Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ২০ অক্টোবর ২০২০, ৪ কার্তিক ১৪২৭, ০২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগে কোনো প্রশ্ন নয় -এনবিআর চেয়ারম্যান

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০২০, ২:৫১ পিএম

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেছেন, অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোনো প্রতিষ্ঠান কোনো ধরনের প্রশ্ন করতে পারবে না বলে জানিয়েছেন

মঙ্গলবার (২৪ আগস্ট) এনবিআরের সম্মেলন কক্ষে মুজিববর্ষের কর্মসূচির অংশ হিসেবে পাইলট বেসিসে ইএফডি মেশিন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, কেউ যদি অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগ করতে চায় সেক্ষেত্রে কোনো প্রতিষ্ঠান প্রশ্ন করতে পারবে না। আমরা সব প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলেছি। যে সব প্রতিষ্ঠান এসব নিয়ে প্রশ্ন করেন, আমরা সবার সঙ্গে কথা বলেছি, তারা এ বিষয়ে প্রশ্ন করবেন না। যদি কোনো প্রতিষ্ঠান এ ধরনের প্রশ্ন তোলেন, তাদের সেটা অন্যায় হবে, অনুচিত হবে। তবে এক্ষেত্রে কেউ চাইলে আইনের আশ্রয় নিতে পারবে। সরকার আইন করে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগ করতে বলেছেন।

এখানে কেউ প্রশ্ন রাখতে পারে না। তবে আমার মনে হয় কাউকেই আইনের আশ্রয় নিতে হবে না।
অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগে উল্লেখযোগ্য সাড়া না পাওয়া গেলেও পুঁজিবাজারে এর প্রভাব পড়েছে বলে জানান তিনি।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, পুঁজিবাজারে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের ফলে ক্যাশ ফ্লো বেড়েছে। তবে রিটার্নের ক্ষেত্রে তেমন সাড়া পড়েনি। রিটার্ন আসলে বোঝা যাবে কী পরিমাণ অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগ হয়েছে।

তিনি বলেন, ভ্যাটের অনিয়ম বন্ধ করতেই ইএফডি চালু করা হচ্ছে। ইএফডি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে রাজস্ব আহরণ ব্যবস্থায় একটি যুগান্তকারী পরিবর্তন আনবে। ফলে হয়রানি দূর হবে এবং রাজস্ব আহরণের ব্যয় ও ব্যবসায়িক খরচ কমবে। কর পরিহারের সুযোগ থাকবেন না। রাজস্ব আদায়ে গতি আসার পাশাপাশি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান অটোমেশনের আওতায় আসবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান বলেন, ক্রেতাদের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাবে বলে আশা করছি। আস্থার জায়গা তৈরি করতে পারবো। প্রাথমিকভাবে ১০০ মেশিন বসানো হলো। পর্যায়ক্রমে আগামী তিন মাসের মধ্যে এক হাজার ইএফডি মেশিন বসানো হবে। আগামী জুনের মধ্যে এক লাখ ইএফডি মেশিন বসানোর লক্ষ্যমাত্রা রয়েছে।

ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস বা ইএফডি হচ্ছে একটি কম্পিউটারাইজড যন্ত্র। ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানে পণ্য বেচাকেনায় দক্ষ ব্যবস্থাপনায় এটি ব্যবহার করা হয়। এর মাধ্যমে রাজস্ব বিভাগ ব্যবসায়িক লেনদেন বা কেনাবেচায় সরাসরি নজর রাখতে পারে। ফলে ভ্যাট ফাঁকি অনেকাংশে কমে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: এনবিআর চেয়ারম্যান


আরও
আরও পড়ুন