Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ১৬ জানুয়ারি ২০২১, ০২ মাঘ ১৪২৭, ০২ জামাদিউল সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

খুনের রহস্য জানতে উদগ্রীব মানুষ

৭ আসামি র‌্যাবের রিমান্ডে টেকনাফে প্রত্যক্ষদর্শীদের গণশুনানি আজ

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৭ আগস্ট, ২০২০, ১২:০১ এএম

টেকনাফে পুলিশের গুলিতে মেজর (অব) সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান হত্যায় গ্রেফতার ১০ আসামির মধ্যে ৭ আসামিকে র‌্যাব হেফাজতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। আসামিরা কী তথ্য দিচ্ছেন তা তদন্তকারীরা প্রকাশ করেননি। তবে কক্সবাজারের উৎসুক মানুষের মধ্যে ‘তথ্য’ তথা হত্যা রহস্য জানার আগ্রহ প্রবল। চঞ্চল্যকর খুনের প্রকৃত রহস্য জানতে মানুষ প্রহর গুনছেন। ৭ আসামিকে র‌্যাবের রিমান্ডে নেয়ার পর থেকে কক্সবাজার, টেকনাফের হাট-বাজার, অফিস-আদালত, মাঠঘাট সর্বত্রই মানুষের আলোচনা কী তথ্য দিচ্ছেন অভিযুক্তরা? গণমাধ্যম কর্মী দেখলেই মানুষ জিজ্ঞাস করছেন সিনহা হত্যা মামলায় রিমান্ডে আসামিরা কি তথ্য দিচ্ছেন?

মামলার আসামি প্রদীপ কুমার দাশ, লিয়াকত আলী, নন্দলাল রক্ষিতকে এখনো রিমান্ডে নেয়া হয়নি। তারা কক্সবাজার কারাগারে রয়েছেন। তবে রিমান্ডে নেয়া ৭ আসামি হচ্ছে কনস্টেবল সাফানুর করিম, কনস্টেবল কামাল হোসেন, কনস্টেবল আবদুল্লাহ আল মামুন, এএসআই লিটন মিয়া ও পুলিশের মামলার তিন সাক্ষী যথাক্রমে- নুরুল আমিন, নিজাম উদ্দিন ও মো: আয়াজ। এর পরে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে আসামি ওসি প্রদীপ, লিয়াকত ও নন্দলাল রক্ষিতসহ তিনজনকে। জানা গেছে তাদের কাছ থেকে অনেক চমকপ্রদ তথ্য পাচ্ছেন মামলা তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব। তবে তা এখনই প্রকাশ করা হচ্ছে না। তদন্তের স্বার্থেই তা প্রকাশ করা হচ্ছে না।

এদিকে মেজর সিনহা হত্যার আলোচিত ঘটনা তদন্তে আজ রোববার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের নিয়ে গণশুনানি করবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি। ইতোপূর্বে গত ১২ আগস্ট এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন তদন্ত কমিটির সদস্য ও কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির এ সদস্য জানিয়েছেন, ১৬ আগস্ট সকাল ১০টা থেকে টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর এলাকায় অবস্থিত রোহিঙ্গা ক্যাম্প ইনচার্জ (সিআইসি) কার্যালয়ে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা নিহত হওয়ার ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গদের গণশুনানির আয়োজন করা হয়েছে।

গত ৩১ জুলাই রাতে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের টেকনাফের শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে ‘গাড়ি তল্লাশিকে’ কেন্দ্র করে পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান।
এ আলোচিত ঘটনার তদন্তে গত ২ আগস্ট কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলিকে প্রধান এবং পুলিশ সুপারের একজন প্রতিনিধি (অতিরিক্ত পুলিশ সুপার) ও সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধির সমন্বয়ে তিন সদস্যবিশিষ্ট কমিটি গঠন করেছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।

পরদিন ৩ আগস্ট কমিটি পুনর্গঠন করে চার সদস্যবিশিষ্ট করা হয়। এতে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করা হয়। এই কমিটির সদস্য রাখা হয় কক্সবাজারের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শাজাহান আলি, পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জের অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (ডিআইজি)-এর একজন প্রতিনিধি এবং সেনাবাহিনীর রামু ১০ পদাতিক ডিভিশনের জিওসির একজন প্রতিনিধি।

তদন্ত কমিটির সদস্য ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট শাজাহান আলি বলেন, টেকনাফে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহত হওয়ার ঘটনায় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে গণশুনানি অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিবর্গকে নির্ধারিত সময় ও তারিখে উপস্থিত হয়ে গণশুনানিতে অংশগ্রহণের জন্য ইতোমধ্যে অবহিতও করা হয়েছে বলে তিনি জানান। এছাড়া গণশুনানি আয়োজনের বিষয়ে প্রস্তুতির পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট পর্যায়ে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান মোহাম্মদ শাজাহান আলি।

র‌্যাবের ঘটনাস্থল পরিদর্শন : এদিকে ৩১ জুলাই টেকনাফে পুলিশের গুলিতে নিহত সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ হত্যাকান্ডের স্থান পরিদর্শন করেছেন ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার তদন্তকারী সংস্থা র‌্যাব-১৫ এর কর্মকর্তারা। গতকাল মেজর সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌসের দায়ের করা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এএসপি খাইরুল ইসলামের নেতৃত্বে র‌্যাব-১৫ এর সদস্যরা টেকনাফ বাহারছরা শামলাপুর এলাকার পুলিশ চেকপয়েটের ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

র‌্যাবের তদন্তকারী দলটি প্রায় ঘণ্টাব্যাপী ঘটনাস্থলে অবস্থান করে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে নানা ধরনের তথ্য সংগ্রহ করেন। এসময় ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীসহ এলাকার মানুষ জনকে মেজর সিনহা হত্যার ব্যাপারে নির্ভয়ে যেকোনো ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানান। এ ব্যাপারে কেউ হুমকি ধমকি দিলে সাথে সাথে বিষয়টি র‌্যাবকে জানানোর জন্যও অনুরোধ জানান কর্মকর্তারা।



 

Show all comments
  • Md. Altaf ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
    সাবেক মেজর সিনহা হত্যা কান্ড নিয়ে তামাশা জাতি মেনে নিবে না, অনেক হয়েছে আর হতে দেয়া সরকারের জন্য শুভ বুদ্ধির পরিচয় হবে না, দেশবাসী আশা করে এ হত্যা কান্ড নিয়ে সরকার সঠিক পথে এগিয়ে যাবে,
    Total Reply(0) Reply
  • Shahdot Hossin ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
    এসপি,প্রদীপ আর লিয়াকতের আগে ফাঁসি চাই। তা না হলে এই দেশে ৭১ কে মানবো না
    Total Reply(0) Reply
  • Mohin Uddin Molla ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:৫৯ এএম says : 0
    আমি চাই সঠিকভাবে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে,দোষীদের মৃত্যুদন্ড যেনো দেওয়া হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Kopil Uddin Chowdhury ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০০ এএম says : 0
    এর রহস্য জানা হবে না,রহস্য রহস্যই থেকে যাবে,প্রদীপের আলো নেভাবে কে?
    Total Reply(0) Reply
  • Sharif Uddin ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০২ এএম says : 0
    এসপি, ডিআইজি, সবাই জড়িত টাকার জন্য এরা ঢাল হিসাবে প্রদীপজ্বালিয়ে রাখছিলেন।প্রদীপ একদিনে জ্বলে নাই অনেক সাধনার পর জলসে,অনেকে টাকার মালিক বানাইছে।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Rashed ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০২ এএম says : 0
    টেকনাফ থানার সাবেক বিতর্কিত ওসি প্রদীপ ও লিয়াকত গত তিন বছরে অর্জিত স্থাবর ও অস্থাবর, পরিবারের সদস্য ও তার কাছে দূরের সকল আত্মীয় স্বজনদের ব্যাংক হিসাব খতিয়ে দেখা অতিব জরুরী। এ ব্যাপারে দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন টেকনাফ বাসী। আর টেকনাফ বাসীর দাবী কোনো কথা ছাড়া ফাশি চাই ।সেই একজন ভারতের দালাল
    Total Reply(0) Reply
  • কে এম শাকীর ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০৩ এএম says : 0
    অপরাধী পুলিশের কঠোর শাস্তির বিধানসহ ১৮৬১ সালের পুলিশ আইন পরিবর্তনের সময়োপযোগী উদ্যোগ সরকার এবং জাতীয় সংসদকে গ্রহণ করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • তোফাজ্জল হোসেন ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০৪ এএম says : 0
    মেজর (অব.) সিনহার হত্যাকান্ডের মধ্য দিয়ে প্রমানীত হয়েছে ওসি প্রদীপ কুমার দাস ও তার সাঙ্গ-পাঙ্গরা কতটা বেপরোয়া দানবীয় শক্তিতে পরিণত হয়েছিল।
    Total Reply(0) Reply
  • কামাল রাহী ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১:০৫ এএম says : 0
    শাসক শ্রেণীর রাজনৈতিক স্বার্থে দেড়শ’ বছরের পুরনো পুলিশ আইনের যে সব ধারা পুলিশকে জনগণের উপর বেপরোয়া ক্ষমতা প্রয়োগের সুযোগ দিচ্ছে, সেসব আইন বাতিল না করলে পুলিশকে জনবান্ধব করে তোলা অসম্ভব।
    Total Reply(0) Reply
  • saif ১৬ আগস্ট, ২০২০, ৯:৩৩ এএম says : 0
    সেই আশায় গুড়েবালি, আল্লাহ্‌ আমাদের দেশকে রক্ষা করুণ এবং আমাদেরকে হিদায়েত নসিব করুণ।
    Total Reply(0) Reply
  • সালাম সালাম গফফার ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১০:০৮ এএম says : 0
    সিনহা হত্যার ন্যায় বিচার দেশবাসী দেখতে পাবে কিনা সন্দেহ আছে। তার পরও আশা রাখতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Unit chief ১৬ আগস্ট, ২০২০, ১২:১৮ পিএম says : 0
    কিন্তু রহস্য জানা যাবে বলে মনে হয় না
    Total Reply(0) Reply
  • Md Rejaul Karim ১৬ আগস্ট, ২০২০, ৫:৩৪ এএম says : 0
    আসলে আমাদের দেশের এটি পুরনো সংস্কৃতি একটি ঘটনা ঘটলে কিছু দিনের জন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় উঠে তার পরে আর নাই আল্লাহর অস্হে আরেকটি নতুন কিছু সামনে এসে আগেরটি ধামাচাপা পড়ে যায়।। প্রতিটা মানুষ রাষ্ট্রের কাছে স্বাভাবিক মৃত্যুই কামনা করে কিন্তুু দুঃখের বিষয় হলেও সত্য বর্তমান প্রেক্ষাপটের সরকার বর্থ্য হয়েছে।।। বর্থ্যতার পাশে সফলতা থাকাই স্বাভাবিক কাজেই আর যেন মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাসেদের মত বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড আর না হয় ।। অনন্তপক্ষে এই গ্যারান্টি সরকারের দেয়া উচিত।। প্রতিটা হত্যাকারী কে আল্লাহর দরবারে হাজির জবাবদিহি করতেই হবে।।। বর্তমান প্রেক্ষাপট সরকারের সংশ্লিষ্ট দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের আল্লাহর নিকট আত্মসমর্পণ করে তওবা করে ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত।।।। মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাসেদের হত্যার বিচার চাই মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাসেদের হত্যার পরিকল্পনা কে নাম প্রকাশ করে সংশ্লিষ্ট আইনে বিচার নিশ্চিত করা উচিত।।। রাঘোব বোয়ালদের নির্দেশিকা ছাড়া কোন ভাবেই এধরনের ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটা অসম্ভব।। সঠিক তদন্তের মাধ্যমে সঠিক বিচারটি হোক প্রত্যশা করি।।।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিনহা হত্যা

১৪ ডিসেম্বর, ২০২০
৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ