তের মাধ্যমে নিশ্চিত হওয়া প্রয়োজন।
    Total Reply(0) Reply
  • Taz Murad ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৭ এএম says : 0
    ৫৭ জন সেনার বিচার হয়নি আর সিনহার বিচার কি হবে ? শুধু ধুকা আর ধুকা।
    Total Reply(0) Reply
  • Reza UL ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৭ এএম says : 0
    শিপ্রা মেজর সিনহার লাশের উপর দাড়িয়ে তার ভবিষ্যৎ গড়ার স্বপ্ন দেখছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Iqbal Hossain Moni ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৮ এএম says : 0
    উচ্চ পদস্থ তদন্ত কমিটি? নাকি সৌজন্য মূলক সান্ত্বনার সমিতি?নাকি উচ্চ পদস্থ তদ্বিরি?
    Total Reply(0) Reply
  • Hira Akluch ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৮ এএম says : 0
    জমাত, বি এন পির কতজনের রিমান্ড হল কিন্ত জেল গেইট থেকে ফিরে যেতে দেখলাম না।
    Total Reply(0) Reply
  • Enamul Islam ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৮ এএম says : 0
    এই বিচার কি হবে না ? সন্দেহজনক ব্যপার শুরু হয়ে গেছে ,
    Total Reply(0) Reply
  • Kamal Pasha Jafree ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৮ এএম says : 0
    ভয়ে কেউ যাবে না,আগে হুমকি দিয়ে রেখেছে যেই সাক্ষী দিবে তাকে শেষ করে দিবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Zamal U Ahmed ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৪:১৯ এএম says : 0
    স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের তদন্ত টীমের ৭ দিন সময় কবে শেষ হবে? এখন আবার এতদিন পর ঐ একই টীম গণ শুনানী করবে। সময় ক্ষেপন নয়তো? কেন র‍্যাবের তদন্ত টীম কি গণ শুনানী করতে পারতো না? ৮/৯ দিন আগে র‍্যাবের তদন্ত দল কর্তৃক সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত তিন খুনীর রিমান্ড মঞ্জুর হলেও এখনও র‍্যাবকে উপরের নির্দেশে রিমান্ডে নেয়ার অনুমতি স্থগিত করার বিষয়টি সচেতন সকল মহল ভালোভাবে নিচ্ছেনা, এটি কর্তৃপক্ষ বুঝতে পারলেই ভালো।
    Total Reply(0) Reply
  • গোলাম ফারুক ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১১:১৩ এএম says : 0
    এই ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে দেশের মানুষের আইন ও আদালতের প্রতি আস্থা হারিয়ে যাব
    Total Reply(0) Reply
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ১৪ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩১ এএম says : 0
    বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একজন(অব)মেজর পুলিশের গুলিতে জীবন্ত মৃত্যু। দিবারাত্রির সত‍্য। বাংলাদেশের মানুষ সকল আইন শৃংখলা বাহিনী ঘটনা বুঝতে বাকী নেই হয়তো। নির্বাহী প্রধান সেনা প্রধান পুলিশ প্রধান এই মর্মান্তিক ঘটনায় যার যার অবস্থান হতে অত্যন্ত শক্তিশালী গুরুত্বপূর্ণ ব‍্যাক্তি। এই জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ব‍্যাক্তিদের নজরে থাকা ঘটনা নয় ছয় করা য়ায় না। সরকারের শক্তিশালী অবস্থানের কারণে। প্রদীপ লিয়াকত গং অপরাধী। পুলিশের মামলা প্রায়তো শেষ প্রয‍্যায়ে সিনহার বোন এর মামলায় গ্রেফতারকৃত রিমান্ডের আসামীদের বিরুদ্ধে প্রস্তুতি চলছে। এই সব মামলা মাসের মাস বসরের পর বসর চলবে। আমাদের কি করার আছে। সরকার যেভাবেই চায়। আইন শৃংখলা বাহিনী প্রাপ্ত তথ্য অনুসন্ধানী আইন গতভাবে নিরাপেক্ষ করছে মনে হয়। আমাদের ধৈর্য্য ধরতে হবে। মামলার প্রত‍্যেক্ষ দর্শি সাক্ষী জাতিয় সংঘের মহাসচিবের চাপে ঘটনার প্রকৃত বিবরণ দিচ্ছেন না। মেজর সিনহার গল্পের নায়িকা সমগ্র জাতির সাথে অভিনয় করে যাচ্ছে মামলায় বাদীরা ভদ্রলোক শান্ত তাহাদের মতামত কি?
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিনহা


আরও
আরও পড়ুন