Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬, ১৭ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী।

মিশরে বিমান হামলায় আইএস নেতাসহ ৪৫ জনকে হত্যার দাবি

প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০১৬, ১২:০০ এএম

আনসার বেইত আল-মাকদিস গ্রুপের ওপর বিমান হামলা চালায় মিশরীয় সেনাবাহিনী
ইনকিলাব ডেস্ক : মিশরের সেনাবাহিনী দাবি করেছে, ধারাবাহিক বিমান হামলায় মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জিহাদি সংগঠন আইএস-এর সিনাই উপত্যকা শাখার প্রধান আবু দুয়া আল আনসারি নিহত হয়েছেন। এছাড়া ওই বিমান হামলায় আইএস-এর আরও কয়েকজন সদস্য নিহত হয়েছে বলেও দাবি করা হয়েছে। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, আইএস-সংশ্লিষ্ট সিনাইয়ের জঙ্গি সংগঠন আনসার বেইত আল-মাকদিস গ্রুপের ওপর বিমান হামলা চালায় মিশরীয় সেনাবাহিনী। আল-আরিশ শহরের কাছে আইএসের শক্ত অবস্থান লক্ষ্য করে ওই বিমান হামলা চালানো হয়। এক বিবৃতিতে মিশরের সেনাবাহিনীর দাবি, ওই অভিযানে ৪৫ জনেরও বেশি নিহত হয়েছে এবং বেশ কয়েকজন আহত হয়েছে। তাছাড়া ওই অভিযানে বেশ কিছু অস্ত্রও ধ্বংস করা হয়েছে। অবশ্য সেনাবাহিনীর এ বিবৃতির ব্যাপারে সিনাইয়ের আইএস শাখার পক্ষ থেকে কোনো মন্তব্য করা হয়নি। মিশরের সেনাবাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ সামির ফেসবুকে এক পোস্টে জানান, যথাযথ গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পরিচালিত অভিযানে আনসারি নিহত হন। তবে এই অভিযান কখন পরিচালিত হয়েছে, তা উল্লেখ করেননি তিনি। ২০১৩ সালে মিশরের সাবেক প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির নেতৃত্বাধীন মুসলিম ব্রাদারহুড সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করে সেনাবাহিনী। এরপর থেকেই দেশটিতে জঙ্গি তৎপরতা বেড়ে যায়। আল-আরাবি আল-জাদিদ নামের লন্ডনভিত্তিক একটি ওয়েবসাইটের সাম্প্রতিক জরিপে বলা হয়, সিনাইয়ের আইএস শাখা মার্চের দুই সপ্তাহে ৩১টিরও বেশি হামলা চালিয়েছে। প্রোপাগান্ডা ভিডিও প্রচার তৈরি করতেও দেখা যায় এ সংগঠনকে। গত বুধবার আইএসের সিনাই শাখার এক ভিডিওতে ইসরাইলকে হুমকি দিয়ে বলা হয়, দেশটিকে শিগগিরই চরম মূল্য দিতে হবে। সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আইএস’র সিনাই প্রধান আবু দুয়া আল-আনসারি নিহত হয়েছেন। সঙ্গে নিহত হয়েছে আরও কয়েক ডজন ব্যক্তি। বিমান হামলায় এদের হত্যা করা হয়। আল-আরিশ শহরে জিহাদীদের শক্ত ঘাঁটিতে এই হামলা চালানো হয় জানানো হয়েছে। মিশরে এই সিনাই থেকেই জোর তৎপরতা চালাতো আইএস। প্রায়শই তারা কায়রো ও সিনাইয়ে অতর্কিত হামলা চালাতো। সেনাবাহিনীর এই অভিযানে মোট ৪৫ জন নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে আরও কয়েক ডজন। ব্রিগেডিয়ার সামির বলেছেন, আনসারি খুন হয়েছে। সুনির্দিষ্ট গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে অত্যন্ত সফল অভিযান সম্পন্ন হয়েছে। তবে ঠিক কখন এই অভিযানটি চালানো হয় তা ওই ফেসবুক পোস্টে জানাননি জেনারেল সামির। পরে আইএস একটি ছবি প্রকাশ করে যাতে দেখা যায়, আনসারির জানাযা শেষে দাফনের জন্য নিয়ে যাচ্ছে। বিবিসি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন