Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য বিবেচনা করে মেয়াদবৃদ্ধির সিদ্ধান্ত: আইনমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩১ আগস্ট, ২০২০, ২:৫০ পিএম

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাময়িক মুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধির যে আবেদন তার পরিবার করেছে, সেখানে কী লেখা হয়েছে- তা দেখে এবং তার স্বাস্থ্যের অবস্থা বিবেচনা করে তার সাজা স্থগিতের মেয়াদ বৃদ্ধি যায় কিনা, তা সরকার সিদ্ধান্ত নেবে।

সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। আইনমন্ত্রী বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আমাকে বলেছেন, তিনি একটি দরখাস্ত পেয়েছেন। যেহেতু আগামী সেপ্টেম্বরের ২৪ তারিখ ছয় মাস (খালেদার সাময়িক মুক্তির মেয়াদ) শেষ হয়ে যাবে, তারা সেটির এক্সটেনশন চেয়েছেন। তবে ওই আবেদন এখনও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আইন মন্ত্রণালয়ে পৌঁছেনি। আবেদন পৌঁছালে বিবেচনা করা হবে।

আনিসুল হক বলেন, দরখাস্তে কী লিখেছেন সেটি আমি এখনও জানি না। উনাকে যখন ছয় মাস আগে একবার প্রধানমন্ত্রী মানবিক কারণে মুক্তি দিয়েছিলেন, ছয় মাসের জন্য। আমরা তার স্বাস্থ্যের অবস্থা বিবেচনা করে দরখাস্তে কী লেখা আছে সেসব বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেব।

আইনমন্ত্রী আরও বলেন, খালেদা জিয়া জামিনে নেই, কোনো আদালত তাকে জামিন দেয়নি। গেলো মার্চ মাসে তার পরিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছিল যেন চিকিৎসার জন্য তাকে নির্বাহী আদেশে জেল থেকে মুক্তি দেয়া হয়।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মানবিক দিক বিবেচনা করে আমাদের নির্দেশ দিয়েছিলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ (১) ধারায় তার দণ্ডাদেশ স্থগিত করে তাকে ছয় মাসের জন্য মুক্তি দেয়ার জন্য এবং গত ২৫ মার্চ সেই আদেশে তিনি মুক্তি পেয়েছেন।

দুর্নীতির দুই মামলায় ১৭ বছরের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে সাময়িক মুক্তি দেওয়ার সময় আইন মন্ত্রণালয়ের সুপারিশ বিবেচনায় নিয়েছিল স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।


ছয় মাসের ওই মুক্তির মেয়াদ ২৪ সেপ্টেম্বর শেষ হচ্ছে। ৭৫ বছর বয়সী খালেদা জিয়া বর্তমানে গুলশানে তার ভাড়া বাসা ‘ফিরোজা’য় রয়েছেন। তিনি আর্থারাইটিস, ডায়াবেটিস, চোখের সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যায় ভুগছেন। তার বিরুদ্ধে আরও ৩৪টি মামলা রয়েছে।


 

Show all comments
  • Mohammed Shah Alam Khan ৩১ আগস্ট, ২০২০, ১১:০৩ পিএম says : 0
    খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনে নির্বাহী আদেশে মানে প্রধানমন্ত্রী দয়ায় ৬ মাসের জন্যে তারা সাজা স্থগিত করে জামিন দিয়েছিলেন। এখন সেই সময় শেষ হতে চলছে তাই আবার খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষথেকে খালেদা জিয়ার জামিনের সময় বৃদ্ধি করার জন্যে আবেদন করা হয়েছে। এখানে বিষয়টা খুবই পরিষ্কার প্রধানমন্ত্রী যদি ইচ্ছা করেন তাহলেই খালেদা জিয়ার জামিন বাড়ানো হবে। সেজন্যেই বিষয়টা পুরোপুরি ভাবেই নির্ভর করছে নেত্রী শেখ হাসিনার ইচ্ছার উপর। এখন আমাদেকে অপেক্ষা করতে হবে পরিস্থিতির উপর। আল্লাহ্‌ আমাকে সহ সবাইকে যেন সত্য পথে চলার ক্ষমতা প্রদান করেন। আমিন
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খালেদা জিয়া


আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ