Inqilab Logo

ঢাকা সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১৪ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

সাড়ে ২২ হাজার শূন্য পদে শিক্ষক নিয়োগ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১২:০০ এএম

 সারাদেশে এমপিওভুক্ত বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় সাড়ে ২২ হাজার সহকারী শিক্ষক পদ শূন্য। এই শূন্যপদের তালিকা তৈরি করা হয়েছে। যাচাই-বাছাই শেষে শিক্ষক নিয়োগে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে নিবন্ধিত প্রার্থীদের কাছ থেকে আবেদন চাওয়া হবে। এরপর মেধাতালিকার ভিত্তিতে স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শূন্যপদে শিক্ষক নিয়োগের জন্য সুপারিশ করবে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ)। নভেম্বরের মধ্যে এ নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হবে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।
এনটিআরসিএ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সারাদেশের এমপিওভুক্ত (মান্থলি পেমেন্ট অর্ডার) স্কুল-কলেজ, মাদরাসা ও কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শূন্য পদের তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। অনলাইন ও টেলিটক মোবাইলের মাধ্যমে সংগৃহীত এ তালিকায় দেখা গেছে, অনুমোদিত বিভিন্ন বিষয়ে প্রায় সাড়ে ২২ হাজার পদ শূন্য। তালিকাটির এখন যাচাই-বাছাই চলছে। এরই অংশ হিসেবে গত ২৬ আগস্ট দেশের সব জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের একজন অতিরিক্ত সচিবকে নিয়ে সভা করেন এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান আকরাম হোসেন। সেখানে তালিকাটি যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চ‚ড়ান্ত করার আলোচনা হয়। আকরাম হোসেন এ তালিকা সরেজমিনে যাচাই করতে থানা/উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেন।
সভা সূত্রে জানা যায়, শূন্যপদের তালিকাটি যাচাই-বাছাইয়ের মাধ্যমে চ‚ড়ান্ত করার কাজ শুরু হয়েছে। সভার নির্দেশনা অনুসারে, তালিকা অনুযায়ী শূন্যপদের অনুমোদন রয়েছে কি-না, নারী কোটায় পুরুষ শিক্ষকের চাহিদা অথবা নারী কোটা পূরণ, চাহিদার চেয়ে অধিক শূন্যপদ দেখানো হয়েছে কি-না, তা যাচাই করা হবে। এজন্য মাঠ পর্যায়ে প্রথমে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সরেজমিনে গিয়ে যাচাই করবেন। পরে উপজেলা ও জেলা শিক্ষা কর্মকর্তারা চ‚ড়ান্ত করে তা এনটিআরসিএতে পাঠাবেন। তালিকা শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন দেয়ার পর ১ থেকে ১৫তম নিবন্ধনের অপেক্ষমান প্রায় আট লাখ প্রার্থীর মধ্যে নিয়োগ কার্যক্রম শুরু করতে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে এনটিআরসিএ।
জানতে চাইলে এনটিআরসিএ’র চেয়ারম্যান আকরাম হোসেন বলেন, সারাদেশ থেকে শূন্যপদে বিভিন্ন বিষয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগের জন্য প্রায় সাড়ে ২২ হাজার তালিকা পেয়েছি। বর্তমানে তা যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে। তালিকা চ‚ড়ান্ত করে নিবন্ধিত প্রার্থীদের কাছ থেকে আবেদন চেয়ে গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

 

 



 

Show all comments
  • md. mithin ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০, ১০:২৩ এএম says : 0
    আপনারা গণবিজ্ঞাপ্ত বন্ধ করতে বলুন। কারণ এটি কখনো নিয়োগ প্রক্রিয়া হতে পারে না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: শিক্ষক

২২ নভেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন