Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

সিলেটে অর্থ আত্মসাথের ঘটনায় বহিষ্কৃত শ্রমিক

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২০, ৩:০২ পিএম

নেতা ফলিকের বিরুদ্ধে ৩ টি চেক ডিজনার মামলা দায়ের শ্রমিকের কল্যাণ তহবিলের অর্থ আত্মসাথের অভিযোগে সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি পদ থেকে বহিষ্কৃত

সেলিম আহমদ ফলিকের বিরুদ্ধে এবার ৩টি চেক ডিজনার মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জানা যায়, গত ৬ আগষ্ট সিলেট জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুনু মিয়া, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিম, সহ- সাধারণ সম্পাদক হাজী মইনুল ইসলাম সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট ৩য় আদালতে এন. আই .এ্যাক্টের ১৩৮ ধারায় এ ৩টি চেক ডিজঅনার মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১১৫/১১৬/১১৭। সেলিম আহমদ ফলিক গত ২৫, ২৭ ও ৩০ জুন ন্যাশনাল ব্যাংক গোলাপগঞ্জ শাখার ৩টি চেক ১৫ লক্ষ টাকা করে সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নামে প্রদান করেন। শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে চেকগুলো নগদায়নের জন্য রুনু মিয়া, আব্দুল মুহিম, হাজী মইনুল ইসলাম ষ্টেশন রোড পূবালী ব্যাংক শাখায় উপস্থাপন করলে চেকগুলো ২৮ ও ৩০ জুন ডিজঅনার হয়। এঘটনায় ৫ জুলাই রুনু মিয়া, আব্দুল মুহিম, হাজী মইনুল ইসলাম আইনজীবীর মাধ্যমে ডাকযোগে সেলিম আহমদ ফলিকের ঠিকানায় লিগ্যোল নোাটিশও প্রদান করেন। নোটিশের মাধ্যমে ফলিককে ৩০ দিনের মধ্যে উল্লেখিত টাকা নগদে পরিশোধ করার জন্য আনুরোধ করা হয়। কিন্তু লিগ্যাল নোটিশ পাঠানোর পরও সেলিম আহমদ ফলিক কোন টাকা পরিশোধ করেন নাই। তাই রুনু মিয়া, আব্দুল মুহিম, হাজী মইনুল ইসলাম ৬ আগষ্ট বাধ্য হয়ে এন. আই .এ্যাক্টের ১৮৮১ এর ১৩৮ ধারায় ৩টি চেক ডিজঅনার মামলা দায়ের করেন। এদিকে সাধারণ শ্রমিকরা ফলিকের দুর্নীতি আর অপকর্ম থামাতে তার বিরুদ্ধে আইনমূলক ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপও কামনা করেন তারা। এব্যাপারে সিলেট জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুনু মিয়া মামলার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ৩টি চেকে ৪৫ লাখ টাকা ছিল। কিন্তু কোনটিই নগদায়ন করতে পারেননি বহিস্কৃত নেতা সেলিম আহমদ ফলিক। এই টাকাগুলো শ্রমিকের কল্যান তহবিলের। ফলিক এর বিরুদ্ধে প্রায় ৩কোটি আতœসাথের অভিযোগ রয়েছে পরিবহন শ্রমিকদের। কিন্তু সেই টাকা কোথায় কিভাবে খরচ করেছেন তার কোন সন্তোষজনক জবাব এখন পর্যন্ত দিতে পারেননি ওই শ্রমিক নেতা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ