Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আমদানি হবে দেড় লাখ টন জ্বালানি তেল

ক্রয় কমিটির সভা শিক্ষার্থীদের জন্য ৭ কোটি ২০ লাখ বই ছাপানো হবে এবারও বই উৎসব দিবস পালন করতে চায় সরকার : অর্থমন্ত্রী

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০২০, ১২:০০ এএম

দেড় লাখ টন জ্বালানী তেল আমদানি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এতে সব মিলে ব্যয় হবে ৪৩৮ কোটি টাকা। অন্যদিকে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আগামী এক জানুয়ারি উৎসবমুখর পরিবেশে বই উৎসব পালন করতে চায় সরকার। এ উৎসব পালন করতে ৭ কোটি ২০ লাখ ৯ হাজার ৩৭৩টি বই মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহের ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দিয়েছে সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি। এতে ব্যয় হবে ১৩২ কোটি ৪১ লাখ টাকা। এসব বই সরবরাহের কাজ পেয়েছে দেশীয় ৯৮টি প্রতিষ্ঠান।

গতকাল কমিটির আহ্বায়ক অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে ভার্চুয়াল সভায় এসব প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকে কমিটির সদস্য, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সিনিয়র সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সচিব এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠক শেষে অর্থমন্ত্রী জুম প্লাটফর্মের মাধ্যমে ব্রিফিং এসব তথ্য জানান।

আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, প্রতিবছর একটা উৎসবমুখর পরিবেশে বই বিতরণ করে থাকি। এ বছরও আমরা সেটি করবো। এ জন্য ৭ কোটি ২০ লাখ ৯ হাজার ৩৭৩টি বই মুদ্রণ, বাঁধাই ও সরবরাহের ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এতে সরকারের ব্যয় হবে ১৩২ কোটি ৪১ লাখ ৫১ হাজার ৭৪৬ টাকা। বৈঠকে ২০২১ শিক্ষাবর্ষে প্রাথমিক পর্যায়ে শিক্ষর্থীদের (৩য়, ৪র্থ ও ৫ম শ্রেণি) জন্য বাংলা ও ইংরেজি ভার্সনের বিনামূল্যের বিতরণের জন্য সাত কোটি ২০ লাখ ৯ হাজার ৩৭৩টি বই সংগ্রহের একটি প্রস্তাবও অনুমোদন দেয়া হয়েছে।
তিনি বলেন, এ কাজের জন্য দরপত্র আহ্বান করা হলে এক হাজার ২২টি প্রতিষ্ঠান দরপত্রে অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে যাচাই-বাছাই করে ৯৮ টিকে এসব বই সরবাহের কাজ দেয়া হয়। এ ক্ষেত্রে যাদের অভিজ্ঞতা রয়েছে এবং দরপত্রে কম দাম উল্লেখ করে তাদেরকেই কাজ দেয়া হয়েছে।

দেড় লাখ টন জাহাজের তেল আমদানির প্রস্তাবও অনুমোদন দেয়া হয়েছে সভায়। জুলাই-ডিসেম্বর সময়ের জন্য দেড় লাখ টন জাহাজের জ্বালানি তেল আমদানি করবে সরকার। জি-টু-জি প্রক্রিয়ায় এসব তেল আমদানিতে সরকারের খরচ হবে প্রায় ৪৩৮ কোটি টাকা।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল এ প্রসঙ্গে বলেন, জি-টু-জি ভিত্তিতে যে ৭৫ হাজার টন মেরিন ওয়েল আমদানির একটি ক্রয় প্রস্তাবের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এর জন্য ব্যয় হবে ২১৬ কোটি ৭০ লাখ টাকা। জি-টু-জি সরবরাহকারী সংস্থা সিঙ্গাপুর ভিত্তিক পিটিটি ইন্টারন্যাশনাল ট্রেডিং লিমিটেড। জানা গেছে, ৭৫ হাজার টন মেরিন ওয়েল জি-টু-জি ভিত্তিতে সংগ্রহের জন্য ৬টি জি-টু-জি সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠানের কাছে কোটেশন চেয়ে গত ২৫ জুন বিপিসি চিঠি দেয়। এর জবাবে ৪টি প্রতিষ্ঠানের সাড়া পাওয়া যায়। এদের মধ্যে পিটিটি ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড সর্বনিম্ন কোটেশন দাতা হয়। তারাই ৭৫ হাজার মেট্রিক টন জ্বালানি তেল সরবরাহ করবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, সরকার চলতি বছরের জুলাই-ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ের জন্য আন্তর্জাতিক কোটেশনের মাধ্যমে আরও ৭৫ হাজার টন মেরিন ফুয়েল (০ দশমিক ৫ শতাংশ সালফার) আমদানি করার প্রস্তাবি করা হয়েছিল। কিন্তু যেহেতু বর্তমানে জ্বালানি তেলের দাম কম হওয়ায় জি-টু-জি ভিত্তিতে এসব তেল আমদানি করলে সুবিধা হবে। তাই ৭৫ হাজার টন মেরিন ফুয়েলও জি-টু-জি ভত্তিতে আমদানির জন্য অনুমোদন দেয়া হয়েছে। এজন্য ব্যয় হবে ২২২ কোটি টাকা।

সভায় মেঘনা নদীর উপর সেতু নির্মাণসহ তিন প্রস্তাবের নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে। পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপে (পিপিপি) ‘ভুলতা আড়াইহাজার-বাঞ্ছারামপুর সড়কে মেঘনা নদীর উপর সেতু নির্মাণ’ প্রকল্প নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়।
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের বলেন, ঢাকা হতে আড়াইহাজার-বাঞ্ছারামপুর হয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবং ভারতের আগরতলার সাথে দ্রুত সময়ে যোগাযোগের জন্য ‘ভুলতা-আড়াইহাজার-বাঞ্ছারামপুর সড়কের মেঘনা নদীর উপর সেতু নির্মাণ’ প্রকল্পটি প্রকিউরমেন্ট গাইডলাইনস পর পিপিপি প্রজেক্ট ২০১৮ এর ধারা অনুযায়ী পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশীপ (পিপিপি) ভিত্তিতে বাস্তবায়নে অনুমোদনের জন্য অর্থনৈতিক বিষয সংক্রান্ত মন্ত্রিসভায় উপন্থাপন করা হলে তাতে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বৈঠকে অনুমোদিত অন্যান্য প্রকল্পগুলো হলো- বিআইডবিøউটিএ’র বাস্তবায়নাধীন ‘৩৫টি ড্রেজার ও সহায়ক জলযানসহ আনুষাঙ্গিক সরঞ্জামাদি সংগ্রহ এবং প্রয়োজনীয় অবকাঠামো নির্মাণ’ শীর্ষক প্রকল্পের প্যাকেজ-০২ (লট-১ ও লট-২) এর আওতায় ১৭ টি টাগবোট সংগ্রহের লক্ষ্যে সরাসরি ক্রয় পদ্ধতি অনুকরণের প্রস্তাব নীতিগত অনুমোদন।

এছাড়া নীলফামারী জেলার সাবেক জুট ট্রেডিং কর্পোরেশন (জেটিসি) বর্তমান বাংলাদেশ জুট কর্পোরেশন (বিজেসি) এর মেসার্স হৃদকরন নামীয় অংগনের ০ দশমিক ০৯ একর সম্পত্তি ক্রেতা বরাবর রেজিস্ট্রি দলিল প্রদানের বিষয়ে নীতিগত অনুমোদন দেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অর্থমন্ত্রী


আরও
আরও পড়ুন