Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে ফেরি পারের অপেক্ষায় শত শত যানবাহন

আরিচা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ২:৪১ পিএম

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌ-রুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত হওয়ায় পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটে যানবাহনের চাপ বৃদ্ধি পেয়েছে। পদ্মায় তীব্র স্রোত থাকায় এ রুটেও ফেরি চলাচলে অনেকটা বিঘ্ন ঘটছে। চাহিদা অনুযায়ী ফেরি কম থাকায় ফেরি পারাপারে কর্তৃপক্ষ হিমশিম খাচ্ছে। এতে, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত উভয় ঘাটে ৭ শতাধিক যানবাহন ফেরি অপেক্ষায় ছিল। 

বিআইডব্লিউটিসি'র ঘাট ও যানবাহন সূত্র জানায়, গত কয়েকদিন যাবৎ এ রুটে বাড়তি যানবাহনের চাপ পরিলক্ষিত হচ্ছে। প্রয়োজনীয় ফেরি না থাকায় ট্রিপ সংখ্যা কমে গেছে। ফলে কর্তৃপক্ষ বাড়তি যানবাহন পারাপার করতে হিমশিম খাচ্ছে।
বিআইডব্লিউটিসি'র ডিজিএম জিল্লুর রহমান জানান,সচল ১৫টি ফেরি দিয়ে যানবাহন পারাপার করা হচ্ছে। বিরতিহীনভাবে ফেরি চলতে গিয়ে ২/১টি মাঝেমধ্যেই যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দিচ্ছে। এতে, ফেরি কমে গিয়েই ট্রিপ সংখ্যা কমে যাচ্ছে। ফলে অপেক্ষমান যানবাহনের সংখ্যা ক্রমাগত বৃদ্ধি পাচ্ছে। তিনি আরো জানান, শুধু পাটুরিয়া প্রান্তেই ৪ শতাধিক ট্রাক ও শতাধিক বাস মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত ফেরি পারের অপেক্ষায় ছিল। দৌলতদিয়া প্রান্তেও অনুরুপ যানবাহন ফেরি পারের অপেক্ষায় ছিল। দিনের মধ্যে যাত্রীবাহী যানবাহন পারাপার করা সম্ভব হলেও মালবাহী ট্রাকগুলোকে পারাপার করা সম্ভব হচ্ছে না।
ট্রাক শ্রমিকরা জানান, ২/৩ দিন অপেক্ষার পর তারা ফেরি বুকিং পাচ্ছে।
এদিকে, বৃষ্টির মধ্যে ঘাটে আটকে পড়ে বাসযাত্রীরা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে। ৩-৪ ঘন্টা ঘাটে অবস্থানের পর বাসগুলো ফেরি পার হতে পারছে। বিশেষ করে নারী ও শিশু যাত্রীদের দুর্ভোগের শেষ নেই। ঘাট টার্মিনালগুলো ছাপিয়ে মালবাহী ট্রাকগুলো মহাসড়কে লাইনে দাঁড় করে রাখা হয়েছে। পাটুরিয়া প্রান্তে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের উথলী মোড় থেকে আরিচা পর্যন্ত দীর্ঘ ৪ কিলোমিটার রাস্তায় ট্রাকের সারিতে ঠাঁসা। ট্রাক শ্রমিকরা ঘন্টার পর ঘন্টা এই সড়কে আটকে পড়ে পানাহারসহ নানা সমস্যায় ভুগছেন। যানজট সমস্যায় যাত্রী ও শ্রমিক দুর্ভোগ দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন