Inqilab Logo

ঢাকা রোববার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

কুয়াকাটা সৈকতে সাবমেরিন ক্যাবল এখন মাটির উপরে

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ আগস্ট, ২০২০, ৯:১০ পিএম | আপডেট : ১০:১৩ পিএম, ২০ আগস্ট, ২০২০

পটুয়াখালীর কুয়াকাটায় মাটির নিচ থেকে বেরিয়ে পড়েছে সমুদ্র থেকে উঠে আসা দেশের দ্বিতীয় সাব-মেরিন ল্যান্ডিংস্টেশনের হাই ভোল্টেজ ডিসি পাওয়ারের সংযোগ ক্যাবল। কুয়াকাটা সমুদ্র সৈকতের জিরো পয়েন্টের সামান্য পূর্বদিকে বেরিয়ে আসা এ ক্যাবল যেকোন অসাবধনতায় ক্ষতি সাধিত হলে বিছিন্ন হয়ে বন্ধ হয়ে যেতে পারে ল্যান্ডিং স্টেশনের সকল ধরনের সার্ভিস। ধারনা করা হচ্ছে বৃহস্পতিবার দুপুর দুটার সময় আস্বাভাবিক জোয়ারের ঢেউয়ের ঝাপটায় বালুক্ষয়ের ফলে মাটির অগভীরে থাকা এ ক্যাবল বেরিয়ে এসেছে।
বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিপিসিএল) উপ-মহাব্যবস্থাপক তরিকুল ইসলাম জানান, এটি একটি প্রাকৃতিক দুর্ঘটনা। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পর্যবেক্ষন করেছি। বিষয়টি উর্ধ্বতনদের জানানো হয়েছে। বর্তমানে (২৪ ঘন্টা) সার্বক্ষনিক নজরদারির জন্য সিকিউরিটি গার্ড নিযুক্ত করা হয়েছে। কুয়াকাটা পর্যটন পুলিশকে এ কাজে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুক’লে থাকলে শুক্রবার অথবা শনিবার সংস্কার কাজ শুরু করা হবে।
উল্লেখ্য ৯ আগস্ট আলীপুরের এক জমির মালিক স্কাবেটর দিয়ে বালু তুলতে গিয়ে সাবমেরিন ক্যাবলের (এসইএ-এমই-ডবিøউ-৫) পাওয়ার সাপ্লাই অপটিক্যাল ফাইবার ক্ষতিগ্রস্থ করে। এতে সারা দেশের গ্রাহকরা ইন্টারনেট ব্যবহারে ধীর গতির সমস্যায় পড়েন।
স্থানীয়রা জানান, কোন সাংকেতিক নির্দেশনা চিহ্ন ছাড়া মাটির সামান্য নিচ দিয়ে কুয়াকাটা সৈকত থেকে গোড়া আমখোলা পাড়ায় ল্যান্ডিং স্টেশন পর্যন্ত সংযোগ ক্যাবল টানার ফলে এমন দুর্ঘটনা ঘটছে।



 

Show all comments
  • ash ২০ আগস্ট, ২০২০, ৯:৪৭ পিএম says : 0
    AI HOCHE BANGLADESEH ER PROSHASHONER DAITTO GEAN
    Total Reply(0) Reply
  • miran ২১ আগস্ট, ২০২০, ২:০১ এএম says : 0
    ওখানকার থানার ওসি কে পাঠানো হোক জোয়ারের পানি বাড়ার সাথে যারা জড়িত তাদের ক্রসফায়ার দেওয়া হোক .এখন তো বাংলাদেশে এটাই ট্রেন্ড চলছে.সর্বত্র দুর্নীতি। খুজে দেখেন এখনে ও কোটি কোটি টাকা দুর্নীতি হোয়েছে।শুধু জোয়ারের এর কারণে সাবমেরিন কেবল লাইন উপরে উঠে গেছে এটা কিভাবে সম্ভব?বাংলাদেশী অসহায় লোকেরা হলেন তাদির কছে জিম্মি।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ