Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২১ জানুয়ারি ২০২১, ০৭ মাঘ ১৪২৭, ০৭ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী

প্রধানমন্ত্রীর উপহার নৌ-অ্যাম্বুলেন্স পেলো শিবগঞ্জবাসী

শিবগঞ্জ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২৫ আগস্ট, ২০২০, ২:৫৯ পিএম

নদীবিধৌত চরাঞ্চল নিয়ে গঠিত চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ও দুলর্ভপুর ইউনিয়ন। সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় জরুরি স্বাস্থ্যসেবার জন্য চরাঞ্চলের মানুষ দীর্ঘদিন ধরে চরম ভোগান্তির শিকার হয়ে আসছে। বিশেষ করে রাতে রোগী নিয়ে শিবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স যেতে হলে তাদের ভোগান্তির শেষ ছিল না। রাত ১০টার পর ট্রলার ও নৌকা বন্ধ হয়ে গেলে তাদের পদ্মা পার হওয়ার জন্য পরদিন পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হতো। তাই সবকিছু বিবেচনা করে এলাকার মানুষের স্বাস্থ্য সেবা শতভাগ নিশ্চিত করতে এবং শিবগঞ্জ উপজেলার চরাঞ্চলবাসীর দুর্ভোগ লাঘবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নৌ-অ্যাম্বুলেন্স উপহার দিয়েছেন। মঙ্গলবার (২৫ আগস্ট) সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটির চাবি পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের নিকট তুলে দেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য ও নৌ-পরিবহণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাকিব আল-রাব্বি, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সায়রা খান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান গোলাম কিবরিয়া, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম, পাঁকা ইউপি চেয়ারম্যান ভারপ্রাপ্ত নজরুল ইসলাম, উজিরপুর ইউপি চেয়ারম্যান ফয়েজ উদ্দিনসহ অন্যরা। শিবগঞ্জ উপজেলার পাঁকা ও দুলর্ভপুর ইউনিয়নের একটি অংশ পদ্মা নদীর তীরে অবস্থিত। ওই এলাকায় অন্তত কয়েক হাজার মানুষের বসবাস। ওই সব মানুষ ট্রলার ও নৌকা দিয়ে যাতায়াত করেন। কেউ অসুস্থ হলে তাকে নৌকা ও ট্রলারে করে হাসপাতালে আনা-নেয়া করতে হয়। সম্প্রতি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে চরাঞ্চলের রোগী জন্য নৌ অ্যাম্বুলেন্স চেয়ে চিঠি দেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ডা. শিমুল। এরই প্রেক্ষিতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রালয়ের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কমিউনিটি বেইজড হেলথ কেয়ার প্রকল্পের আওতায় অ্যাম্বুলেন্সটি দেয়া হয়। পাঁকা ইউনিয়ন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম বলেন, ‘নৌ-পথই আমাদের যাতায়াতের একমাত্র ভরসা। বর্ষা মৌসুমে নদী উত্তাল থাকে তখন নৌকা ও ট্রলারে পারাপার হওয়া যায় না। এমন পরিস্থিতিতে অসুস্থ ব্যক্তিদের নিয়ে বেশি বিপাকে পরতে হয়। এ কারণে হাসপাতালে নিতে না পেরে অনেক রোগীর মৃত্যু হয়েছে। এখন নৌ অ্যাম্বুলেন্স দেয়ায় সে সমস্যা আর থাকবে না। সহজেই চরের মানুষ জরুরি স্বাস্থ্য সেবা নিতে পারবে।’ জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া নৌ-অ্যাম্বুলেন্সটি আকন বোট লিমিটেডের তত্ত্বাবধানে নির্মাণ করা হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স কমপক্ষে ৮-১০ জন উঠতে পারবে। অত্যাধুনিক এ অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর জন্য বিছানা, অক্সিজেন ও অন্যান্য ওষুধ সামগ্রী থাকছে। এছাড়া অ্যাম্বুলেন্সে চেয়ার, ফ্যান, লাইফ জ্যাকেট, বয়া এবং জেনারেটর। ২০০ সিসি ক্ষমতা সম্পন্ন অত্যাধুনিক দ্রুতগতির এ নৌ-অ্যাম্বুলেন্স যেকোনো দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ায় চলাচল করতে সক্ষম। উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সায়রা খান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার হিসেবে চরাঞ্চলের মানুষের দৌড়গোরায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিতে নৌ-অ্যাম্বুলেন্স সার্ভিস চালু হচ্ছে যাচ্ছে। এ নৌ-অ্যাম্বুলেন্স অক্সিজেন ও জরুরি ওষুধের ব্যবস্থা ছাড়াও সার্বক্ষণিকভাবে থাকছে স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বাস্থ্যসেবার অন্যান্য উপকরণ। এ সেবা কার্যক্রম চালু হওয়ায় চরাঞ্চলের কয়েক হাজার লোক উপকৃত হবে। আমরা আশা করবো রোগীরা এ সেবা পেয়ে সন্তুষ্ট হবেন। তবে নৌ-অ্যাম্বুলেন্সের প্রতি কিলোমিটার ভাড়াসহ সার্বিক বিষয়ের উপর সিদ্ধান্ত হয়ে শিগগিরই আনুষ্ঠানিকতাভাবে নৌ-অ্যাম্বুলেন্স উদ্বোধন হবে। স্থানীয় এক স্কুল শিক্ষক আবদুল বারী বলেন, এ নৌ-অ্যাম্বুলেন্স চালু হওয়ায় আমাদের অনেক উপকারে আসবে। আমাদের অতিরিক্ত টাকা দিয়ে নদী পারাপারের জন্য গাড়ি ভাড়া করতে হবে না। অনুরোধ করবো কর্তৃপক্ষ যেন, এ নৌ-অ্যাম্বুলেন্সের যাতায়াত খরচ সীমিত রাখে। চরাঞ্চলের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবি ও চাওয়া নৌ-অ্যাম্বুলেন্স বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী পুরণ করায় ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন সংসদ সদস্য ডা. সামিল উদ্দিন আহমেদ শিমুল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন