Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ০৯ সফর ১৪৪২ হিজরী

টেকনাফ বাহারছরায় মেজর সিনহা হত্যার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে র‍্যাব

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৫ আগস্ট, ২০২০, ৮:১১ পিএম

৩১ জুলাই টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত সেনবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ হত্যাকাণ্ডের স্থান পরিদর্শন করেছেন ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‍্যাব-১৫ এর কর্মকর্তারা।

১৫ আগস্ট বিকেলে মেজর সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌসের দায়ের করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসপি খাইরুল ইসলামের নেতৃত্বে র‍্যাব-১৫ এর সদস্যরা টেকনাফ বাহারছরা শামলাপুর এলাকার পুলিশ চেকপয়েটের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

র‍্যাবের তদন্তকারী দলটি প্রায় ঘণ্টাব্যাপী ঘটনাস্থলে অবস্থান করে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে নানা ধরনের তথ্য সংগ্রহ করেন। এসময় ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সহ এলাকার মানুষ জনকে মেজর সিনহা হত্যার ব্যাপারে নির্ভয়ে যেকোনো ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান। এ ব্যাপারে কেউ হুমকি ধমকি দিলে সাথে সাথে বিষয়টি র‍্যাবকে
জানানোর জন্যও অনুরোধ জানান কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য গত ৩১ জুলাই টেকনাফ বাহারছড়ার শামলাপুর পুলিশ চেক পয়েন্টে পুলিশের গুলিতে নির্মমভাবে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এই ঘটনায় মেজর শাহরিয়ার ফেরদৌস বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এই মামলায় টেকনাফ থানার বরখাস্ত করা ওসি প্রদীপ দাস বাহারছরা শামলাপুর পুলিশ চেকপয়েন্টের আইসি লিয়াকত আলী ও এসআই নন্দ দুলাল সহ ৯পুলিশকে আসামি করা হয়েছে। র‍্যাব ওই ঘটনায় পুলিশের করা মামলার সাক্ষীকে হত্যার সাথে জড়িত থাকার সন্দেহে গ্রেপ্তার করেছে।

আদালত এই চাঞ্চল্যকর মামলা তদন্তের জন্য দায়িত্ব দিয়েছেন এলিট ফোর্স র‍্যাবকে। ইতিমধ্যে আদালত ওসি প্রদীপ আইসি লিয়াকত সহ ৭ পুলিশ সদস্য এবং পুলিশের করা মামলার তিন সাক্ষীসহ ৭ জনের রিমান্ড মন্জু করেছে।

গত শুক্রবার ৪ পুলিশ সদস্য ও পুলিশের করা মামলার ৩ সাক্ষীসহ ৭ জনকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করছে র‍্যাব। তবে বরখাস্ত ওসি প্রদীপ, আইসি লিয়াকত ও এসআই নন্দ দুলালকে আরো পরে রিমান্ডে নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

এদিকে ১৬ আগষ্ট রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি গণশুনানির আয়োজন করেছেন মেজর সিনহা হত্যার ঘটনাস্থল টেকনাফ বারছরা শামলাপু পুলিশ চেকপয়েন্ট এলাকায়। তদন্ত কমিটির পক্ষ থেকে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী এবং এলাকাবাসীকে নির্ভয়ে গণশুনানীতে অংশ গ্রহণ করার অনুরোধ জানানো হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মেজর সিনহা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ