Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫ আশ্বিন ১৪২৭, ০২ সফর ১৪৪২ হিজরী

আজ (১৬ আগষ্ট) মেজর সিনহা হত্যা মামলার প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানী

রিমান্ডে ৭ আসামী, চমকপ্রদ তথ্য পাচ্ছেন র‍্যাব

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২০, ৪:৪০ পিএম

টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যায় গ্রেপ্তার ১০ আসামীর মধ্যে ৭ আসামীকে র‍্যাব হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। ওই ৭ আসামি হচ্ছে-কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া ও পুলিশের মামলার তিন সাক্ষী যথাক্রমে- নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মোঃ আয়াজ। এর পরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে আসামী ওসি প্রদীপ, লিয়াকত ও নন্দ দুলাল রক্ষিতসহ তিন জনকে। জানাগেছে তাদের নিকট থেকে অনেক চমকপ্রদ তথ্য পাচ্ছেন মামলা তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাব। তবে তা এখনই প্রকাশ করা হচ্ছেনা।

ওদিকে মেজর সিনহা হত্যার আলোচিত ঘটনা তদন্তে আজ (১৬ আগষ্ট) রোববার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানীর আয়োজন করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি। ইতোপূর্বে গত ১২ আগষ্ট এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তদন্ত কমিটির সদস্য ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির এ সদস্য জানিয়েছেন, ১৬ আগষ্ট সকাল ১০টা থেকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গদের গণশুনানীর আয়োজন করা হয়েছে।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে ‘গাড়ী তল্লাশীকে’ কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।

এ আলোচিত ঘটনার তদন্তে গত ২ আগষ্ট কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলিকে প্রধান এবং পুলিশ সুপারের একজন প্রতিনিধি (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) ও সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধির সমন্বয়ে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পরদিন ৩ আগস্ট কমিটি পুনর্গঠন করে চার সদস্য বিশিষ্ট করা হয়। এতে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করা হয়।

এই কমিটির সদস্য রাখা হয়, কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) এর একজন প্রতিনিধি এবং সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধি।

তদন্ত কমিটির সদস্য ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলী বলেন, টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহত হওয়ার ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে গণশুনানী অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নির্ধারিত সময় ও তারিখে উপস্থিত হয়ে গণশুনানীতে অংশগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে অবহিতও করা হয়েছে বলে তিনি জানান।

এছাড়া গণশুনানী আয়োজনের বিষয়ে প্রস্তুতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট পর্যায়ে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান মোহাম্মদ শাজাহান আলি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন