Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০, ১৪ কার্তিক ১৪২৭, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

ফ্রিল্যান্সারদের পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হবে : প্রধানমন্ত্রী

একনেকে ২৫৭০ কোটি টাকার ৫ প্রকল্প অনুমোদন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৭ আগস্ট, ২০২০, ১২:০১ এএম

বাংলাদেশে করোনা সংক্রমণের আগে ফেব্রæয়ারি মাসে বেশ কয়েকজন মুক্ত পেশাজীবী বা ফ্রিল্যান্সার প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলকের সঙ্গে দেখা করে জানান, কোনো অভিভাবকই ফ্রিল্যান্সারদের কাছে মেয়ে বিয়ে দিতে চায় না। ফ্রিল্যান্সিং করে মাসে এক থেকে দুই লাখ টাকা আয় করলেও পেশাটির কোনো স্বীকৃতি না থাকায় তাদের বিয়ে আটকে গেছে। ব্যাংকে টাকা উঠাতে গেলেও এত টাকা আয়ের উৎস সম্পর্কে জানতে চায়। হয়রানিতে পড়তে হয়। সমাজ ফ্রিল্যান্সকে বাঁকা চোখে দেখে বলেও জানান তারা।
এই প্রতিবেদককে এসব তথ্য জানান বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম। আর তাই গ্রাফিকস, ওয়েব ডিজাইন, অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, স্মার্টফোন অ্যাপ, ওয়েব ডেভেলপমেন্ট করে যারা নিজেদের মুক্ত পেশাজীবী হিসেবে গড়ে তুলেছেন তাদের জন্য সু-খবর দিয়েছেন খোদ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, ফ্রিল্যান্সারদের পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়া হবে।
একনেক বৈঠকে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন স্টোর স্থাপন প্রকল্পের অনুমোদন দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা ফ্রিল্যান্সিং করেন তারা কেরানী বা অন্য সরকারি চাকরিজীবীদের তুলনায় অনেক বেশি টাকা আয় করেন। কিন্তু বিয়ের ক্ষেত্রে তাদের পছন্দ করা হয় না। অভিভাবকরা ফ্রিল্যান্সারদের সঙ্গে মেয়ে বিয়ে দিতে আগ্রহী নয়। বরং ওই কেরানীরাই বেশি অগ্রাধিকার পান। এজন্য ফ্রিল্যান্সারদের সামাজিক বা রাষ্ট্রীয় কি ধরনের স্বীকৃতি দেয়া যায় সেটি ভাবতে হবে। প্রয়োজনে কোনো সনদ দেয়া যায় কিনা সেটি ভাবতে হবে।
একনেক বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, যারা ফ্রিল্যান্সিং করে, এত ভালো কাজ করে, স্মার্ট, সুন্দর কাপড় পরে, কিন্তু বিয়ে করতে গিয়ে অসুবিধা হয়। মেয়ে দেখতে গেলে অভিভাবক থেকে বলে, কী কাজ করো? তারা বলে, ফ্রিল্যান্সিং করি। তারা না কেরানি, না অফিসার, না পুলিশ। অথচ তারা কেরানি, অফিসারের চেয়ে কয়েক গুণ বেশি আয় করে। কিন্তু বিয়ে করতে পারছে না। এটা দূর করার জন্য প্রধানমন্ত্রী আমাদের উপায় খুঁজতে বলেছেন। কী করা যায়। সবাইকে বলেছেন, আপনারা চিন্তাভাবনা করেন। তারা এই যে কাজ করছে এর সামাজিক ও প্রাতিষ্ঠানিক স্বীকৃতি কীভাবে দেয়া যায় তার উপায় বের করেন। নিবন্ধন পেতে পারে কিনা কিংবা সদস্য হতে পারে কিনা বা সার্টিফিকেট কেউ দিতে পারে কিনা। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ফ্রিল্যান্সারদের পেশা হিসেবে স্বীকৃতি দিতে কী করা যায় তার উপায় বের করতে বিশেষ করে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলককে দায়িত্ব দিয়েছেন। ফ্রিল্যান্সারদের কোনো ধরনের আইডেনটিটি দেয়া যায় কি না বা অন্য কিছু করা যায় কি না তা ভাবতে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।
এদিকে একনেক সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিনেমা হল বাঁচাতে একটি আলাদা তহবিল গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন। সিনেমা হল মালিকরা চাইলে সরকার তাদেরকে ঋণ দিয়ে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করবে। প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য তুলে ধরে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, সিনেমা হল মালিকরা কেউ আসে না, কেউ ভাড়া দিয়ে গেছে। কেউ বিক্রি করে দিয়েছে। কেউ বহুতল ভবনও করছে। সিনোমা হল মালিকরা সকলে মিলে যদি ঋণ চায়, তাহলে তা দেয়া হবে। হল মালিকরা যদি সমঝোতা করতে চায়, হল চালাতে চায় তারা তহবিল থেকে ঋণ নিতে পারবে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, একটা বিশেষ তহবিল করে যদি তাদেরকে সহযোগিতা করা যায়। তাদের আগ্রহ আছে। সিনেমা হলগুলো এভাবে পড়ে আছে। তারা যদি এগিয়ে আসে, তাহলে তাদেরকে আমরা সহযোগিতা করবো। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সিনেমা হল মালিকরা যদি এই ব্যবসাকে বাঁচাতে চান, তাহলে সরকার তাদেরকে আর্থিক সহায়তা দেবে। এজন্য বিশেষ তহবিল গঠনের কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।
একনেকে ২৫৭০ কোটি টাকার ৫ প্রকল্প অনুমোদন
এদিকে বিদ্যুৎ ব্যবস্থার উন্নয়নসহ ৫ প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে দুই হাজার ৫৭০ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে এক হাজার ৪৮৫ কোটি টাকা, বৈদেশিক সহায়তা থেকে এক হাজার দুই কোটি টাকা এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থার তহবিল থেকে ৮৩ কোটি টাকা ব্যয় করা হবে।
গণভবন থেকে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী ও একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।
সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী গবেষণায় খুবই আগ্রহী। তিনি বলেছেন, আরো গবেষণা করেন। অযথা পশুপাখী হত্যা করবেন না। যেসব পশু পাখি খাওয়া যায় সেগুলো উৎপাদন বাড়ান এবং এক হাজার পশু জš§ দেয়ার ব্যবস্থা নেবেন, এক হাজার খাবেন। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, মহিষের দুধ খুব দামী এবং পুষ্টিকর। তাই এ বিষয়ে প্রকল্প নেয়া হয়েছে। একনেকে অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হচ্ছে, ২০৬ কোটি টাকা ব্যয়ে কৃত্রিম প্রজনন কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও ভ্রণ স্থানান্তর প্রযুক্তি বাস্তবায়ন প্রকল্প, ৬৩ কোটি টাকা ব্যয়ে মহিষ গবেষণা ও উন্নয়ন প্রকল্প, এক হাজার ৪৫৪ কোটি টাকা ব্যয়ে ডিপিডিসির আওতাধীন এলাকায় উপকেন্দ্র নির্মাণ ও পুনর্বাসন, বিদ্যুৎ ব্যবস্থায় ক্যাপাসিটর ব্যাংক স্থাপন এবং স্মার্ট গ্রীড ব্যবস্থার প্রবর্তন এবং ৭৯৯ কোটি টাকা ব্যয়ে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং ও ইনকিউবেশন স্টোর স্থাপন প্রকল্প।#



 

Show all comments
  • বাঁধন ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩২ এএম says : 0
    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ বক্তব্য শুনে খুব ভালো লাগলো
    Total Reply(0) Reply
  • টয়া ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩৩ এএম says : 0
    আসলেই ফ্রিল্যান্সারদের একটা স্বীকৃতি খুব দরকার
    Total Reply(0) Reply
  • কামরুল ইসলাম ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩৪ এএম says : 0
    ফ্রিল্যান্সাররা দেশের অর্থনীতিতে একটা বিশাল ভূমিকা রাখেন
    Total Reply(0) Reply
  • খোরশেদ আলম ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩৫ এএম says : 0
    এই বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী দৃষ্টি দেয়ায় তার প্রতি আমরা সবাই কৃতজ্ঞ
    Total Reply(0) Reply
  • গোলাম কাদের ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩৫ এএম says : 0
    এটা হলে মানুষ ফ্রিলান্সিং এর প্রতি আরও আগ্রহী হবে
    Total Reply(0) Reply
  • জয় চৌধুরী ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৩:৩৬ এএম says : 0
    সিনেমা হল বাঁচাতে একটি আলাদা তহবিল গঠনের নির্দেশ দেয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৬ আগস্ট, ২০২০, ৭:৫১ এএম says : 0
    ফ্রিল্যান্সারদের দুঃখের কথা শুনে প্রধানমন্ত্রী তাঁর মন্ত্রীদেরকে দায়িত্ব দিয়েছেন কিভাবে ফ্রিল্যান্সারদেরজে সমাজে চিহ্নিত করা যায় যাতে করে তাদের মর্যাদা বৃদ্ধি পায়। প্রধানমন্ত্রী এই উদ্যোগ প্রশংসনীয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: প্রধানমন্ত্রী

২১ অক্টোবর, ২০২০
২৭ আগস্ট, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন