Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ অক্টোবর ২০২০, ১২ কার্তিক ১৪২৭, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

‘পাকিস্তানে গিয়ে দায় মেটানো উচিত ইংল্যান্ডের’

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৮ আগস্ট, ২০২০, ১২:০০ এএম

প্রথম দিন থেকেই ইংল্যান্ড পাকিস্তান টেস্টে চলছে বৃষ্টির দাপট। চতুর্থ দিনেও এসেও পরিস্থিতি বদলায়নি। এদিন কেবল পাকিস্তানের ইনিংস শেষ করে ব্যাটিং পেয়েছে ইংল্যান্ড। এইজেস বোলে খেলা হয়েছে কেবল ১০.২ ওভার। ৯ উইকেটে ২২৩ রান নিয়ে নামা পাকিস্তান ২৩৬ রানে অলআউট হয়ে যাওয়ার পর ৫ ওভার ব্যাট করেছে ইংল্যান্ড। তাতে ১ উইকেটে ৭ রান তাদের। গতকাল শেষ দিনের মধ্যাহ্ন ভোজের বিরতি পর্যন্ত ভেজা আউটঢিল্ডের কারণে মাঠেই গড়াতে পারেনি মাচটি। ক্রিকেটের প্রথম দিককার দিনগুলো ফিরে এলেই শুধু এ টেস্টে কোনো দলের পক্ষে জয়ী হওয়া সম্ভব। এতক্ষণে জেনেও গেছেন কি ঘটেছে মাচের ভাগ্যে। তবু অনেকে সান্ত্বনা পাচ্ছেন, আর কিছু না হোক টেস্ট ক্রিকেট তো ফিরেছে। আর সফরে এসে ইংল্যান্ডে ক্রিকেট ফেরানোয় অবদান রেখেছে পাকিস্তানও। ওয়াসিম আকরাম চাচ্ছেন, এই অবদানের প্রতি কৃতজ্ঞতা হিসেবে এবার পাকিস্তানেও সফরে যাক ইংল্যান্ড।
কিংবদন্তি পেসারের আশা আশা বিপদে পাকিস্তান যেভাবে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, তা মনে রাখবে ইংল্যান্ড। পাকিস্তান যে আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের জন্য প্রস্তুত সেটা যে ইংলিশ ক্রিকেটাররাও জানেন এমনটাই দাবি তার। আইসিসির ভবিষ্যৎ সফর সূচি অনুযায়ী, ২০২২ সালের শেষ দিকে পাকিস্তানে তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলার কথা ইংল্যান্ডের। স্কাই স্পোর্টসে সিরিজটি নিয়ে নিজের ভাবনার কথা জানান ওয়াসিম, ‘তোমাদের (ইংল্যান্ড) পাকিস্তান ক্রিকেট ও দেশটির প্রতি কৃতজ্ঞ থাকা উচিত। কারণ ওরা এখানে সফরে এসেছে। ইংল্যান্ডের ক্রিকেটার-অ্যালেক্স হেলস ও ক্রিস জর্ডান এবার করাচি কিংসের হয়ে পাকিস্তান সুপার লিগে খেলেছে। ওদের বেশ ভালো লেগেছে, উপভোগ করেছে। ওদের দারুণ দেখেশুনে রেখেছে সবাই। আমি এ ব্যাপারে পাকিস্তান সরকার, বোর্ড ও পাকিস্তান দল ও কর্মীদের কৃতিত্ব দিতে চাই।’
ইংল্যান্ডের ওয়ানডে দলের সদস্য মঈন আলীও পাকিস্তান সফরের ব্যাপারে খুবই আগ্রহী। পাকিস্তানের মানুষদের ভালোবাসা পেয়ে মুগ্ধ এই অলরাউন্ডার। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে খেলা মঈনের দাবি, এমন ভালোবাসা খুব কমই জোটে ক্রিকেটারদের, ‘এমন না যে আপনি পারফরম্যান্সের জন্য আপনাকে সবাই অভিনন্দন জানাচ্ছে। সবাই বলে, “এখানে আসার জন্য ধন্যবাদ”। ওরা শুধু চায়, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটাররা সেখানে যাক এবং ওদের ক্রিকেট সংস্কৃতির অংশ হোক। ব্যাপারটা অসাধারণ।’
পিএসএলের সবশেষ আসরে খেলেছিলেন ইংল্যান্ডের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান অ্যালেক্স হেলস, অলরাউন্ডার ক্রিস জর্ডানের মতো খেলোয়াড়রা। সেবারই প্রথম এই টুর্নামেন্টের সব ম্যাচ হয় পাকিস্তানে। ওয়াসিম জানান, করাচি কিংসের হয়ে খেলা এই দুই ইংলিশ ক্রিকেটারই সেখানে নিজেদের সময় উপভোগ করেছেন, ‘পাকিস্তানে ওদের ভালো লেগেছে। তারা খুব উপভোগ করেছে। তাদের খুব ভালোভাবে দেখাশোনা করা হয়েছিল। তাই বলব, পিএসএল সঠিক পথেই আছে। ক্রিকেট ছাড়াও পাকিস্তানে দেখার অনেক কিছু আছে। তবে এবার খেলোয়াড়রা মনে হয় সারাদিন হোটেলে থেকে হতাশ হয়ে গিয়েছিল। আশা করি, আগামী বছর আমরা তাদের সিনেমা দেখতে, শপিং করতে যেতে দিতে পারব। আমি কথা দিচ্ছি, সেখানে মাঠে ও মাঠের বাইরে তাদের দেখাশোনা করা হবে এবং প্রতিটি ম্যাচে স্টেডিয়াম থাকবে দর্শকে পূর্ণ।’
২০০৫-০৬ সালে সর্বশেষ পাকিস্তান সফর করেছে ইংল্যান্ড। ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর তো সব দলই পাকিস্তান সফর বাতিল করেছে। অবশেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের দুয়ার খুলেছে তাদের। জিম্বাবুয়ে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ গত কয়েক বছরে পাকিস্তান ঘুরে এসেছে। পরিস্থিতি কিছুটা ভিন্ন। কিন্তু করোনাভাইরাসের প্রকোপের মাঝেও ইংল্যান্ডে এভাবে সফর করতে রাজি হয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানও কিন্তু বেশ সাহসিকতার পরিচয় দিচ্ছে। ৩৬ কোটি ৬০ লাখ ডলার ক্ষতির মুখে পড়েছিল ইংল্যান্ড ও ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড। যুক্তরাজ্য করোনা পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণে আনতে পারিনি, তবু তাদের বোর্ডের দেওয়া নিরাপত্তা বলয়ে আস্থা রেখে সফর করছে পাকিস্তান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পাকিস্তান

১৯ অক্টোবর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন