Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

অক্সফোর্ডের ভ্যাকসিন আনবে বেক্সিমকো

সিরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়ায় বিনিয়োগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৮ আগস্ট, ২০২০, ৭:৪২ পিএম | আপডেট : ৭:৪৪ পিএম, ২৮ আগস্ট, ২০২০

করোনার বিরুদ্ধে সম্মিলিত লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছে বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড এবং সিরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়া। বিভিন্ন কোম্পানির বিনিয়োগ এবং চুক্তি সংক্রান্ত তথ্য প্রকাশকারী ব্রিটিশ ওয়েবসাইট ইনভেস্টগেট জানিয়েছে, অ্যাস্ট্রাজেনেকার ভ্যাকসিনের ‘এক্সক্লুসিভ সরবরাহকারী’ হতে পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউটের সঙ্গে চুক্তি করেছে বাংলাদেশের বেক্সিমকো।


খবরের সত্যতা স্বীকার করে গতকাল বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ ওষুধ ও ওষুধের কাঁচামাল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড (বিপিএল) এবং বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড (এসআইআই) এর পক্ষ থেকে একটি একটি যৌথ বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। বিবৃতিতে তারা জানায়, কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন উন্নয়নে এসআইআই-এ বিনিয়োগ করবে বেক্সিমকো। এটি অত্যন্ত গর্বের।


বিবৃতিতে আরো বলা হয়, এই বিনিয়োগ অগ্রিম হিসেবে বিবেচিত হবে। ভ্যাকসিনটি যখন নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষের অনুমোদন পাবে, তখন যেসব দেশ সবার আগে নির্দিষ্ট পরিমাণ ভ্যাকসিন অগ্রাধিকার ভিত্তিতে পাবে তাদের মধ্যে বাংলাদেশকেও অন্তর্ভুক্ত করবে এসআইআই।


এসআইআই-এর উৎপাদন সক্ষমতা ও অন্যান্য দেশের সঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির পূর্ববর্তী অঙ্গীকারের ওপর নির্ভর করবে বিপিএল-এর বিনিয়োগের পরিমাণ ও বাংলাদেশের জন্য এসআইআই-এর অগ্রাধিকারমূলক ভ্যাকসিন সরবরাহের পরিমাণ।


বাংলাদেশ সরকারের প্রয়োজন নিশ্চিতের ব্যবস্থাও করবে বেক্সিমকো। বাংলাদেশ সরকার এবং এসআইআই-এরমধ্যে সম্মত হওয়া মূল্যে অগ্রাধিকারমূলক সরবরাহের জন্য চাহিদামাফিক ভ্যাকসিন সংরক্ষণের প্রস্তাব দেয়া হবে সরকারকে।


এছাড়া, বাংলাদেশের বেসরকারি বাজারের জন্য ভ্যাকসিনের সরবরাহ নিশ্চিত করবে বিপিএল। অক্সফোর্ড/অ্যাস্ট্রাজেনেকা ভ্যাকসিন (এজেডডি১২২) হলো অ্যাডিনোভাইরাস ভেক্টর-ভিত্তিক ভ্যাকসিন। বর্তমানে ব্রাজিল, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ভারতে বৃহৎ আকারে এই ভ্যাকসিনের তৃতীয় ধাপের ট্রায়াল চলছে।


যুক্তরাজ্যে ট্রায়াল চলমান এবং এ ট্রায়াল থেকে খুবই উৎসাহব্যাঞ্জক ফলাফল পাওয়া গেছে। আশা করা হচ্ছে ২০২০ সালের শেষ নাগাদ এই ভ্যাকসিন অনুমোদন পাবে। এসআইআই ইতিমধ্যে বৈশ্বিক সরবরাহের জন্য এই ভ্যাকসিনের ১০০ কোটিরও বেশি ডোজ উৎপাদনের লক্ষ্যে অক্সফোর্ড/অ্যাস্ট্রাজেনেকার পাশাপাশি গেটস ফাউন্ডেশন ও গ্যাভির সঙ্গে অংশীদারিতে পৌঁছেছে।


এসআইআই-এর মালিক ও প্রধান নির্বাহী আদর সি পুনাওয়ালা ও বিপিএল-এর প্রিন্সিপ্যাল শায়ান এফ রহমান এক যৌথ বিবৃতিতে আরো উল্লেখ করেছেন যে, অত্যন্ত আশাব্যঞ্জক এই ভ্যাকসিন যেসব মানুষের সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তাদের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ভারত ও বাংলাদেশের দু’টি শীর্ষ স্থানীয় ফার্মা কোম্পানিকে একসাথ করতে পেরে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত।


দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার যে গভীর সদিচ্ছা, তারই প্রতিফলন হিসেবে এই চুক্তি মাইলফলক হয়ে থাকবে। দুই জাতির প্রতিনিধি হিসেবে, একসঙ্গে আমরা কোভিড-১৯ মহামারির কারণে সৃষ্ট স্বাস্থ্য সংকট নিরসনে অনেকদূর যেতে পারবো।



 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ২৮ আগস্ট, ২০২০, ৯:৫৯ পিএম says : 0
    বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড (বিপিএল) এবং বিশ্বের সবচেয়ে বড় ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান সিরাম ইন্সটিটিউট অব ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেড (এসআইআই) এই দুই প্রতিষ্ঠান কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন সরবরাহের উপর এক চুক্তি করেছে। এটা অবশ্যই বাংলাদেশের জন্যে একটা বিরাট শুখবর। আমি ব্যাক্তিগতভাবে বিপিএলের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাই। এই দুই কোম্পানির মধ্যে চুক্তির ফলে বাংলাদেশে এসআইআই এর উৎপাদিত ভ্যাকসিন প্রথমে যেসব দেশ পাবে তারমধ্যে বাংলাদেশ একটি দেশ। আর যখন ভ্যাকসিন বাংলাদেশে আসবে তখন দুই দেশের মধ্যে বন্ধুত্ব আরো গভীর হবে বলে সবার বিশ্বাস।
    Total Reply(0) Reply
  • এন ইসলাম ২৮ আগস্ট, ২০২০, ১১:৩৮ পিএম says : 0
    বেক্সিমকো গ্রুপ ও সালমান এফ রহমান সম্বন্ধে ছোটবেলা থেকেই নানা সময় নেতিবাচক সংবাদ দেখে এসেছি । আজ পরিণত বয়সে এসে আমার মূল্যায়ন - বেক্সিমকো ফার্মা এদেশের সবচেয়ে অভিজাত ও দায়িত্বশীল ঔষধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান । গুনগত মানের ক্ষেত্রে বেক্সিমকো ফার্মার সাথে অন্য কারও তুলনা চলেনা । বেক্সিমকো ফার্মা যেহেতু এই উদ্যোগ নিয়েছে, আমি শতভাগ আস্থাশীল । শুধু দামটি যদি সাধারন মানুষের নাগালের ভিতরে থাকে, তবে বাংলাদেশ সত্যিই উপকৃত হবে ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বেক্সিমকো


আরও
আরও পড়ুন