Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

নির্বাচনকে ঘিরে সরব ব্যাডমিন্টন

বাহারের বিরুদ্ধে অভিযোগ বিস্তর

জাহেদ খোকন | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:০০ এএম

বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হবে ১ সেপ্টেম্বর। স্বাভাবিক নিয়মেই ফেডারেশনের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য এরপরই অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা নির্বাচন। আশা করা যাচ্ছে খুব শিঘ্রই হবেও তাই। করোনাভাইরাসের প্রভাবে নির্বাচনকালীন অ্যাডহক কমিটি গঠন না হওয়ায় বর্তমান কমিটির অধীনেই হবে এই নির্বাচন। ফলে সারাবছর হাতেগোনা ৩/৪ টি কার্যক্রম নিয়ে যতটা না ব্যস্ত থাকে ব্যাডমিন্টন ফেডারেশন নির্বাচনকে ঘিরে এখন তারচেয়েও অনেক বেশী সরব তারা। করোনাকাল না কাটলেও স¤প্রতি সীমিত আকারে খেলাধূলা আয়োজনের নির্দেশনা দিয়েছে সরকার। তাই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে মাঠে নেমে গেছেন ব্যাডমিন্টনের সাবেক ও বর্তমান কর্মকর্তারা। তবে মেয়াদ শেষের আগেই বিস্তর অভিযোগ উঠেছে ফেডারেশনের বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক আমির হোসেন বাহারের বিরুদ্ধে। যিনি সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়ার আগে এ কমিটিরই সিনিয়র সহ-সভাপতি ছিলেন। ইতোমধ্যে বাহারের নেতৃত্বাধীন কমিটির ব্যর্থতার বিস্তারিত তুলে ধরে একটি অভিযোগপত্র জমা পড়েছে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলের কাছে। বিশ্বস্ত সুত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।
অতীতের কামরুন নাহার ডানা, মরিয়ম তারেক, আবুল হাশেম, গোলাম আজিজ জিলানী বা হলের শাপলা আক্তার, এলিনা সুলতানা, গৌরব সিংহ, সিবগাতুল্লাহরা বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টনের কিংবদন্তী। তারা যতটা না পরিচিত, নেতিবাচক কর্মকান্ডের জন্য তারচেয়ে বেশী পরিচিতি আছে ফেডারেশন কর্তাদের। অভিযোগ আছে খেলা আয়োজনসহ নানামূখী কর্মকান্ডের জন্য এক সময়ের জমজমাট ফেডারেশনটির সুদিন ফিরিয়ে আনতে কোনো আগ্রহই নেই বর্তমান কমিটির। ফলে নির্বাচনকে সামনে রেখে অনেকটা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছেন বাহারের প্রতিপক্ষরা।
ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীর কাছে লিখিত অভিযোগে জানা যায়, নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করেই সাধারণ সম্পাদকের চেয়ারে বসেছেন আমির হোসেন বাহার। ২০১৬ সালে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক ফি.ম শামসুল আরেফিন ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের দায়িত্বগ্রহণের পরের বছরই দুরারোগ্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তার মৃত্যুর পর জাতীয় ক্রীড়া পরিষদকে (এনএসসি) পাশ কাটিয়ে এবং নির্বাচন উপেক্ষা করেই সাধারণ সম্পাদক হন তৎকালীন সিনিয়র সহ-সভাপতি বাহার। এই ঘটনার পর তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক (নির্বাচিত প্রথম যুগ্ম সম্পাদক) গোলাম আজিজ জিলানী পদত্যাগ করেন।
অভিযোগে আরও জানা যায়, বাহার নিয়মকানুন না মেনে সহ-সভাপতিদের ক্রম পরিবর্তন করেছেন। একজন সদস্যকে সহ-সভাপতি করেছেন ঠিকই কিন্তু শূণ্য পদগুলো পূরন করেন নাই। শুধু তাই নয়, মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার ৯০ দিন আগে এনএসসি’কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য চিঠি দেননি বাহার। উল্টো সম্প্রতি ফেডারেশন থেকে অ্যাডহক কমিটি গঠন করার জন্য ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও এনএসসি’তে চিঠি দিয়ে বিধি ও গঠনতন্ত্র লংঘন করেছেন তিনি। এছাড়া অভিযোগকারীদের বক্তব্য- ফেডারেশনের ২৭ সদস্যের বর্তমান কমিটির ২৪ জনেরই ব্যাডমিন্টন সংশ্লিষ্ট জ্ঞান বা পূর্ব অভিজ্ঞতা নেই। বর্তমান কমিটির অনেকেই মামলার আসামী হয়ে জেল খেটেছেন। একজন নারী নির্যাতন মামলায় জেলখাটা আসামি এবং ব্যাডমিন্টনে নারী কেলেঙ্কারির দায়ে ২০১১ সালে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কৃত। লিখিত অভিযোগে বলা হয়, গত বছরের শুরুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মাত্র ২৩ বছর বয়সী এক ছাত্রকে ফেডারেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। যার মাসিক বেতন ১২ হাজার টাকা। এই খরচকে ফেডারেশনে দেয়া এনএসসি’র অনুদানের অর্থ অপচয় বলে মনে করছেন দেশের ব্যাডমিন্টনবোদ্ধারা।



 

Show all comments
  • MD.SAGOR SORDAR ৮ অক্টোবর, ২০২০, ১০:৪৯ এএম says : 0
    আসসালামু আলাইকুম। আমার বাসা রাজশাহীর বাগমারা আমি ব্যাডমিন্টন ভালোখেলি আমি জাতীয় ব্যাডমিন্টন খেলতে চাই কিন্তু কি ভাবে আমি জাতীয় খেলোয়ার হতে পরি।আমাকে যদি বলতেন তাহলে ভালো হতো।প্লিজ প্লিজ আমাকে জানালে আমি আপনার প্রত‌ি খুব খুশি হবো।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্যাডমিন্টন

২০ ডিসেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন