Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আম্পানে নিহত স্বেচ্ছাসেবকের পরিবারকে সহায়তা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০১ এএম

ঘূর্ণিঝড় আম্পানের সময় নৌকা ডুবে নিহত ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচির (সিপিপি) স্বেচ্ছাসেবক সৈয়দ শাহ আলমের পরিবারকে সাত লাখ ৩৬ হাজার ৭০০ টাকা সহায়তা দিয়েছে সরকার। গতকাল সচিবালয়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ঘূর্ণিঝড় আম্পানে আত্মদানকারী সিপিপি স্বেচ্ছাসেবক সৈয়দ শাহ আলমের স্ত্রী শারমিন জাহান আঁখির হাতে অর্থের চেক তুলে দেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। ঘূর্ণিঝড় আম্পান আঘাত হানার আগ মুহূর্তে পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার স্থানীয়দের আশ্রয়কেন্দ্রে আনার সময় নৌকা ডুবে গত ২০ মে মারা যান শাহ আলম। ১৯৮৪ সাল থেকে ঘূর্ণিঝড়ের আগাম সতর্ক সঙ্কেত প্রচার, সতর্কীকরণ ও উদ্ধারে কাজ করে আসছিলেন তিনি। এনামুর রহমান বলেন, সিপিপির স্বেচ্ছাসেবকদের কারণে দুর্যোগের ক্ষয়ক্ষতি প্রায় শূন্যের কোটায় নেমে এসেছে। এক সময় যেখানে ১০ লাখ লোক মারা যেত, এখন সেখানে ১০ জনও মারা যায় না। বিভিন্ন ধরনের পদক্ষেপ নেয়ায় দুর্যোগ মোকাবিলায় বাংলাদেশ সক্ষমতা অর্জন করেছে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ডিজাস্টার রেসপন্স ফোর্স করতে যাচ্ছি। তাদের কিছু সম্মানী দেয়ার চিন্তা করছি। কারণ তারা ঝুঁকি নিয়ে কষ্ট করে কাজ করছেন। তাদের সম্মানী দেয়া হলে কাজে আরও উৎসাহ পাবেন। মানুষের জীবন টাকা নিয়ে মূল্যায়ন করা যায় না। সবসময় শাহ আলমের পরিবারের পাশে আছি।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোহসীনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি এ বি তাজুল ইসলাম, বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান হাফিজ আহমেদ মজুমদার, ভাইস চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. মো. হাবিবে মিল্লাত, সাধারণ সম্পাদক ফিরোজ সালাউদ্দিন, কলাপাড়া ইউনিয়নের সিপিপি স্বেচ্ছাসেবকদের টিম লিডার মোতালেব হাওলাদার প্রমুখ।

আমরণ অনশনে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভারের স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টরা
স্টাফ রিপোর্টার : চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভারের স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের আমরণ অনশন। রাজধানীর শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে কর্মরত স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের চাকরি স্থায়ীকরণ এবং রাজস্বখাতে নিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ না নেয়ায় আমরণ অনশনে টেকনোলজিস্টরা। গতকাল শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের সামনে এ আমরণ কর্মসূচি শুরু করেন ১৩ জন স্বেচ্ছাসেবী।

করোনা সঙ্কটে স্বাস্থ্যখাতের অনেকেই সেবা দিতে অনাগ্রহ প্রকাশ করলেও স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সেবা প্রদান করে গেছেন। এমনকি করোনার নমুনা সংগ্রহ-পরীক্ষার মতো ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করতে গিয়ে তাদের অনেকেই করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।
শেখ রাসেল জাতীয় গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে রাজস্বখাতের আওতাভুক্ত কোনো মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট না থাকায় স্বেচ্ছাসেবীরা দায়িত্বের সঙ্গে সেবা প্রদান করে আসছেন।

করোনা সেবায় যুক্ত মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের সরাসরি রাজস্ব খাতে নিয়োগের জন্য প্রথম ধাপে ১৪৫ জন এবং দ্বিতীয় ধাপে ৫৭ জনকে অনুমোদন দেয় বর্তমান সরকার। কিন্তু, নিয়োগ তালিকায় শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের ১৩ জন স্বেচ্ছাসেবীর নাম নেই।
নিয়োগবঞ্চিত ১৩ স্বেচ্ছাসেবী মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এ লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে চিঠিও দিয়েছেন নিয়োগবঞ্চিতরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঘূর্ণিঝড়


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ