Inqilab Logo

ঢাকা শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১২ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

নরওয়েতে কুরআনের পাতা ছিঁড়ে বিক্ষোভ, আটক ৩০

সুইডেনে কোরআন পোড়ানোর নিন্দায় তুরস্ক-ওআইসি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

নরওয়ের রাজধানী ওসলোতে একটি উগ্র ইসমলামবিরোধী গোষ্ঠী কুরআনের পাতা ছিঁড়ে বিক্ষোভ করে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করে কিছু সময় পর স্থানীয় মুসলমানরা বিক্ষোভ করে। ডয়েচে ভেলের খবরে বলা হয় শনিবার দুই পক্ষের এই বিক্ষোভের সময় উভয়ের মাঝে হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে অন্তত ৩০ জনকে আটক করে। খবরে আরও বলা হয়, অসলোর সংসদ ভবনের সামনে ওই সমাবেশে একদল ইসলামবিরোধী গোষ্ঠী নরওয়েতে ইসলাম ধর্মকে নিষিদ্ধের দাবি জানায়। তাদের এই সমাবেশের আয়োজনের আগে সেখানে পুলিশের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। এমন পরিস্থিতির মধ্যেই এক নারী কুরআনের কয়েকটি পাতা ছিঁড়ে ফেলেন এবং হজরত মুহাম্মদ (সা.) কে ভুয়া নবী উল্লেখ করেন আন্দোলনকারীরা। এর আগেও ধর্মবিদ্বেষী ঘৃণাত্মক বক্তব্য দেয়ার জন্য ওই নারীকে আটক করা হয়। পরে সেখান থেকে সবাই সরিয়ে দেয়া হয়। অপরদিকে, সুইডেনের মালমো শহরে মুসলমাদের পবিত্র ধর্মীয় গ্রন্থ কোরআনের কপি পোড়ানোর ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে ইসলামি সহযোগিতা সংগঠন (ওআইসি)। এক বিবৃতিতে ওআইসি এ কাজকে উসকানিম‚লক আচরণ হিসেবে বর্ণনা করেছে। ওআইসির ইসলাম বিদ্বেষী অবজারভেটরি বডি সারা বিশ্বে এমন ইলামফোবিয়া ঘটনা পর্যবেক্ষণ করছে। কোরআন পোড়ানো ঘটনায় সুইডিশ কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপকে স্বাগত জানিয়েছে ওআইসি। বিবৃতিতে অবজারভেটরির পক্ষ থেকে সুইডেনের মুসলিমদের সংযম ও সংঘাত এড়ানোর আহ্বান জানানো হয়েছে। আনাদোলুর খবরে বলা হয়, সুইডেনে যারা কোরআন পুড়িয়েছে তারা আধুনিক বর্বর, তাদের আদিম মানসিকতা। তুরস্কের প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র রবিবার এই মন্তব্য করেছেন। ইব্রাহিম কালিন এক টুইট বার্তায় বলেছেন, তারা নির্লজ্জভাবে ইসলামের পবিত্র গ্রন্থ কোরআনকে ইউরোপের মাঝে পোড়ায়। এরপর তারা যুক্তি, স্বাধীনতা এবং ন্যায়বিচারের দৃষ্টান্ত হিসাবে দাবি করে।এছাড়া তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে কোরআন পোড়ানোর তীব্র নিন্দা জানানো হয়। গত শুক্রবার মুসলমানদের ধর্মীয় গ্রন্থ পবিত্র কোরআন পোড়ানোর অভিযোগে সুইডেনের দক্ষিণ প্রান্তে অবস্থিত মালমো শহরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। শহরটিতে ভাঙচুর-অগ্নিসংযোগ এবং পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ার ঘটনাও ঘটেছে। আনাদোলু, ইয়েনি শাফাক।



 

Show all comments
  • Kazi Belal ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    নিন্দা এবং ধিক্কার জানাই তথাকথিত এসব সভ্যতার মুখোশধারী বর্বর, হায়েনা এবং জালিমদের। মুসলমানই একমাত্র জাতি যারা অন্য কোন ধর্ম কে হেয় করে না এটা ইসলামের শিক্ষা। পবিত্র কুরআনুল কারিম মহান আল্লাহ সুবহানাহু ওয়াতাআলা'র পক্ষ থেকে অবতীর্ণ মহাগ্রন্থ এবং এর হেফাজতকারী স্বয়ং আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সুতরাং কাফের, মোশরেক এবং বেইমানরা যত চেষ্টাই করুক তারা কখনও সফল হবে না। এবং ইসলামের আলো কেউ নিবিয়ে দিতে পারবে না, সত্যের বিজয় অবধারিত ইনশাআল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • Siddiq A Akbor Akbor ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    হে আল্লাহ ওই জালিমদের বিচার তুমি একটু দুনিয়াতে দেখায় দাও যাতে করে আর কোন জালিম যেন তোমার পবিত্র কোরান এর সাথে বেয়াদবি করতে না পাড়ে
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Halim ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:১৩ এএম says : 0
    Yah Allah save your holy Quran
    Total Reply(0) Reply
  • Muhammad Zubayer Ahmed Bhuiyan ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    আল্লাহ আপনি কাফেরদের বিচার করুন আমিন
    Total Reply(0) Reply
  • Altab Hussain ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১:১৪ এএম says : 0
    Allah tumi rokka koro tumar quranul karim re
    Total Reply(0) Reply
  • তুষার ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:১৯ এএম says : 0
    এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হোক
    Total Reply(0) Reply
  • নিয়ামুল ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:২০ এএম says : 0
    এদেরকে এমন শাস্তি দেয়া হোক যাতে ভবিষ্যতে এমন কাজ করার কেউ সাহস না পায়
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নরওয়

২৫ নভেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ